Unemployment in Covid : করোনা আবহে ৪ মাসে আকাশ ছুঁয়েছে কর্মহীনতা! এপ্রিলে কাজ হারিয়েছেন ৭৫ লক্ষ ভারতীয়...

কাজ হারাচ্ছেন মানুষ, বাড়ছে কর্মহীনতা  সংগৃহীত ছবি।     

জানুয়ারি মাস থেকে পর পর ক্রমেই নিম্নমুখী জীবিকার গ্রাফ (Unemployment)। উল্টোদিকে ক্রমেই উর্ধ্বমুখী হয়েছে করোনা (Coronavirus)। অর্থাৎ করোনা প্রকোপের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে কমেছে কাজের সুযোগ।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি : সেন্টার ফর মনিটরিং ইন্ডিয়ান ইকোনমি (CMIE)-র রিপোর্ট অনুযায়ী মার্চের তুলনায় অনেকটাই কমেছে দেশে মোট বেতনভুক কর্মচারীর সংখ্যা। জানুয়ারি মাস থেকে পর পর ক্রমেই নিম্নমুখী এই গ্রাফ। উল্টোদিকে ক্রমেই উর্ধ্বমুখী হয়েছে করোনা (Covid-19 Second Wave)। অর্থাৎ করোনা প্রকোপের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে কমেছে কাজের সুযোগ (Unemployment)।

    কেন এই দুরাবস্থা? বিশেষজ্ঞদের মতে, গতবছরের শেষে করোনা একটু স্তিমিত হয়েছিল। একটু একটু করে ঘুরে দাঁড়াচ্ছিল কল-কারখানা, ব্যবসা বাণিজ্য। টানা লকডাউনের আতঙ্ক কাটিয়ে ছন্দে ফিরছিলো কাজের বাজারও। ফের নতুন করে শুরু হচ্ছিল বিভিন্ন নির্মাণকাজ, শিল্প, ব্যবসা। কিন্তু কিন্তু নতুন বছর আসতেই মাস দুয়েক কাটতে না কাটতে ধাক্কা দিল করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ। করোনার সেকেন্ড ওয়েভের প্রভাবে ফের সেগুলি স্থগিত। ফলে, বেড়েছে ছাঁটাই। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আংশিক ও পূর্ণ লকডাউনের কারণে কাজ ছেড়ে বাড়িও ফিরতে হয়েছে অনেককে।

    অন্যদিকে, করোনা পরিস্থিতিতে চাকরি খুইয়েও আশাহত হয়ে অনেকে নতুন চাকরি খুঁজছেন না। বাড়ছে তাঁদের সংখ্যাও। এমনটাই বলছেন দিল্লি ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক অরূপ মিত্র। মূলত বিভিন্ন স্থানে আংশিক লকডাউন, কার্ফুর প্রভাবে কার্যত বন্ধ কাজের বাজার। ফলে, নতুন কাজের সম্ভাবনাও বর্তমানে ক্ষীণ।

    দেখা যাচ্ছে মার্চে এমপ্লয়মেন্ট রেট ছিল ৩৭.৫৬% । এপ্রিলে সেটি গিয়ে দাঁড়ায় ৩৬.৭৯%-এ। গত ৪ মাসে এটিই সর্বনিম্ন। কর্মহীনতা গত চার মাসে সবথেকে বেশি হয়েছে এপ্রিলে। সিমি ৮ শতাংশে এসে থেকেছে এই হার। (CMIE) এর পরিসংখ্যান বলছে গত এপ্রিলে এই শতকরা হার পৌঁছেছে । ৭ ৯৭ %। যা ইতিমধ্যেই চিন্তার ভাজ ফেলেছে বিশেষজ্ঞ অর্থনীতিবিদদের কপালে।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: