করোনা রোগী ভর্তির সময়ে ৫০ হাজার টাকার বেশি নেওয়া যাবে না, রাজ্যের নয়া নির্দেশিকা

নয়া অ্যাডভাইজরিতে শুধু রোগী ভর্তির সময় টাকার অঙ্কই নির্দিষ্ট করে দেওয়া নয়, সঙ্গে দেওয়া হয়েছে আরও কিছু নির্দেশ ৷

নয়া অ্যাডভাইজরিতে শুধু রোগী ভর্তির সময় টাকার অঙ্কই নির্দিষ্ট করে দেওয়া নয়, সঙ্গে দেওয়া হয়েছে আরও কিছু নির্দেশ ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: করোনা চিকিৎসার নামে রোগীর পরিবারকে লুটে নিচ্ছে বেসরকারি নার্সিংহোমগুলো ৷ দু’চারদিন ট্রিটমেন্ট হতে না হতেই হাসপাতালে বিল আকাশ ছুঁয়ে ফেলছে ৷ একের পর এক অভিযোগ পেতেই কড়া পদক্ষেপ রাজ্যের ৷ রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশনের তরফে জারি করা হল রোগী ভর্তির নয়া নির্দেশিকা ৷ বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে নয়া অ্যাডভাইজরি জারি করে রাজ্যের তরফে জানানো হয়েছে যে রোগী ভর্তির সময় ৫০ হাজার টাকার বেশি নেওয়া যাবে না ৷

    রাজ্যে বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমণ ৷ তার মধ্যে করোনা পরিস্থিতিতেও বেসরকারি হাসপাতালের হাই চার্জের অভিযোগ ৷ ব্যবস্থা নিতে ফের আরেকটি নির্দেশিকা জারি ৷ নয়া অ্যাডভাইজরিতে শুধু রোগী ভর্তির সময় টাকার অঙ্কই নির্দিষ্ট করে দেওয়া নয়, সঙ্গে দেওয়া হয়েছে আরও কিছু নির্দেশ ৷ যেমন, ভর্তির সময় রোগীর পরিবার টাকা দিতে না পারলেও রোগীকে ভর্তি নিতে হবে এবং অন্তত পক্ষে রোগীকে ১২ ঘণ্টা ট্রিটমেন্ট দিতে হবে ৷ যদি ওই ১২ ঘণ্টার মধ্যে রোগীর পরিবার টাকা না দিতে পারে, তাহলে আরও একঘণ্টা পর রোগীকে ছেড়ে দিতে পারে হাসপাতাল ৷

    নির্দেশিকায় এও বলা হয়েছে, ভর্তির সময় ৫০ হাজার টাকার বেশি চাওয়া যাবে না এবং রোগীর পরিবারকে সম্ভাব্য বিলের একটা আন্দাজ তখনই জানাতে বাধ্য হাসপাতাল ৷ চিকিৎসা শুরুর আগে সম্ভাব্য খরচের ২০ শতাংশই চাইতে পারে হাসপাতাল ৷ এছাড়া প্রতিদিন রোগীর পরিবারকে বিলের পরিমাণ জানাতে হবে ৷ ২ হাজার টাকার বেশি দামি টেস্ট করাতে হলে অবশ্যই পরিবারকে জানিয়ে অনুমতি নিতে হবে ৷ সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ হল নয়া অ্যাডভাইসারিতে যা বলা আছে সেই অনুযায়ী, ব্যাঙ্কের মাধ্যমে বিল পেমেন্ট করতে হবে অনলাইন পেমেন্ট বা চেকের মাধ্যমে ৷ কোন খাতে কী খরচ হচ্ছে তা রোগীর পরিবারকে এসএমএস-এ জানাতে হবে ৷

    Published by:Elina Datta
    First published: