শিলিগুড়ি পুরসভার করোনা রিলিফ ফান্ডে অনুদান দেবেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় !

সৌরভ বলেন, ''সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে দেখলাম গৌতম গম্ভীর বলছে যে শাহরুখ ওকে চতুর্থ বর্ষে বলেছিল, 'এটা তোমার দল, তুমি যা ভাল বুঝবে করবে৷' এই কথাটাই আমি শাহরুখকে প্রথম বছরে বলেছিলাম৷ কিন্তু এমনটা আমার ক্ষেত্রে হয়নি৷''

রিলিফ ফান্ডে অনুদান দেবেন বলে টেলিফোনে মেয়রকে জানিয়েছেন প্রাক্তন জাতীয় দলের অধিনায়ক তথা বি সি সি আইয়ের সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: করোনার থাবা বিশ্বজুড়ে। গোটা বিশ্বেই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। দেশেও ছড়াচ্ছে করোনার জাল। বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। রাজ্যে গতকাল নদীয়ার দুই পরিবারের পাঁচ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই কড়া সতর্ক রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরও। এর মোকাবিলায় একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে রাজ্য ও কেন্দ্র। মুখ্যমন্ত্রীর পর ইতিমধ্যেই শিলিগুড়ির মেয়র অশোক ভট্টাচার্য করোনা ভাইরাস রিলিফ ফান্ড খুলেছেন। মেয়র নিজেই ১০ লাখ টাকা অনুদান করেছেন। এগিয়ে আসছেন ডান, বাম, গেরুয়া কাউন্সিলররাও। এবারে এই রিলিফ ফান্ডে অনুদান দেবেন বলে টেলিফোনে মেয়রকে জানিয়েছেন প্রাক্তন জাতীয় দলের অধিনায়ক তথা বি সি সি আইয়ের সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

মেয়রকে সৌরভ জানিয়েছেন, ৫০ হাজার টাকার মাস্ক এবং হ্যাণ্ড গ্লাভস কিনে নিতে। সৌরভের এগিয়ে আসাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন মেয়র। এছাড়া কলকাতার বেলেঘাটায় শিলিগুড়ি পুরসভার অতিথি নিবাস তুলে দেওয়া হল বেলেঘাটা আই ডি কর্তৃপক্ষের হাতে। বেলেঘাটার আই ডির সুপার মেয়রের কাছে অনুরোধ জানান, ভবনটি দেওয়ার জন্য। এক ফোনেই মেয়র "হ্যাঁ" করেছেন। বেলেঘাটা আই ডিতে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা থাকবেন এই অতিথি নিবাসে। মেয়র অশোক ভট্টাচার্য জানান, এই মূহূর্তে করোনার চিকিৎসায় চিকিৎসকেরা ব্যস্ত। কঠিন পরিশ্রমের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন। তাই চিকিৎসকদের বিশ্রামের জন্যে ভবনটি তুলে দেওয়া হয়েছে। এজন্য কোনও চার্জ নেওয়া হবে না। এই মূহূর্তে করোনার মোকাবিলায় ঐক্যবদ্ধভাবে এগোতে হবে। শিলিগুড়ি পুরসভার স্বাস্থ্য ভবন সহ বিভিন্ন ওয়ার্ডে থাকা হেলথ সেন্টারগুলোও করোনার চিকিৎসায় দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন মেয়র। প্রয়োজনে শিলিগুড়ির অতিথি নিবাসও করোনার চিকিৎসায় দেওয়া হবে। এখন মারন করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে জিততেই হবে। পুরসভাকে সাহায্য করতে শহরের একাধিক স্বেচ্চাসেবী সংগঠনও এগিয়ে এসছে। পুরসভার মাধ্যমে শহরের লকডাউনের জেরে না খেয়ে থাকা বাসিন্দাদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে খাবারও। সঙ্গে চলছে সচেতনতাও।

PARTHA PRATIM SARKAR

Published by:Piya Banerjee
First published: