Covid-19 2nd Wave : সুপ্রিম কোর্টে যোগীর স্বস্তি : উত্তরপ্রদেশের ৫ শহরে হচ্ছে না লকডাউন

Covid-19 2nd Wave : সুপ্রিম কোর্টে যোগীর স্বস্তি : উত্তরপ্রদেশের ৫ শহরে হচ্ছে না লকডাউন

সুপ্রিম কোর্ট

দ্রুত হারে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় এলাহাবাদ হাইকোর্ট উত্তরপ্রদেশের পাঁচ শহর- লখনউ, প্রয়াগরাজ, বারাণসী, কানপুর ও গোরক্ষপুরে লকডাউন জারি করার কথা বলেছিল ৷

  • Share this:

    #উত্তরপ্রদেশ : সুপ্রিম কোর্টে স্বস্তি পেল যোগী সরকার৷ আপাতত উত্তরপ্রদেশের পাঁচ শহরে লকডাউন হচ্ছে না ৷ কোভিড সাংঘাতিক বেড়ে যাওয়ায় সোমবারই উত্তরপ্রদেশের পাঁচ শহরে লকডাউন ঘোষণা করার নির্দেশ দিয়েছিল এলাহাবাদ হাইকোর্ট ৷ এলাহাবাদ হাইকোর্টের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানিয়েছিল যোগী আদিত্যনাথের সরকার৷ তার শুনানিতে এলাহাবাদ হাইকোর্টের নির্দেশে এখন স্থগিতাদেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত ৷

    দ্রুত হারে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় এলাহাবাদ হাইকোর্ট উত্তরপ্রদেশের পাঁচ শহর- লখনউ, প্রয়াগরাজ, বারাণসী, কানপুর ও গোরক্ষপুরে লকডাউন জারি করার কথা বলেছিল ৷ মঙ্গলবার থেকে ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণা করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল ৷ তবে সেই নির্দেশ মানতে রাজি নয় বলে জানিয়েছিল উত্তরপ্রদেশ সরকার৷ যোগী সরকারের বক্তব্য ছিল, "আমাদের রাজ্যে বিশেষত লখনউ, প্রয়াগরাজ, বারাণসী, কানপুর ও গোরক্ষপুরে আমাদের স্বাস্থ্য পরিকাঠামো অতিমারি মোকাবিলায় প্রস্তুত রয়েছে ৷ যাবতীয় পদক্ষেপ যথাযথভাবে নেওয়া হয়েছে৷ লকডাউনের এখনিই প্রয়োজন নেই।" এই মর্মেই রাজ্যে লকডাউন জারি করবে না বলে জানিয়ে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয় যোগী সরকার৷

    প্রসঙ্গত, সোমবার উত্তরপ্রদেশে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হন ৩০,০০০ মানুষ ৷ কোভিড রুখতে ধারাবাহিকভাবে নানা পদক্ষেপ করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত ৷ সব ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও কর্মসুচি বন্ধ করা, শপিং মল বন্ধ করার মতো নানা নির্দেশ দেওয়া হয়৷ বন্ধ করতে বলা হয় সরকারি বেসরকারি সব অফিসও ৷ তবে স্বাস্থ্য পরিষেবা, শিল্প ও বিজ্ঞান ক্ষেত্র এবং নিত্য প্রয়োজনীয় পরিষেবা বাদ রাখতে বলা হয়েছিল ৷

    উল্লেখ্য, গত বেশ কয়েকদিন ধরেই দেশে করোনা আক্রান্তের গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী। চলতি বছর ৫ এপ্রিল প্রথমবার ভারতে দৈনিক সংক্রমণ এক লক্ষের গণ্ডি পেরিয়েছিল। আর সপ্তাহখানেকের মধ্যেই তা ২ লক্ষ টপকে যায়। সোমবার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছিল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষ ৭৩ হাজারের থেকেও বেশি। কিন্তু মঙ্গলবার সেই তুলনায় অনেকটা কমল সংক্রমণ। সাম্প্রতিক অতীত এই প্রথম দৈনিক গ্রাফ নিম্নমুখী। তবে লাফিয়ে বাড়ল মৃতের সংখ্যা।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published:

    লেটেস্ট খবর