করোনা ভাইরাস

corona virus btn
corona virus btn
Loading

না জেনেই করোনায় আক্রান্ত, আবার সেরেও উঠছেন অনেকে! রিপোর্টে নজর

না জেনেই করোনায় আক্রান্ত, আবার সেরেও উঠছেন অনেকে! রিপোর্টে নজর
Representative Image

কলকাতায় ৩৯৬ জনের মধ্যে ৫৭ জনের রিপোর্টই পজিটিভ এসেছে। যার অর্থ কলকাতায় ১৪.৩৯ শতাংশ ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, আবার সেরেও উঠেছেন।

  • Share this:

#কলকাতা: একদিকে প্রায় দু'মাস ধরে চলছে লকডাউন আর তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। কলকাতা সহ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে সাধারণ মানুষের কী হাল তা জানতে আইসিএম আর (ICMR) সমীক্ষা করার সিদ্ধান্ত নেয়। শরীরে রোগ প্রতিরোধী অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে কি না দেখার জন্য রক্ত পরীক্ষার নামই সেরোলজিক্যাল টেস্ট। অ্যান্টিবডি হল বিশেষ এক ধরনের প্রোটিন, যা শরীরে কোনও জীবাণু প্রবেশ করলে তার বিরুদ্ধে লড়াই করে। বিভিন্ন অ্যান্টিবডির মধ্যে সব থেকে শক্তিশালী হল 'ইমিউনোগ্লোবিউলিন-জি' বা আই জি জি। নভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ হলে এই আই জি জি- ই রক্ষা করে। রক্ত পরীক্ষা করে আইজিজি পাওয়া গেলে বোঝা যায়, সেই ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। এই রক্ত পরীক্ষা করোনা পরীক্ষার আর টি পিসিআর টেস্টের মতো সময়সাপেক্ষ ও জটিল নয়।

সম্প্রতি কলকাতা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম,পূর্ব মেদিনীপুর, আলিপরদুয়ার এই ছয় জেলায়  আই সি এম আর (ICMR) এর করা সেরোলজিক্যাল সার্ভে-তে (আইজিজি পরীক্ষা) এমন তথ্যই উঠে এসেছে। কলকাতায় ৩৯৬ জন ও বাকি জেলাগুলোয় ৪০০ জনের রক্তের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল আই সি এম আর (ICMR)এর নির্দেশে। কলকাতায় ৩৯৬ জনের মধ্যে ৫৭ জনের রিপোর্টই পজিটিভ এসেছে। যার অর্থ কলকাতায় ১৪.৩৯ শতাংশ ব্যক্তি  করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, আবার সেরেও উঠেছেন।

উত্তরবঙ্গের আলিপুরদুয়ারে ৪ জনের (১ শতাংশ) রিপোর্ট পজিটিভ হয়েছে। পূর্ব মেদিনীপুরে ৩ জন ( .৭৫ শতাংশ), বাঁকুড়াতে ১ জন (.২৫ শতাংশ), ঝাড়গ্রামে ১ জন (.২৫ শতাংশ), দক্ষিণ ২৪ পরগনাতে ১০ জনের (২.৫০) রিপোর্ট পজিটিভ। যারা পজিটিভ হয়েছেন,তাদের শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে। অর্থাৎ এরা প্রত্যেকেই কোনও না কোনও ভাবে নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন,আবার সুস্থও হয়ে ওঠেন। এই রিপোর্ট রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরে পাঠানো হয়েছে আইসিএমআর এর তরফ থেকে।

Published by: Pooja Basu
First published: June 28, 2020, 12:17 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर