করোনা সতর্কতায় নয়া উদ্যোগ রথখোলা স্পোর্টিংয়ের, আস্ত বাজার উঠে এল ক্লাবের মাঠে

ইতিমধ্যেই শিলিগুড়ির বিভিন্ন মুদির দোকান থেকে ওষুধের দোকান। বড় বড় দোকান। সর্বত্রই টানা হচ্ছে লক্ষণরেখা। তা মানছে এখন শহরবাসী।

ইতিমধ্যেই শিলিগুড়ির বিভিন্ন মুদির দোকান থেকে ওষুধের দোকান। বড় বড় দোকান। সর্বত্রই টানা হচ্ছে লক্ষণরেখা। তা মানছে এখন শহরবাসী।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি:  সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। বার বার বলছে রাজ্য ও কেন্দ্র। মারণ করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে জিততে গেলে এটাই একমাত্র পথ। দেশজুড়ে লকডাউনের চতুর্থ দিনে ধীরে ধীরে সেই নির্দেশই মানতে চলেছে শিলিগুড়ি শহরবাসী। এছাড়া যে উপায় নেই! অবশেষে সাধারণ মানুষের মধ্যে করোনা নিয়ে সচেতনতা ও সতর্কতা বাড়ছে।

ইতিমধ্যেই শিলিগুড়ির বিভিন্ন মুদির দোকান থেকে ওষুধের দোকান। বড় বড় দোকান। সর্বত্রই টানা হচ্ছে লক্ষণরেখা। তা মানছে এখন শহরবাসী। আর না মানলেই যে বড় বিপদ সামনে। এবারে করোনা মোকাবিলায় বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করলো শিলিগুড়ির রথখোলা স্পোর্টিং ক্লাব। শুক্রবার থেকে শহরের হলদবাড়ি বাজার আর পুরনো জায়গা বসছে না। গোটা বাজার চলে এসছে রথখোলা স্পোর্টিংয়ের মাঠে। এবং নিরাপদ দূরত্ব মেনে বসানো হয়েছে প্রতিটি সবজির দোকান। অর্থাৎ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নির্দেশ মেনেই শুরু হল বাজার। এবং ক্রেতাদেরও বলা হয়েছে ঘাড়ের ওপর আর নিঃশ্বাস ফেলা নয়।

সরকারি নির্দেশ মতো দূরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে। নির্দেশ অমান্য করা চলবে না। আর তাই নিয়ম মেনেই বাজারে কেনাকাটা করছেন ক্রেতারা। এই সিদ্ধান্তে খুশী ক্রেতারাও। কাবেরী মণ্ডল জানান, মারণ করোনার হাত থেকে বাঁচতে হলে এর বিকল্প নেই। রথখোলা স্পোর্টিংয়ের এহেন উদ্যোগকে অভিনন্দন জানান আর এক ক্রেতা ধীমান বোস। তিনি বলেন, মানুষ সতর্ক না হলে সমূহ বিপদ। সবজি ব্যবসায়ী সন্তোষ মণ্ডল জানান, আমরা আতঙ্কিত নই। এই সতর্কতা নিয়ে চলছি। এছাড়া আর অন্য উপায় নেই। গতকালও যে ভিড় ঠাসা হলদিবাড়ি বাজার দেখেছিল স্থানীয় বাসিন্দারা। আজকের ছবি দেখে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছে শহরবাসী। এই লড়াই কঠিন লড়াই। তারা চাইছে শহরের অন্য বড় বাজারগুলিতেও একই ছবি শুরু করা হোক দ্রুত। অর্থাৎ মানুষে মানুষের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই হোক সবজি কেনা বেচা।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: