করোনা আতঙ্কের জেরে জাপানে আটকে থাকা ১২২জন ভারতীয়কে ফেরানো হল দেশে

করোনা আতঙ্কের জেরে জাপানে আটকে থাকা ১২২জন ভারতীয়কে ফেরানো হল দেশে

করোনা আতঙ্কের জেরে জাপানের ইউকোহামা বন্দরে আটকে থাকা গোল্ডেন প্রিন্সেস জাহাজের ১২২ জন ভারতীয় কর্মীকে বৃহস্পতিবার ভোরে দেশে ফেরানো হয়েছে।

  • Share this:

#উত্তর দিনাজপুর:  করোনা আতঙ্কের জেরে জাপানের ইউকোহামা বন্দরে আটকে থাকা গোল্ডেন প্রিন্সেস জাহাজের ১২২ জন ভারতীয় কর্মীকে বৃহস্পতিবার ভোরে দেশে ফেরানো হয়েছে। ওই জাহাজের কর্মী উত্তর দিনাজপুর জেলার চাকুলিয়া থানার হাতিপাও গ্রামের বাসিন্দা বিনয় কুমার সরকার এদিন দিল্লির সামরিক ক্যাম্প থেকে হোয়াটস অ্যাপের মাধ্যমে এই কথা জানিয়েছেন।তিনি ও তার পরিবারের পক্ষ থেকে এই ব্যাপারে কেন্দ্রীয় সরকারকে কৃতজ্ঞতা জানানো হয়েছে।

বিনয় কুমার সরকার জানিয়েছেন, " তাদের ফেরানোর ব্যাপারে ভারত সরকার বেশ কিছুদিন ধরেই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিল। গত সপ্তাহে তারা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে কি না, তা জানার জন্য ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়। সেই পরীক্ষায় জানা যায়, তাদের রেজাল্ট নেগেটিভ এসেছে।এরপরেই তাদের দেশে ফেরানোর ব্যাপারে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরপর ভারত সরকারের পক্ষ থেকে তাদের দেশে ফেরানোর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। জাপানের স্থানীয় সময় দুপুর ১ টা নাগাদ ওই ১২২ জন ভারতীয় জাহাজকর্মীকে নিয়ে ইউকোহামা বন্দর থেকে ৬ টি ভলভো বাস রওনা দেয় টোকিওর ইনাদা বিমান বন্দরের উদ্দেশ্যে। জাপানের স্থানীয় সময় সন্ধ্যে সোয়া ৭ টা নাগাদ তাদের এয়ার ইন্ডিয়ার বিশেষ বিমানে তাদের দিল্লীতে পাঠানো হয়।বৃহস্পতিবার ভারতীয় স্থানীয় সময় ভোর ৫ টা নাগাদ তারা দিল্লি পৌছায়।ভারত সরকারের পক্ষ থেকে তাদের দিল্লির মানেসার এলাকায় সামরিক ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হয়।বিনয় সরকার জানিয়েছেন, দীর্ঘ আতঙ্কের পর এদিন দেশের মাটিতে পা রেখে আলাদা আনন্দ হচ্ছে।ভারত সরকারের প্রতি তারা চরম কৃতজ্ঞ।বিদেশে আটকে পরা সাধারণ মানুষের জন্য ভারত সরকার যেভাবে তাদের দেশে ফেরানোর ব্যাপারে উদ্যোগ নিয়েছে, তা ভাষায় প্রকাশ করার নয়।ভারত সরকারের জন্যেই এতজন মানুষ তাদের পরিবারের কাছে ফিরে যাওয়ার সুযোগ পাচ্ছে।বিনয় ভারতে ফিরে আসায় স্বস্তি তার পরিবারের।বিনয়ের স্ত্রী মৌসুমী দেবী জানিয়েছেন,দীর্ঘ আতঙ্কের পর কিছুটা স্বস্তি হলেও স্বামী বাড়িতে ফিরলে আরো ভাল লাগবে।

UTTAM PAUL 

First published: February 28, 2020, 11:14 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर