দেশের এই রাজ্যগুলিতে প্রবেশ করতে গেলে আবশ্যিক করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট! রইল তালিকা

প্রতীকী ছবি

হঠাৎ এভাবে ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় ফের স্বাস্থ্যবিধির দিকে কড়া নজর দেওয়া হচ্ছে। এবার থেকে রিপোর্ট নেগেটিভ না হলে দেশের কয়েকটি রাজ্যে প্রবেশ করা যাবে না। এই রাজ্যগুলির সরকার এমনই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ক্রমশ বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমণ। আর তাই নড়েচড়ে বসেছে দেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রক। হঠাৎ এভাবে ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় ফের স্বাস্থ্যবিধির দিকে কড়া নজর দেওয়া হচ্ছে। এবার থেকে রিপোর্ট নেগেটিভ না হলে দেশের কয়েকটি রাজ্যে প্রবেশ করা যাবে না। এই রাজ্যগুলির সরকার এমনই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

    কারণ গত এক সপ্তাহে পাঁচটি রাজ্যে হঠাৎ ৮৬ শতাংশ বেড়ে গিয়েছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এই পাঁচ রাজ্যের মধ্যে রয়েছে মহারাষ্ট্র, কেরল, ছত্তিশগড়, পাঞ্জাব, মধ্যপ্রদেশ। এই পাঁচ রাজ্যের মধ্যে মহারাষ্ট্র ও কেরলে সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে। এই বিষয়টি মাথায় রেখেই কয়েকটি রাজ্যে তাই করোনার নেগেটিভ রিপোর্ট বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

    এই স্থানগুলিতে প্রবেশ করার আগেই যাত্রীদের করোনার রিপোর্ট দেখাতে হবে। দেখে নেওয়া যাক কোন রাজ্যগুলি এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে-

    ১) দিল্লি- মহারাষ্ট্র, কেরল, পাঞ্জাব, ছত্তিশগড়, মধ্যপ্রদেশ এই রাজ্যগুলি থেকে দিল্লিতে প্রবেশ করতে হলে করোনার নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতেই হবে। এক আধিকারিক জানিয়েছেন আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি মাঝরাত থেকে দুপুরের মধ্যে এই নতুন করোনা বিধি প্রয়োগ করা হবে।বিমান, ট্রেন ও বাস যে কোনও ভাবেই দিল্লিতে প্রবেশ করার আগে এই রিপোর্ট দেখাতে হবে।

    ২) কর্ণাটক- জিও প্রবেশ করতে হলে করোনার নেগেটিভ রিপোর্ট আবশ্যিক। যাত্রার ৭২ ঘন্টা আগে করোনা পরীক্ষা করাতে হবে। এর থেকে পুরনো রিপোর্ট গ্রাহ্য করা হবে না। শুধু বিমান নয়। বাস বা ট্রেনে করে আসলেও করোনার রিপোর্ট দেখাতে হবে।

    ৩) মহারাষ্ট্র- কেরল, গোয়া, গুজরাট. দিল্লি এবং রাজস্থান থেকে আগত যাত্রীদের এই রাজ্যে প্রবেশ করার আগে দেখাতে হবে করোনা রিপোর্ট। একমাত্র রিপোর্ট নেগেটিভ এলে তবেই রাজ্যে প্রবেশ করা যাবে। যাত্রা শুরুর ৯৬ ঘন্টা আগে করোনা পরীক্ষা করাতে হবে। এর চেয়ে পুরনো রিপোর্ট গ্রহণ করা হবে না। উপসর্গহীন যাত্রীদের প্রবেশ করার অনুমতি দেওয়া হবে। কিন্তু যাদের মধ্যে উপসর্গ রয়েছে তাদের আবার নিজেদের রাজ্যে অথবা বাড়ি ফিরে যেতে হবে। তাঁদের অ্যান্টিজেন পরীক্ষা করা হবে।

    ৪) পুণে- কেরল থেকে আসা সমস্ত যাত্রীকে করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতে হবে। তবেই এই রাজ্যে প্রবেশ করা যাবে।

    ৫) উত্তরাখণ্ড- মহারাষ্ট্র, কেরল, ছত্তিশগড়, পাঞ্জাব, মধ্যপ্রদেশ এই পাচ রাজ্য থেকে যারা আসবেন তাদের করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতে হবে কারণ এই রাজ্যগুলি তে সবচেয়ে বেশি বাড়ছে করোনা সংক্রমনের প্রবণতা।

    ৬) হরিদ্বার- কুম্ভমেলায় যারা আসতে চান তাদের প্রত্যেককে করোনা পরীক্ষা করিয়ে নেগেটিভ রিপোর্ট দেখিয়ে এখানে প্রবেশ করতে হবে। যে কোনও রাজ্য থেকে এলেই নেগেটিভ রিপোর্ট আবশ্যিক এখানে।

    ৭) জম্মু-কাশ্মীর- উপত্যকায় প্রবেশ এর আগেও দেখাতে হবে করোনার নেগেটিভ রিপোর্ট। রাজ্যে প্রবেশ করার ৪৮ ঘণ্টা আগে করোনা পরীক্ষা করাতে হবে। এর চেয়ে পুরনো রিপোর্ট গ্রহণ করা হবে না।

    ৮) মণিপুর, মিজোরাম, মেঘালয়- উত্তর-পূর্ব ভারতের এই স্থানগুলিতে প্রবেশ করতে গেলে দেখাতেই হবে করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট। যারা রিপোর্ট দেখাতে পারবেন না তাদের প্রবেশ করার আগে করোনা পরীক্ষা করা হবে।

    ৯) ছত্তিশগড়- বাইরে থেকে আসা যে কোনও ব্যক্তিকে এই রাজ্যে প্রবেশ করার আগে দেখাতে হবে করোনার নেগেটিভ রিপোর্ট।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: