corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনার দ্রুত ও বেশি টেস্ট চাইছে রাজ্য,বিশ্ববিদ্যালয়গুলির থেকে টেস্ট-মেশিন চাইছে স্বাস্থ্য দফতর

করোনার দ্রুত ও বেশি টেস্ট চাইছে রাজ্য,বিশ্ববিদ্যালয়গুলির থেকে টেস্ট-মেশিন চাইছে স্বাস্থ্য দফতর
RT-PCR machine

সাময়িকভাবে টেস্টিং-এর সংখ্যা বাড়ানোর জন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলির কাছ থেকেই সহযোগিতা চাইছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। বিভিন্ন গবেষণা কাজের জন্য কলকাতা, যাদবপুর ও বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় এই মেশিনের ব্যবহার করা হয়।

  • Share this:

#কলকাতা: রাজ্যে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় এবার বিশ্ববিদ্যালয়গুলির থেকে সহযোগিতা চাইছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। মূলত রাজ্যের কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় ও কলকাতার কয়েকটি কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে RT-PCR মেশিন চাইছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। ইতিমধ্যেই সেই প্রক্রিয়াও শুরু করেছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। তবে এই মেশিন গুলি 'ধার' হিসেবে নেবে তারা।

তবে কী এই RT-PCR মেশিন? করোনাভাইরাস টেস্টিং-এর ক্ষেত্রে RT-PCR মেশিন অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। মূলত এই মেশিনের মাধ্যমে লালারসে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি চিহ্নিত করা যায়। বর্তমানে রাজ্যের যে মেডিকেল কলেজ ও ল্যাব গুলিতে করোনাভাইরাসের টেস্টিং-এর অনুমোদন রয়েছে সেই জায়গাগুলোতে এই মেশিনের প্রয়োজনিয়তাও রয়েছে। স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর ইতিমধ্যেই এই মেশিনের সংখ্যা বাড়ানোর জন্য অর্ডার দেওয়া হয়েছে। কিন্তু সাময়িকভাবে টেস্টিং-এর সংখ্যা বাড়ানোর জন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলির কাছ থেকেই সহযোগিতা চাইছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। বিভিন্ন গবেষণা কাজের জন্য কলকাতা, যাদবপুর ও বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় এই মেশিনের ব্যবহার করা হয়।

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় রাজ্যের তৈরি করা টাস্কফোর্সের অন্যতম সদস্য চিকিৎসক ডাঃ অভিজিৎ চৌধুরী জানান " রাজ্য সরকার চাইছে বেশি সংখ্যক এবং খুব কম সময়ের মধ্যে টেস্ট করাতে। তার জন্য এই মেশিনের প্রয়োজনিয়তা রয়েছে। আমি যতদূর জানি তাই রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের তরফে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে অনুরোধ করা হচ্ছে যাতে তারা এই মেশিন গুলি দেন।" ইতিমধ্যেই কলকাতা,যাদবপুর বর্ধমানের মত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে এই মেশিন দেওয়ার জন্য লিখিত ও মৌখিকভাবে বলা হয়েছে। যদিও এই মেশিনের পাশাপাশি আরও বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ জিনিস রয়েছে কিনা সেই বিষয়েও বিশ্ববিদ্যালয়গুলির থেকে জানা হচ্ছে বলেই খবর রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে।

আরও পড়ুন আরও পিছোচ্ছে রাজ্য জয়েন্টের ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ফলাফল,উচ্চমাধ্যমিকের শেষের পর ফলের সম্ভাবনা

সূত্রের খবর ইতিমধ্যেই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে এই চিঠি এসেছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের কাছ থেকে। এ প্রসঙ্গে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাস জানিয়েছেন "আমরা ইতিমধ্যেই চিঠি পেয়েছি। আমাদের তরফে সব রকমের সহযোগিতা করা হবে।" জানা গিয়েছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় তরফে কতগুলি এই RT-PCR মেশিন দেওয়া হবে তা নিয়ে অধ্যাপক ও গবেষক পড়ুয়াদের সঙ্গে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

অন্যদিকে সব মিলিয়ে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে এই রকম মেশিন ১০টি  আছে বলেই বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে খবর। এ প্রসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দেবাশীষ দাস জানিয়েছেন " বিষয়টি মৌখিকভাবে আলোচনা হয়েছে বলে জানা আছে। লিখিত আসলেই আমরা সিদ্ধান্ত নেব।" যদিও বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে এই মেশিন একটি রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। সেই মেশিনটি বর্ধমান মেডিকেল কলেজকে দেওয়া হচ্ছে। তবে এই বিশ্ববিদ্যালয়গুলির পাশাপাশি কলকাতার কয়েকটি গবেষণারত কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকেও এই মেশিন চাওয়া হচ্ছে বলেই সূত্রের খবর।

First published: May 1, 2020, 1:23 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर