আছড়ে পড়েছে কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ, সচেতনতা বাড়াতে বালি দিয়ে কোভিড বার্তা গড়লেন সুদর্শন পট্টনায়ক!

আছড়ে পড়েছে কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ, সচেতনতা বাড়াতে বালি দিয়ে কোভিড বার্তা গড়লেন সুদর্শন পট্টনায়ক!

The renowned artist shared the picture of his sand art on Twitter. (Credit: Sudarsan Pattnaik/Twitter)

নিজের Twitter অ্যাকাউন্টে স্টে সেফ, স্টে অ্যালার্ট হ্যাশট্যাগ দিয়ে তাঁর নিজের শিল্পকীর্তি শেয়ার করেছেন তিনি।

  • Share this:

#পুরী: বালি শিল্পী বা স্যান্ড আর্টিস্ট হিসাবে সুদর্শন পট্টনায়কের (Sudarsan Pattnaik) নাম বিশ্বজোড়া। কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ চিন্তায় ফেলেছে শিল্পীকে। সেই নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে উদ্যোগী হলেন শিল্পী। বালি দিয়ে তিন রকমের ডিজাইন তৈরি করে জনসমাজে সচেতনতা প্রসারের চেষ্টা করছেন সুদর্শন। প্রথম ডিজাইনে দেখা যাচ্ছে এক ব্যক্তির মুখে মাস্ক। বোঝাই যাচ্ছে এরকম পরিস্থিতিতে মাস্ক পরার প্রয়োজনীয়তা ঠিক কতটা সেটাই বোঝাতে চেয়েছেন তিনি। দ্বিতীয় ডিজাইনে দেখা যাচ্ছে দু'জন ব্যক্তি সামনাসামনি দাঁড়িয়ে কথা বলছেন, কিন্তু তাঁদের মধ্যে রয়েছে দূরত্ব। এক্ষেত্রেও পদ্মশ্রী প্রাপ্ত শিল্পীর ইঙ্গিত স্পষ্ট। মাস্ক পরার সঙ্গে সঙ্গে যে সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনে চলারও দরকার আছে সেটাই বলতে চেয়েছেন তিনি। আর তৃতীয় ডিজাইনে মারণ ভাইরাস করোনাকেই অঙ্কিত করেছেন তিনি। নিজের Twitter অ্যাকাউন্টে স্টে সেফ, স্টে অ্যালার্ট হ্যাশট্যাগ দিয়ে তাঁর নিজের শিল্পকীর্তি শেয়ার করেছেন তিনি।

প্রথম অভিঘাতের চেয়েও মারাত্মক রূপে দেখা দিয়েছে কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ। প্রতি দিন ভারতে প্রায় সাড়ে তিন লাখেরও বেশি কোভিড পজিটিভ রোগীর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে। পরিস্থিতি এতটাই খারাপের দিকে এগিয়েছে যে প্রতি দিন লক্ষাধিক রোগী সামলাতে নাজেহাল হয়ে যাচ্ছেন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা। বেশিরভাগ রোগীই অভিযোগ জানাচ্ছেন যে তাঁরা হাসপাতালে শয্যা পাচ্ছেন না। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও নিজেদের অসহায়তা জানিয়ে বলছে যে যে হারে প্রতি দিন রোগীর সংখ্যা বাড়ছে তাতে তাঁদের পক্ষেও এত শয্যার জোগান দেওয়া কার্যত অসম্ভব হয়ে পড়েছে। এর উপরে যোগ হয়েছে অক্সিজেনের অপ্রতুলতা। অনেক রোগীই মারা যাচ্ছেন অক্সিজেনের অভাবে। এত কিছুর পরেও এর চেয়েও খারাপ খবর হল, এই দ্বিতীয় ঢেউয়ের সর্বচ্চ পর্যায় বা পিক এখনও আসেনি। চিকিৎসক ও বিজ্ঞানীদের অনুমান এই পিক দেখা যাবে মে মাসের মাঝামাঝি, তখন অবস্থা আরও ভয়ানক হবে বলে তাঁদের দাবি।

সুদর্শনের এই কাজ অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ১৫০০ এরও বেশি লাইক পেয়ে ১৯২ বার রিট্যুইট হয়েছে এই পোস্ট। ২০১৪ সালে নিজের শিল্পকর্মের জন্য পদ্মশ্রী দ্বারা ভূষিত হন শিল্পী। ২০১৭ সালে পুরীর সমুদ্র সৈকতে বিশ্বের সব চেয়ে বড় বালির দুর্গ তৈরি করে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডও নিজের নাম যুক্ত করেছেন তিনি।

Keywords:

Published by:Debalina Datta
First published: