• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • #Coronavirus: বাজার যেতে হবে না, অ্যাপে অর্ডার দিলেই স্থানীয় বাজার থেকে ডেলিভারি,তরুণ প্রয়াসকে কুর্নিশ

#Coronavirus: বাজার যেতে হবে না, অ্যাপে অর্ডার দিলেই স্থানীয় বাজার থেকে ডেলিভারি,তরুণ প্রয়াসকে কুর্নিশ

বাজার থেকে সবজি, ফল কিনে আনলেও সতর্ক হয়ে খেতে হবে। বাইরে থেকে এনে সঙ্গে সঙ্গে সবজি ও ফল খাওয়া উচিত নয়। প্রথমে প্যাকেট সমেত সবজি বা ফল বাইরে ৪ ঘণ্টা রেখে দিতে হবে। গরম জল ও বেকিং সোডা দিয়ে সবজি ও ফল ধুয়ে নিতে হবে। প্যাকেট নষ্ট করতে হবে। সবজি বা ফলে স্যানিটাইজার ব্যবহার করা যাবে না

বাজার থেকে সবজি, ফল কিনে আনলেও সতর্ক হয়ে খেতে হবে। বাইরে থেকে এনে সঙ্গে সঙ্গে সবজি ও ফল খাওয়া উচিত নয়। প্রথমে প্যাকেট সমেত সবজি বা ফল বাইরে ৪ ঘণ্টা রেখে দিতে হবে। গরম জল ও বেকিং সোডা দিয়ে সবজি ও ফল ধুয়ে নিতে হবে। প্যাকেট নষ্ট করতে হবে। সবজি বা ফলে স্যানিটাইজার ব্যবহার করা যাবে না

কুর্নিশ করোনা যুদ্ধের এই যোদ্ধাদের

  • Share this:

    #সিউড়ি: লকডাউনে ভরসা। অ্যাপ ডাউনলোড করে মোবাইলে আঙুলের ছোঁয়াতেই মিলছে সবজি থেকে ফল। কলকাতা ও তার শহরতলিতে নয়। এই ছবি বীরভূমের সিউড়িতে।

    লকডাউন। বাইরে বেরনো মানা। তাই ঘরে বসেই বাজার করার সুযোগ যেন পড়ে পাওয়া ষোল আনা।  এক ছোঁয়াতেই ঘরে বসেই মিলছে ফল-সবজি। বীরভূমের সিউড়ির জন্য মিলছে এই সুবিধা। সৌজন্যে স্থানীয় কয়েকজন যুবক। অ্যাপে অর্ডার দিলেই বাড়িতে পৌঁছে যাচ্ছে ফল ও সবজি।  সুলভমূল্যে সিউড়ি ও সিউড়ি সংলগ্ন গ্রামগুলিতে অর্ডার করার কয়েকঘণ্টার মধ্যেই হচ্ছে ডেলিভারি। ফলে, কমছে সবজি বাজারে ভিড়। হয়েছে বয়স্ক ও অসহায়দের সুরাহা।

    সরকারি নির্দেশ মেনে বাড়িতেই থাকছেন সাধারণ মানুষ। আর সাধারণের জন্য সারাদিন দৌড়ে চলেছেন ডেলিভারি বয়রা।

     লকডাউনেও গমগম করছে বাজার।  সকাল থেকেই শুরু হয় বেচাকেনা। একেবারেই মানা হয়নি সামাজিক দূরত্ব। দোকানের বাইরেও কোনও মার্কিং নেই।  সেই ছবি নিউজ এইটিন বাংলায় সম্প্রচার হচ্ছে। সেখানেই করোনার ভয়। এই পরিস্থিতিতে অ্যাপনির্ভর বাজার এখন ভরসার জায়গা। সিউড়ির কয়েকজন যুবক মিলে এই অ্যাপ তৈরি করেছেন। একশো টাকার সবজি কিনলেই লাগছে না কোনও ডেলিভারি চার্জ। খুশি ক্রেতারাও।

    কলকাতা ও সংলগ্ন এলাকায় অ্যাপে অর্ডার দিলেই সবজি ও ফল কেনার সুযোগ রয়েছে। কিন্তু, জেলা ও শহরতলিতে এই সুবিধা নেই। ফলে, ভোরের আলো ফুটতেই একটু একটু করে ভিড় বাড়তে শুরু করে বাজারে।  লকডাউন উপেক্ষা করে মাস্ক না পরেই বাজার করেন অসংখ্য ক্রেতা। ভিড়ে ঠাসাঠাসি করে বেলা পর্যন্ত চলে বিকিকিনি। সিউড়ির কয়েকজন যুবকের উদ্যোগে এবার সেই ছবি কিছুটা হলেও রয়েছে বদলানোর সুযোগ।

    Published by:Debalina Datta
    First published: