corona virus btn
corona virus btn
Loading

'ভয়াবহ পরস্থিতি', করোনা চিকিৎসার অব্যবস্থা নিয়ে দিল্লি সরকারকে ভর্ৎসনা সুপ্রিম কোর্টের

'ভয়াবহ পরস্থিতি', করোনা চিকিৎসার অব্যবস্থা নিয়ে দিল্লি সরকারকে ভর্ৎসনা সুপ্রিম কোর্টের
প্রতীকী চিত্র৷

মৃতদেহগুলি সঠিকভাবে না সরানোর অভিযোগ এবং নমুনা পরীক্ষা বৃদ্ধি নিয়ে দিল্লি সরকারকে একটি নোটিসও পাঠিয়েছে শীর্ষ আদালত৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: দিল্লিতে করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার অব্যবস্থা নিয়ে কেজরিওয়াল সরকারকে কড়া ভর্ৎসনা করল সুপ্রিম কোর্ট৷ দিল্লির সরকারি হাসপাতালগুলিতে করোনা চিকিৎসার ব্যবস্থা ভয়াবহ আখ্যা দিয়ে রাজ্য সরকারের থেকে ব্যাখ্যাও তলব করেছে শীর্ষ আদালত৷

একই সঙ্গে করোনায় মৃতদের প্রতিও দিল্লিতে যে আচরণ করা হচ্ছে, তারও কড়া সমালোচনা করে অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক পরিস্থিতি বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সুপ্রিম কোর্ট৷ বিচারপতি অশোষ ভূষণের নেতৃত্বাধীন একটি ডিভিশন বেঞ্চ স্বতঃপ্রণোদিত মামলায় নিজেদের এই পর্যবেক্ষণ জানিয়েছে৷

এ দিন মামলার শুনানি চলাকালীন দিল্লির হাসপাতালগুলিতে করোনা রোগীদের দুরবস্থা নিয়ে সংবাদমাধ্যমে বিভিন্ন সময়ে যে সমস্ত রিপোর্ট বেরিয়েছে, সেগুলিরও উল্লেখ করেন বিচারপতিরা৷ একাধিক রিপোর্টে দেখা গিয়েছে, হাসপাতালের মধ্যেই করোনা আক্রান্ত জীবিত এবং মৃত রোগীরা এক জায়গাতেই পড়ে রয়েছেন৷ অথচ তাঁদের দেখভালের জন্য কেউ নেই৷

সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা স্বীকার করে নেন, মৃতের প্রতি সম্মান না দেখানো ভারতীয় দণ্ডবিধি অনুযায়ী একটি অপরাধ হিসেবেই গণ্য করা হয়৷ আদালত তখন পাল্টা প্রশ্ন করে, 'এসব জানার পরেও আপনারা কী ব্যবস্থা নিয়েছেন?'

ক্ষুব্ধ বিচারপতিরা আরও বলেন, 'রোগীরা যন্ত্রণায় ছটফট করলেও তাঁদর দেখার কেউ নেই৷ এলএনজেপি হাসপাতালের একটি ভিডিও-তে দেখা গিয়েছে, কতটা খারাপভাবে মৃতদেহ সরানো হচ্ছে৷ মৃতদের প্রতিও ন্যূনতম সম্মান দেখানো হচ্ছে না৷'

বিচারপতিরা আরও অভিযোগ করেন, বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে মৃতদের পরিবারকেও খবর দেওয়া হচ্ছে না৷ পরিবার জানতে পারার আগেই মৃতদেহের সৎকার হয়ে যাচ্ছে৷

নির্দেশ দিতে গিয়ে আদালত বলে, 'পরিস্থিতি অত্যন্ত খারাপ৷ কেন্দ্রীয় সরকারের ঠিক করে দেওয়া গাইডলাইনও মানা হচ্ছে না৷ হাসপাতালগুলি মৃতদেহগুলি নিয়ে ন্যূনতম যত্নবান হচ্ছে না৷'

পরিস্থিতিকে ভয়াবহ বলে মন্তব্য করে বিচারপতিরা অভিযোগ করেন, প্রায় ২৫০০ বেড খালি থাকলেও অনেক আক্রান্তই সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য যেতে চাইছেন না৷ হাসপাতালগুলিতে রোগীদের দুরবস্থা থেকে শীর্ষ আদালত ব্যথিত বলেও মন্তব্য করেন বিচারপতিরা৷ একই সঙ্গে আদালত অভিযোগ করে, করোনা সংক্রমণ দ্রুত বাড়তে থাকলেও দিল্লিতে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা কমছে৷ এর কারণ কী তা নিয়েও প্রশ্ন করেন ক্ষুব্ধ বিচারপতিরা৷

আদালত জানতে চায়, 'মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ুর মতো রাজ্যে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও দিল্লিতে তা কমছে কেন? আপনারা কি কৃত্রিম পরিসংখ্যান দেখাতে চাইছেন? পরীক্ষা না করাটা সমস্যার সমাধান নয়৷ নমুনা পরীক্ষা বাড়ানো প্রতিটি রাজ্যের দায়িত্ব৷' দিল্লি সরকারকে নমুনা পরীক্ষা বাড়ানোর নির্দেশ দিয়ে আদালত বলে, কোভিড পরীক্ষা করাতে ইচ্ছুক প্রত্যেকেরই পরীক্ষা যাতে হয়, তা নিশ্চিত করতে হবে৷

পাশাপাশি রোগীদের চিকিৎসা, মৃতদেহগুলি সঠিকভাবে না সরানোর অভিযোগ এবং নমুনা পরীক্ষা বৃদ্ধি নিয়ে দিল্লি সরকারকে একটি নোটিসও পাঠিয়েছে শীর্ষ আদালত৷

একই সঙ্গে মহারাষ্ট্র, পশ্চিমবঙ্গ এবং তামিলনাড়ুতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় রোগীদের চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়ার ব্যবস্থা, মোট রোগীর সংখ্যা এবং কত চিকিৎসক ও বেড রয়েছে, তা জানতে চেয়ে এই তিনটি রাজ্যের মুখ্যসচিবদেরও নোটিস পাঠিয়েছে শীর্ষ আদালত৷

 
Published by: Debamoy Ghosh
First published: June 12, 2020, 5:16 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर