corona virus btn
corona virus btn
Loading

রবিবারে প্রধানমন্ত্রীর রাত ৯টার কর্মসূচি আসলে কুসংস্কার ও বিজ্ঞান বিরোধী, দাবি শিবপুরের গবেষকদের

রবিবারে প্রধানমন্ত্রীর রাত ৯টার কর্মসূচি আসলে কুসংস্কার ও বিজ্ঞান বিরোধী, দাবি শিবপুরের গবেষকদের

তারা প্রধানমন্ত্রীর ডাকা এই কর্মসূচি পালন করলে বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষেত্রে কি কি সমস্যা তৈরি হতে পারে বিশেষত পশ্চিমবঙ্গের ক্ষেত্রে তাই জানিয়েছেন গবেষকরা।

  • Share this:

#কলকাতা: দেশজুড়ে করোনা সংক্রমণ মোকাবিলার জন্য রবিবার প্রধানমন্ত্রীর রাত নটায় ৯ মিনিটের জন্য গৃহ অন্ধকারকরণ কর্মসূচি  পালনের প্রতিবাদ জানিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বিদ্যুৎ মন্ত্রী শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়কে খোলা চিঠি দিল শিবপুর আইআইএসটি একদল গবেষক পড়ুয়া। মূলত খোলা চিঠিতে তারা প্রধানমন্ত্রীর ডাকা এই কর্মসূচি পালন করলে বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষেত্রে কি কি সমস্যা তৈরি হতে পারে বিশেষত পশ্চিমবঙ্গের ক্ষেত্রে তাই জানিয়েছেন গবেষকরা। খোলা চিঠিতে মূলত দুটি  বিষয় তারা উল্লেখ করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও বিদ্যুৎ মন্ত্রী কে উদ্দেশ্য করে।

মূলত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও বিদ্যুৎ মন্ত্রীকে খোলা চিঠি দিয়ে তারা জানিয়েছেন " যদি দেশ তথা রাজ্যের প্রচুর সংখ্যক মানুষ ওই সময়ে ঘরের সমস্ত বৈদ্যুতিন যন্ত্র এবং আলো বন্ধ করেন তাহলে বিপুল পরিমাণ বিদ্যুৎ ব্যবহার হঠাৎ করে বন্ধ হয়ে যাবে। অথচ বিদ্যুৎ উৎপাদন এইরূপ আচমকা বন্ধ করা যায় না। তাই সব মানুষ যদি নিজেদের বাড়ির আলো নিভিয়ে ফেলেন তাহলে পাওয়ার গ্রিড গুলোর উপর মাত্রাতিরিক্ত চাপ পড়বে। যার অভিঘাতে পাওয়ার গ্রিড ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকছে। এহেন ক্ষতি হলে রাজ্য তথা দেশে বিদ্যুৎ সংকট দেখা দিতে পারে। যখন রাজ্য সরকার কোভিড ১৯এর  বিরুদ্ধে লড়াইয়ে মনোনিবেশ করেছে তখন প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত কর্মসূচি বিদ্যুৎ বিভ্রাট খতিয়ে আরো বিপদ ডেকে আনতে পারে যা বর্তমান পরিস্থিতিতে কাম্য নয়।"

খোলা চিঠিতে তারা আরো বলেছেন " প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত আলো নেভাও এবং মোমবাতি জ্বালাও কর্মসূচির কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। বরং বলা যেতে পারে যে ভারত সরকার এহেন কর্মসূচি ঘোষণার মাধ্যমে দেশের মানুষের বৈজ্ঞানিক চেতনার ক্ষতি করছেন এবং কোভিড ১৯ এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিজ্ঞান নয়, কুসংস্কারের আশ্রয় নিচ্ছেন। ঠিক রাত ৯ টায় ৯ মিনিটে র জন্য মোমবাতি জ্বালিয়ে রাখলে কি হবে? করোনা ভাইরাস মোকাবিলা নিরসনে মোমবাতি জালানো কিভাবে সাহায্য করবে? কেন ৯টায় নয় মিনিটের জন্যে এই  কর্মসূচি পালন করতে হবে? এই সমস্ত প্রশ্নের কোন উত্তর সরকারের তরফে দেওয়া হয়নি।"

মূলত শিবপুর আইআইএসটি গবেষক পড়ুয়াদের একাংশ শনিবারই এই খোলা চিঠি লিখে প্রধানমন্ত্রীর এই কর্মসূচিকে কুসংস্কার বিজ্ঞানবিরোধী মানসিকতার প্রকাশ পেয়েছে বলে দাবি করেছে। তবে শুধু তাই নয়,খোলা চিঠিতে শিবপুর আইআইইএসটির ৫৩ জুন গবেষক পড়ুয়া স্বাক্ষর করে এই চিঠিটি পাঠিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী ও বিদ্যুৎ মন্ত্রীকে। যদিও এই চিঠির বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাইনি শিবপুর আইআইইএসটির রেজিষ্ট্রার।

Somraj Bandhopadhyay

Published by: Elina Datta
First published: April 5, 2020, 1:54 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर