corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা ভাইরাস শরীরে ঢোকার ২-৩ সপ্তাহ পর টের পাওয়া যায়, ১৪ দিন তাই চরম সতর্কতা !

করোনা ভাইরাস শরীরে ঢোকার ২-৩ সপ্তাহ পর টের পাওয়া যায়, ১৪ দিন তাই চরম সতর্কতা !

চিক‍িৎসকরা বলছেন, আক্রান্তকে ১৪ দিনের গৃহ পর্যবেক্ষণে রাখলে সংক্রমণ অনেকটাই রোখা যাবে।

  • Share this:

#কলকাতা:  করোনা ভাইরাস শরীরে ঢোকার পর উপসর্গ নাও দেখা দিতে পারে। দু থেকে তিন সপ্তাহের মধ্যে করোনার উপস্থিতি টের পাওয়া যায়। এইসময়ই করোনা ভাইরাস সবথেকে বেশি ছড়িয়ে পড়তে পারে। তাই এই সময়ে যদি আক্রান্তকে বাড়িতে পর্যবেক্ষণে রেখে পরীক্ষা করা যায়, তাহলে করোনা ভাইরাসের ছড়িয়ে পড়া আটকানো যাবে। তাই এই সময়টিই সবচেয়ে বেশি সতর্কতা নিতে হবে।

কোনও ব্যক্তি হয়ত বিদেশে যাননি। তিনি যদি করোনায় আক্রান্তের সংস্পর্শে আসেন তাহলে তাঁর দেহে করোনা ভাইরাস ঢুকতে পারে। যদিও, শরীরে করোনা ভাইরাস ঢোকার পরে উপসর্গ নাও দেখা দিতে পারে। তাই এমন কোনও ব্যক্তি দেখতে সুস্থ মনে হলেও করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন। তথ্য বলছে, দু’থেকে তিন সপ্তাহের মধ্যে ভাইরাস সংক্রমণের হার মারাত্মক। দেখা গিয়েছে, নিউইয়র্কে প্রথম সপ্তাহে করোনা আক্রান্ত হন মাত্র ২ জন। দ্বিতীয় সপ্তাহে করোনা ভাইরাস পাওয়া যায় ১০৫ জনের শরীরে। তৃতীয় সপ্তাহে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয় ৬১৩ ৷

!function(e,i,n,s){var t="InfogramEmbeds",d=e.getElementsByTagName("script")[0];if(window[t]&&window[t].initialized)window[t].process&&window[t].process();else if(!e.getElementById(n)){var o=e.createElement("script");o.async=1,o.id=n,o.src="https://e.infogram.com/js/dist/embed-loader-min.js",d.parentNode.insertBefore(o,d)}}(document,0,"infogram-async");

ইতালিতেও দেখা গিয়েছে প্রথম সপ্তাহে করোনা আক্রান্ত হন মাত্র তিন জন। দ্বিতীয় সপ্তাহে করোনা আক্রান্ত হন ১৫২ জন। তৃতীয় সপ্তাহে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয় ১ হাজার ৩৬। চতুর্থ সপ্তাহে ৬ হাজার ৩৬২ জন আক্রান্ত হন। পঞ্চম সপ্তাহে সংখ্যাটা বেড়ে হয়  ২১, ১৫৭।

তাই চিক‍িৎসকরা বলছেন, আক্রান্তকে ১৪ দিনের গৃহ পর্যবেক্ষণে রাখলে সংক্রমণ অনেকটাই রোখা যাবে।

১৪ দিন চরম সতর্কতা ----------------------------- - করোনা ভাইরাস শরীরে ঢোকার ১৪ দিনের মধ্যে সংক্রমণ ছড়ায় - সংক্রমণ না আটকালে মহামারীর আকার নেয় - তাই এই ১৪ দিনে বিভিন্ন সতর্কতা নিতে হবে - নিয়মিত শরীরে তাপমাত্রা পরীক্ষা করতে হবে - রোগীর প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলতে হবে - জ্বর কমাতে ওষুধ দিতে হবে

রাজ্যে ইতিমধ্যেই রাজারহাটে কোয়ারান্টাইন সেন্টার তৈরি করা হয়েছে। ভিড় বা জমায়েত এড়ানোরও পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। বিপদ এড়াতে আপাতত দু’থেকে তিন সপ্তাহ সমস্ত সতর্কতামূলক পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে ৷

First published: March 17, 2020, 2:47 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर