#Corona Update। নবান্নে করোনা বৈঠকে ডার্বি উত্তাপ, ৩১ মার্চ পর্যন্ত রাজ্যের সব খেলা স্থগিত

#Corona Update। নবান্নে করোনা বৈঠকে ডার্বি উত্তাপ, ৩১ মার্চ পর্যন্ত রাজ্যের সব খেলা স্থগিত
নবান্ন সভাঘরে মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠক।

ময়দানের করোনা আতঙ্ক কাটাতে রাজ্যের সব ক্রীড়া সংস্থার প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন মুখ্যমন্ত্রী এবং ক্রীড়া মন্ত্রী।

  • Share this:

#কলকাতা: কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশ মেনে করোনা আতঙ্কের সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত রাজ্যের সব ধরনের খেলার অনুষ্ঠান স্থগিত। ময়দানের করোনা ভবিষ্যৎ নির্ণয় করতে শুক্রবার নবান্নে বৈঠকে বসেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন করোনা কাঁপুনির সঙ্গে ডার্বি উত্তাপ মিলে সরগরম হয়ে থাকল নবান্ন সভাগরের বৈঠক।

ময়দানের করোনা আতঙ্ক কাটাতে রাজ্যের সব ক্রীড়া সংস্থার প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন মুখ্যমন্ত্রী এবং ক্রীড়া মন্ত্রী। উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব, মুখ্যসচিব, ক্রীড়াসচিব,  ডিজি পুলিশ, এবং এডিজি আইনশৃঙ্খলা।  সভার শুরুতেই ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত সব ধরনের খেলা বন্ধ করার প্রস্তাব দেন মুখ্যমন্ত্রী। ফুটবল এবং ক্রিকেট বাদ দিয়ে বাকি সব ধরনের খেলার প্রতিনিধিরা মুখ্যমন্ত্রীর প্রস্তাবের সরাসরি কোনও বিরোধিতা করেননি।

আলোচনার কেন্দ্রে চলে আসে ১৫ মার্চের ডার্বি এবং ১৮ মার্চের ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা একদিনের ক্রিকেট ম্যাচ। ইস্টবেঙ্গলের তরফে দেবব্রত সরকার মুখ্যমন্ত্রীকে জানান, ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত আই লিগের ম্যাচ  পিছিয়ে গেলে তাদের কোনও আপত্তি নেই। ইস্টবেঙ্গলের এমন মনোভাবের তীব্র প্রতিবাদ জানান মোহনবাগানের সৃঞ্জয় বসু। মোহনবাগান ইতিমধ্যেই আই লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়ে গিয়েছে। দর্শকশূন্য ইডেন গার্ডেন্সে ক্রিকেট ম্যাচ হতে পারলে ফুটবল ম্যাচ নয় কেন? এমন প্রশ্ন তোলেন সৃঞ্জয়। মোহন-ইস্টের মাঠের লড়াইয়ের মেজাজ উত্তাপ বাড়াতে থাকে বৈঠকের। এমন সময় হস্তক্ষেপ করেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী দুই বড় ক্লাবের উদ্দেশে বলেন,  'আমি জানি আই লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়ে গিয়েছে মোহনবাগান। তা বলে মাঠের লড়াই এখানে কেন? করোনা পরিস্থিতির জন্য ম্যাচ পিছোনোর আবেদন করা হচ্ছে। আমি চাইনা কারোর উপর সিদ্ধান্ত জোর করে চাপিয়ে দিতে। তাই বৈঠকের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নিতে চেয়েছি।'

সৃঞ্জয় পাল্টা বলেন, দর্শকশূন্য মাঠে খেলা হলেও টেলিভিশনে খেলা দেখতে পারবেন দর্শকরা। সৃঞ্জয়ের এমন প্রস্তাব শুনে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, 'দর্শক শূন্য মাঠে কোন কোন দল খেলতে চায় হাত তুলুক।  সটান হাত উপরে তুলে দেয় মোহনবাগান এবং মহামেডান।'  এআইএফএফ-এর সুব্রত দত্ত বৈঠক চলাকালীন  ফোনে ধরার চেষ্টা করেন ফেডারেশন সভাপতি প্রফুল্ল প্যাটেলকে। এমন সময় সৃঞ্জয়ের মোবাইলে একটি টেক্সট মেসেজ আসে। যা পড়ে বৈঠকে তিনি জানান, ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকার বাকি দু'টি একদিনের ম্যাচই বাতিল করেছে বিসিসিআই। ১৫ এবং ২২ মার্চ দু'টি আই লিগের ম্যাচ রয়েছে কলকাতায়। বৈঠক শেষে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দেন, ৩১ মার্চ পর্যন্ত রাজ্যের সব ধরনের খেলার অনুষ্ঠান বন্ধ থাকবে। করোনা উত্তর পরিস্থিতি পর্যালোচনার জন্য ৩০ মার্চ নবান্ন সভাঘরে হবে রিভিউ মিটিং।

ARNAB HAZRA

First published: March 13, 2020, 10:01 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर