Ajit Singh: করোনার শিকার, প্রয়াত প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অজিত সিং!

প্রয়াত অজিত সিং।

রাষ্ট্রীয় লোক দল (RLD)-এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী (Union Minister) অজিত সিং (Ajit Singh) প্রয়াত। করোনাভাইরাসে (Coronavirus) আক্রান্ত হয়ে বৃহস্পতিবার প্রয়াত হন তিনি।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: রাষ্ট্রীয় লোক দল (RLD)-এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী (Union Minister) অজিত সিং (Ajit Singh) প্রয়াত। করোনাভাইরাসে (Coronavirus) আক্রান্ত হয়ে বৃহস্পতিবার প্রয়াত হন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। গত ২০ এপ্রিল করোনা পজিটিভ (Covid 19 Positive) হওয়ার পর থেকেই তিনি গুরুগ্রামের একটি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। মঙ্গলবার রাত থেকে অজিত সিংয়ের অবস্থার অবনতি হতে শুরু করেছিল। এদিন তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন।

    ছেলে জয়ন্ত চৌধুরী, আরএলডি-র সহ-সভাপতি সোশ্যাল মিডিয়ায় অজিত সিংয়ের মৃত্যুর খবর শেয়ার করেছেন। এরই সঙ্গে জনগণকে বাড়িতে থাকার এবং সতর্ক থেকে এই অতিমারির বিরুদ্ধে লড়াই চালানোর আহ্বান করেছেন তিনি। তাতেই প্রয়াত মন্ত্রী ও দেশের প্রথম সারির করোনাযোদ্ধাদের সম্মান জানানো হবে বলে মনে করেন তিনি।

    অজিতের বাবা প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী চৌধুরী চরণ সিং ছিলেন পশ্চিম উত্তরপ্রদেশের জাঠ বলয়ের জনপ্রিয় নেতা। কিন্তু খড়গপুর আইআইটি-র প্রাক্তনী অজিত রাজনীতি দিয়ে তাঁর কর্মজীবন শুরু করেননি। ইঞ্জিনিয়ারিং-এ স্নাতক ডিগ্রি লাভ করার পরে আইবিএম (IBM)-এর মতো বহুজাতিক সংস্থায় চাকরি শুরু করেন। আশির দশকের গোড়ায় তাঁর রাজনীতিতে প্রবেশ। প্রথমে বাবার হাতে গড়া লোকদল এবং পরবর্তী পর্যায়ে জনতা দলে।

    ১৯৮৯ সালে প্রধানমন্ত্রী ভি পি সিংয়ের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ফ্রন্ট সরকারে প্রথম মন্ত্রিত্ব পেয়েছিলেন অজিত। নব্বইয়ের দশকে কংগ্রেসে যোগ দিয়ে পি ভি নরসিংহ রাও সরকারের মন্ত্রীও হন। এর পর নিজের দল আরএলডি গড়ে অটলবিহারী বাজপেয়ীর নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকার এবং প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহে ইউপিএ জোটের মন্ত্রিসভাতেও ঠাঁই পেয়েছিলেন অজিত। চরণের শক্ত ঘাঁটি বাগপত লোকসভা কেন্দ্র থেকে নিজে ৬ বার জেতার পাশাপাশি মথুরা থেকে ২০০৯ সালে জিতিয়ে এনেছিলেন নিজের ছেলে জয়ন্তকেও। কিন্তু ২০১৩-য় মুজফ্‌ফরনগর গোষ্ঠীহিংসার জেরে পশ্চিম-উত্তরপ্রদেশে ভোটের মেরুকরণের সুফল পায় বিজেপি। অজিত এবং তাঁর ছেলে হেরে যান।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: