করোনা ভাইরাসের জন্য ইন্দো-নেপাল সীমান্তে কড়া সতর্কতা ! জার্মানির পর্যটকদের নেপাল ভ্রমণে মানা

করোনা ভাইরাসের জন্য ইন্দো-নেপাল সীমান্তে কড়া সতর্কতা ! জার্মানির পর্যটকদের নেপাল ভ্রমণে মানা

কড়া সতর্কতা ভারত-নেপাল সীমান্তেও।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: দ্রুত দেশে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। গতকাল এক আক্রান্তের মৃত্যুও হয়। দেশজুড়েই জারি কড়া সতর্কতা। বহু বিমান বাতিল করা হয়েছে। অধিকাংশ দেশেই বিদেশীদের ভ্রমণে "না" জারি করা হয়েছে। কড়া সতর্কতা ভারত-নেপাল সীমান্তেও। দার্জিলিংয়ের তিন সীমান্ত পানিট্যাঙ্কি, পশুপতি এবং সীমানাতেও কড়া সতর্কতা অবলম্বন করেছে জেলা স্বাস্থ্য দফতর। জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারীক প্রলয় আচার্য্য স্বয়ং পুরো বিষয়টির নজরদারি চালাচ্ছেন। পানিট্যাঙ্কি সীমান্তে দিনভর চলছে বিদেশী পর্যটকদের হেলথ স্ক্রিনিং। পাশাপাশি ট্র‍্যাভেল হিস্ট্রির ওপর জোর দিচ্ছে স্বাস্থ্য দফতর।

গত ১৫-২০ দিন পর্যটকেরা কোথায় ছিলেন ? কোন দেশ থেকে এসছেন ? শারিরীক অবস্থা কেমন ছিল? সবই খতিয়ে দেখা হচ্ছে। স্ক্রিণিং রিপোর্টে সন্দেহ হলে সরাসরি উত্তরবঙ্গ মেডিকেলের আইশোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তির পরামর্শ। যেভাবে করোনা ছড়াচ্ছে সেদিকে নজর রেখেই শিলিগুড়িতে কোয়ারান্টাইন চালুর উদ্যোগ নিচ্ছে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর। আজ সীমান্ত পরিদর্শনের পর একথা জানান মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারীক। এদিন এক জার্মান পর্যটককে পানিট্যাঙ্কি সীমান্তে আটকে দেওয়া হয়। উত্তর-পূর্ব ভারত সাইকেলে চেপে ঘুরে আজই নেপাল যাচ্ছিলেন। কিন্তু তাঁকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়। আপাতত শিলিগুড়ি, দার্জিলিং বেড়িয়ে দেশে ফিরে যাবেন বলে জানান ফিলিপ্স নামে ওই পর্যটক। এদিন পানিট্যাঙ্কি সীমান্তে স্বাস্থ্য পরীক্ষা চলে ২০-২৫ জনের থাইল্যাণ্ডের পর্যটকের। বেঙ্গালুরু, কলকাতা ঘুরে নেপাল যাচ্ছিলেন। গতকালই নেপাল থেকে এই ইউক্রেন দম্পতি শিলিগুড়িতে পৌঁছন। নেপালে তাঁদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করলে মাত্রাতিরিক্ত জ্বর দেখা দেয় বলে দাবী। যদিও ভারতীয় সীমান্তে তাপমাত্রা ছিল ৯৭ দশমিক ৭ ডিগ্রি। আজ শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালেও চিকিৎসা চলে। দুপুরের বিমানে বাগডোগরা থেকে ফিরে যান। অন্যদিকে নেপাল সীমান্তের কাঁকড়ভিটাতেও স্বাস্থ্য ক্যাম্প খোলা হয়েছে। চীন, জাপান, উত্তর ও দক্ষিন কোরিয়া, হংকং, তাইওয়ান, ইরান, ইটালির পর্যটকদের নেপালে প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এমনকী দিল্লির বাসিন্দাদেরও "না" করা হয়েছে। দার্জিলিংয়ের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারীক প্রলয় আচার্য্য জানান, সর্বত্রই স্বাস্থ্য ক্যাম্পে স্ক্রিনিং করা হচ্ছে। দার্জিলিংয়ে ঢোকার ছয় জায়গায় চলছে স্ক্রিণিং। যাবতীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। স্ক্রিনিং জারি থাকবে।

PARTHA PRATIM SARKAR 

First published: March 13, 2020, 11:53 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर