করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় দার্জিলিং জেলা জুড়ে কড়া সতর্কতা জারি !

করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় দার্জিলিং জেলা জুড়ে কড়া সতর্কতা জারি !
photo source collected

ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তেও হেলথ স্ক্রিনিং। তিন ভাষায় লিফলেট বিলির সিদ্ধান্ত ! জেলা হাসপাতালগুলোতেও চালু হচ্ছে আইসোলেশন ওয়ার্ড !

  • Share this:

#দার্জিলিং: করোনার মোকাবিলায় দার্জিলিং জেলা জুড়ে কড়া সতর্কতা জারি। উত্তর-পূর্ব ভারতের করিডর শিলিগুড়ি। ভিন দেশী পর্যটকেরা শিলিগুড়িকে মধ্যমণি করেই নেপাল, ভুটান, সিকিম সহ অন্যান্য অঞ্চলে বেড়াতে যান। ইতিমধ্যেই সিকিম বিদেশী পর্যটকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। ভুটানও আজ থেকে ভিন দেশী পর্যটকদের "না" জানিয়ে দিয়েছে। তাই আর কোনোরকম ঝুঁকি নিতে চাইছে না দার্জিলিং জেলা প্রশাসন। করোনার মোকাবিলায় তৈরী জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য দফতর। তবে কোনও আতঙ্ক ছড়াতে নারাজ জেলা প্রশাসন।

ইন্দো-নেপাল সীমান্তে তো হেলথ স্ক্রিনিং চলছেই। এবারে হেলথ স্ক্রিনিং চালু হবে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তেও। ওপার বাংলা থেকে যখন ভারতীয় ভূখণ্ডে পা রাখবেন, সেইসময় পর্যটক বা সাধারন যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে সীমান্তেই। পাহাড়েও বহু আবাসিক স্কুলে বিদেশী পড়ুয়া রয়েছে। তাদের নিয়ে সচেতনতা গড়ে তোলার ডাক দিয়েছে জেলা প্রশাসন। করোনা নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে জোর দেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন স্টেশন, বাস স্ট্যাণ্ডেও। বিমানবন্দরেভাগে থেকেই হেলথ স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা রয়েছে। আজ শিলিগুড়ি সরকারি গেস্ট হাউসে জেলার স্বাস্থ্য দফতরের কর্তাদের সঙ্গে জরুরী বৈঠকে বসেন জেলাশাসক দীপাপ পি প্রিয়া এবং মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারীক প্রলয় আচার্য্য। বৈঠক শেষে জেলাশাসক জানান, রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের নির্দেশ মেনেই কড়া সতর্কতা জারি করা হয়েছে জেলাজুড়ে। ব্লক পর্যায়েও সতর্কতা জারি থাকছে। সর্বত্রই কড়া নজরদারীর ব্যবস্থা করা হয়েছে। লিফলেটও বিলি করা হবে। পাহাড়ে নেপালি ভাষায় এবং সমতলে বাংলা ও ইংরেজী ভাষায় লিফলেট বিলি করা হবে। জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারীক জানান, এবারে জেলা হাসপাতাল এবং মহকুমা হাসপাতালেও আইসোলেশন ওয়ার্ড চালু করা হবে। ব্লক হাসপাতাল গুলোকেও সতর্ক থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। চিকিৎসক,নার্স এবং অন্যান্য স্বাস্থ্য কর্মীদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র মজুত রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। করোনা প্রতিরোধক মাস্ক আরও প্রয়োজন। সেইমতো স্বাস্থ্য ভবনে মাস্কের জন্য চিঠি লেখা হয়েছে। উত্তরবঙ্গ মেডিকেলে ইতিমধ্যেই প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো রয়েছে। জেলার সদর থেকে মহকুমা ও ব্লক হাসপাতালেও পরিকাঠামো বাড়ানো হবে।

PARTHA PRATIM SARKAR

First published: March 6, 2020, 8:53 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर