• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • পুলিশকে নিয়ে রাস্তায় পুর-প্রশাসক,বেলা বাড়তেই শুনশান বরানগর

পুলিশকে নিয়ে রাস্তায় পুর-প্রশাসক,বেলা বাড়তেই শুনশান বরানগর

পুলিশের সঙ্গে রাস্তায় পুর প্রশাসক অপর্ণা মৌলিক।

পুলিশের সঙ্গে রাস্তায় পুর প্রশাসক অপর্ণা মৌলিক।

বরানগরের সঙ্গে কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু রাখতে বি টি রোড ও গোপাল লাল ঠাকুর রোডে যান চলাচলে ছাড় দেওয়া হয়েছে।

  • Share this:

‌‌কলকাতা: কোভিড আবহে কোন কিছুতেই হাল ফেরান যাচ্ছিল না। এলাকার মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়ান যাচ্ছিল না। শেষে একরকম বাধ্য হয়েই বুধবার থেকে সাময়িক লক-ডাউনের রাস্তায় বরানগর। কলকাতা লাগোয়া বরানগরে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছিল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। কোভিডের বাড় বাড়ন্তে নিয়ন্ত্রণ আনতে বুধবার থেকে এলাকায় কঠোর অনুশাসন চালু করল স্থানীয় পৌরসভা ও পুলিশ প্রশাসন।‌

বুধবার থেকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য বরানগরে দোকান-পাট, বাজার-ঘাট ও যানবাহন চলাচলে সময়ের বেড়ি পড়ান হল। এখন থেকে সকাল ৬টা থেকে বেলা ১১টা অবধি চালু থাকবে জনজীবন। বেলা এগারোটার পর খোলা থাকবে শুধুমাত্র হাসপাতাল, ওষুধ, দুধ সহ অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও সেবা সামগ্রীর পরিষেবা। বুধবার সকাল এগারোটা বাজতেই এলাকা পরিদর্শনে বেরোন বরানগর পুরসভার প্রশাসক অপর্ণা মৌলিক ও জেলা পুলিশের আধিকারিকরা। বি টি রোড ও গোপাল লাল ঠাকুর রোড ছাড়া এলাকার বাকি সব রাস্তায় যানবাহন বন্ধের দিকেও নজরদারি চালান ব্যারাকপুর কমিশনারেটের ডিসি টু আনন্দ রায় ও বরানগর থানার অফিসার ইন-চার্জ কুন্তল মন্ডল। ঘড়ির কাঁটা সকাল এগারোটা ছোঁয়ার  পরেও মাস্ক না পড়েই রাস্তায় উদ্দেশ্যহীন ভাবে ঘোরার কারণে বেশ কয়েক জন এলাকাবাসীকে বাড়ি ফিরিয়ে দিতেও দেখা যায় বরানগর থানার আধিকারিক বিদেশ বন্দোপাধ্যায়কে।

বরানগর পুর-বোর্ডের প্রশাসক অপর্ণা মৌলিক বলেন,"প্রশাসনের আবেদনে প্রথম দিনে এলাকার মানুষের সাড়া সন্তোষজনক। জনসচেতনতা বাড়াতে পুরসভার পক্ষ থেকে বাড়ি বাড়ি প্রচারেও জোর দেওয়া হচ্ছে।" লকডাউনের বাকি দিনগুলোতেও একইরকমভাবে এলাকার মানুষের সহযোগিতা চান অপর্ণা মৌলিক। স্থানীয় পুরসভা ও পুলিশের পক্ষ থেকে জনসচেতনতা বাড়াতে বুধবার মোবাইল মাইকিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়।

বরানগরের সঙ্গে কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু রাখতে বি টি রোড ও গোপাল লাল ঠাকুর রোডে যান চলাচলে ছাড় দেওয়া হয়েছে। পার্শ্ববর্তী ও সংলগ্ন অলিগলি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে গার্ডরেলের ঘেরাটোপে।

Published by:Arka Deb
First published: