corona virus btn
corona virus btn
Loading

দু'মাস পর ঘরে ফিরলেন সিকিমের ১৫২ জন বাসিন্দা, NJP থেকে বিশেষ বাসে ফিরলেন তারা

দু'মাস পর ঘরে ফিরলেন সিকিমের ১৫২ জন বাসিন্দা, NJP থেকে বিশেষ বাসে ফিরলেন তারা

ট্রেন থেকে নামার পরই প্রতিটি যাত্রীর থার্মাল চেকিং করা হয়।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: প্রায় দু'মাস পর ঘরে ফিরলেন সিকিমের বাসিন্দারা। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আটকে পড়েছিলেন ওরা। দুশ্চিন্তায় কাটছিল ওদের পরিবারের। গতকাল চেন্নাই থেকে মণিপুর ছাড়ে একটি শ্রমিক স্পেশাল এসি ট্রেন। সিকিম পশ্চিমবঙ্গের সাহায্য চায় যাতে তাদের রাজ্যের আটকে পড়া বাসিন্দাদের ফিরিয়ে আনা যায়। রাজ্য সবুজ সংকেত দেওয়ায় এনজেপি স্টেশনে আজ, বৃহস্পতিবার দুপুরে দাঁড়ায় ট্রেনটি। এদিন সিকিমের আটকে থাকা ১৫২ জন বাসিন্দা ফেরেন স্পেশাল ট্রেনে। প্ল্যাটফর্মে এদিন ঢুকতে দেওয়া হয়নি সংবাদ মাধ্যমকেও। ট্রেন থেকে নামার পরই প্রতিটি যাত্রীর থার্মাল চেকিং করা হয়।

স্যানিটাইজড করা হয় যাত্রীদের লাগেজ সহ অন্য সামগ্রী। তারপরই এক এক করে যাত্রীদের ছাড়া হয়। সিকিম সরকারও গাড়ির ব্যবস্থা করে। ৪০ সিটের বাসে ১২ থেকে ১৩ জন যাত্রী নিয়ে এনজেপি থেকে সিকিম রওনা দেয় গাড়িগুলো। সিকিমে ঢোকার মুখে প্রত্যেকের হেলথ স্ক্রিনিং করা হবে। তারপর ১৫২ জনকেই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখা হবে।

সিকিমের এক নোডাল অফিসার ভূপেন্দ্র ছেত্রী জানান, প্রত্যেকেরই স্বাস্থ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে স্ক্রিনিং করা হবে। সামাজিক দূরত্ব মেনে যাত্রীদের নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের নির্দেশ মেনেই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। কোথায় ছিলেন সিকিমের বাসিন্দারা? দেশের বিভিন্ন প্রান্তে। কেউ উচ্চ শিক্ষায় গিয়েছিলেন। কেউ আবার সরকারী, বেসরকারী দপ্তরে কর্মরত। আবার কেউ চিকিৎসা করাতে গিয়ে আটকে পড়েছিলেন। অনেকেরই মার্চে চিকিৎসা শেষ হয়ে যায়। লকডাউনের জেরে আটকে পড়েন। সিকিম সরকার উদ্যোগ নেওয়ায় খুশী তারা। এদিন এনজেপি স্টেশনে ছিলেন রাজ্যের করোনা বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সুশান্ত রায়ও। এদিন গুয়াহাটিগামী এসি স্পেশাল ট্রেনেও উত্তরবঙ্গের অন্য জেলার একাধিক আটকে থাকা বাসিন্দারা ফেরেন এনজেপিতে। মালদহের এক পরিবার  গিয়ে আটকে পড়েছিলেন। দু'মাস পর এদিন ঘরে ফিরছেন। অনেকেই নামেন ওই ট্রেন থেকে।

পার্থ প্রতিম সরকার

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: May 14, 2020, 7:44 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर