corona virus btn
corona virus btn
Loading

কলেজের ফাইনাল পরীক্ষা নিয়ে অনিশ্চয়তা কাটাতে ১৪ অগাস্ট পর্যন্ত UGC-কে সময় সুপ্রিম কোর্টের

কলেজের ফাইনাল পরীক্ষা নিয়ে অনিশ্চয়তা কাটাতে ১৪ অগাস্ট পর্যন্ত UGC-কে সময় সুপ্রিম কোর্টের

মামলার শুনানি চলাকালীন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের তরফ থেকে সলিসিটর জেনারেল বলেন, ‘পরীক্ষা যবেই হোক না কেন পরীক্ষার্থীদের প্রস্তুতি চালিয়ে যাওয়া উচিত ৷ কারণ নিয়ম বলছে চুড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা না হলে পড়ুয়ারা তাদের ডিগ্রিও পাবে না ৷’

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: করোনা আবহে কলেজের ফাইনাল বর্ষের পড়ুয়াদের পরীক্ষার ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত ৷ ১৪ অগাস্টের মধ্যে ইউজিসিকে এনিয়ে সুনিশ্চিত জবাব দিতে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের ৷ আদালতে কেন্দ্র স্পষ্ট জানিয়েছে, ইউজিসি-র নিয়ম এভাবে বদলাতে পারে না কোনও রাজ্য। পরীক্ষা বাতিল পড়ুয়াদের স্বার্থ সুরক্ষিত করে না ৷ আগামী শুক্রবার ফের এই সংক্রান্ত শুনানি।

গত ৬ জুলাই ইউজিসি নির্দেশিকা দিয়ে জানিয়েছে, ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজগুলিকে টার্মিনাল সেমিস্টারের পরীক্ষা নিতে হবে । এরপরই এই সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধিতা করে এই সিদ্ধান্তকে অস্বীকার করে অধিকাংশ রাজ্য ৷ ইতিমধ্যেই পশ্চিমবঙ্গ, মহারাষ্ট্র, দিল্লির মতো রাজ্য এই সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে ৷ রাজ্য সরকারগুলি ছাড়াও ইউজিসি নির্দেশিকার বিরোধিতা করে ৩১ জন পড়ুয়া সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করে ৷ সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ১৪ অগাস্টের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের কাছে জবাব চেয়েছে ৷

দেশে বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমণ ৷ এমন পরিস্থিতিতে এর আগে একাধিক বোর্ডের পরীক্ষা বাতিল হয়ে গিয়েছে ৷ বর্তমান অবস্থায় কিভাবে ও কবে নেওয়া হবে কলেজের চুড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা তা নিয়ে তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা ৷ সমস্যায় পড়েছেন ফাইনাল সেমেস্টারের ছাত্রছাত্রীরা ৷ তাদের অধিকাংশের দাবি এমতাবস্থায় বাতিল করা হোক পরীক্ষা ৷ এদিন যদিও মামলার শুনানি চলাকালীন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের তরফ থেকে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা আদালতে বলেন, ‘পরীক্ষা যবেই হোক না কেন পরীক্ষার্থীদের প্রস্তুতি চালিয়ে যাওয়া উচিত ৷ কারণ নিয়ম বলছে চুড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা না হলে পড়ুয়ারা তাদের ডিগ্রিও পাবে না ৷’

জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহেই ইউজিসি-র তরফে গাইডলাইন জারি করে চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষা নেওয়া অবশ্যই হবে বলে জানানো হয়েছিল। অনলাইন-অফলাইন এবং অনলাইন ও অফলাইন-- এই তিনটি মাধ্যমের মধ্যে যে কোনও একটি মাধ্যমের সাহায্যে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষা নিতে পারে। ইউজিসি-র সিদ্ধান্ত মানতে নারাজ অধিকাংশ পড়ুয়া ও তাদের অভিভাবকেরা ৷ তাদের মতে এতে পড়ুয়াদের স্বাস্থ্য সুরক্ষাকে কোনও গুরুত্বই দিচ্ছে না ইউজিসি ৷ তাই আদালতের দ্বারস্থ বিক্ষুব্ধ পড়ুয়ারা ৷

ইউজিসি সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকারও ৷ ইউজিসি-র জারি করা এই গাইডলাইনে পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়ে ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি দেওয়ার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠকেও আবারও সেই নির্দেশিকা পুনর্বিবেচনার আর্জি রাখেন তিনি।

Published by: Elina Datta
First published: August 10, 2020, 4:04 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर