corona virus btn
corona virus btn
Loading

সংক্রমণ ঠেকাতেই হবে... শহরের কন্টেইনমেন্ট জোনে চলছে পুলিশি মাইকিং

সংক্রমণ ঠেকাতেই হবে... শহরের কন্টেইনমেন্ট জোনে চলছে পুলিশি মাইকিং

সাধারণত কনটেইনমেন্ট জোন পাঁচ কিলোমিটার পরিধি জুড়ে হওয়ার কথা। তারপরও থাকার কথা বাফার জোন।

  • Share this:

#বর্ধমানঃ টানা একুশ দিনের জন্য লকডাউন থাকবে বর্ধমানের সুভাষপল্লী ও তার আশপাশের এলাকা। করোনা সংক্রমণ ছড়ানোয় এলাকাকে কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত করেছে পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ প্রশাসন। মাইকে ঘোষণার মাধ্যমে এলাকার বাসিন্দাদের সে ব্যাপারে সচেতন করা হচ্ছে।

মাইকে বলা হচ্ছে, বাসিন্দারা কেউ এলাকার বাইরে যাবেন না। বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হওয়ার কোনও প্রয়োজন নেই। ওষুধ বা নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের প্রয়োজন পড়লে পুলিশের হেল্পলাইন নম্বরে ফোন করতে হবে। পুলিশ কর্মীরাই ওষুধ বা সেইসব সামগ্রী বাইরে থেকে কিনে এনে দেবেন। এলাকার বড় রাস্তা, গলি রাস্তায় ঢুকে  হ্যান্ড মাইকে সেই প্রচার চালাচ্ছে পুলিশ। পুলিশের গাড়িতে হ্যান্ড মাইক নিয়েও সেই প্রচার চালানো হচ্ছে।

জেলা পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, সুভাষ পল্লি এলাকায় করোনা আক্রান্তের হদিস মেলায় ওই এলাকাকে কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। ওই এলাকায় ঢোকার সব রাস্তা বাঁশের ব্যারিকেড দিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। একুশ দিন ওই এলাকার বাসিন্দারা বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হতে পারবেন না। এলাকাতে বাইরের কাউকে ঢুকতেও দেওয়া হবে না। তা নিশ্চিত করতে এলাকায় পুলিশ পিকেট বসানো হয়েছে।

সাধারণত কন্টেইনমেন্ট জোন পাঁচ কিলোমিটার পরিধি জুড়ে হওয়ার কথা। তারপরও থাকার কথা বাফার জোন। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, তা বাস্তবায়িত করতে গেলে শহর পুরোপুরি অচল হয়ে যাবে। সে কারণেই কন্টেইনমেন্ট জোনের এলাকা কিছুটা কমানো হয়েছে। সুভাষপল্লি-সহ দু-নম্বর ওয়ার্ডের বেশিরভাগ এলাকাই কন্টেইনমেন্ট জোনের আওতায়। ফলে সেখানে সমস্ত দোকানপাট বন্ধ থাকছে।  জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানিয়েছেন, সুভাষপল্লি এলাকায় প্রায় ৪০০ বাড়ি কন্টেইনমেন্ট জোনের মধ্যে পড়ছে। ওই এলাকায় সমস্ত দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। তার আশপাশের এলাকার দোকানপাট খোলার ব্যাপারেও বিধি-নিষেধ আরোপ থাকছে।

Saradindu Ghosh

First published: May 6, 2020, 10:09 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर