• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • এতদিন হুঁশ ছিল না, এলাকায় করোনা রোগী ধরা পড়তেই বাজার ফাঁকা বর্ধমানে

এতদিন হুঁশ ছিল না, এলাকায় করোনা রোগী ধরা পড়তেই বাজার ফাঁকা বর্ধমানে

অরেঞ্জ জোন হলেও বর্ধমানে খুলল না বাজার৷ PHOTO- COLLECTED

অরেঞ্জ জোন হলেও বর্ধমানে খুলল না বাজার৷ PHOTO- COLLECTED

এতদিন মাইকে প্রচার, ধরপাকড় চালিয়েও বাসিন্দাদের রোখা যায়নি। বাসিন্দাদের একটা অংশকে বাইরে বের হওয়া থেকে আটকাতে হিমশিম খেতে হচ্ছিল পুলিশকে।

  • Share this:

#বর্ধমান: বুধবারও বর্ধমানে দোকানপাট বন্ধই রইল। সরকার নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী ছাড়াও বেশ কিছু দোকান খোলায় ছাড় দিলেও বর্ধমানে  দোকানপাট খোলেনি।  বর্ধমান শহরের সুভাষপল্লি এলাকা কন্টেইনমেন্ট জোন হওয়ায় তার প্রভাব পড়েছে বর্ধমানের বাজারে। এ দিনও শহরে রাস্তাঘাটে ভিড় ছিল তুলনামূলক কম। বাসিন্দারা সেভাবে রাস্তায় না নামায় দোকান খোলায় উৎসাহ দেখাননি ব্যবসায়ীরাও।

এতদিন মাইকে প্রচার, ধরপাকড় চালিয়েও বাসিন্দাদের রোখা যায়নি।  বাসিন্দাদের একটা অংশকে বাইরে বের হওয়া থেকে আটকাতে হিমশিম খেতে হচ্ছিল পুলিশকে। অথচ বর্ধমান শহরের সুভাষপল্লি এলাকায় মহিলার করোনায় আক্রান্ত  হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়তেই অনেকেই এখন নিজেদের গৃহবন্দি করে রেখেছেন। খুব প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হচ্ছেন না তাঁদের অনেকেই।

এমনিতেই বেশিরভাগ বাসিন্দা এখনও গৃহবন্দি রয়েছেন। তার মধ্যেও সোমবার সকালে অনেকে  বাইরে বেরিয়েছিলেন। পাড়ায় পাড়ায় অনেক চায়ের দোকানও খুলেছিল।  এখন আবার রাস্তা ফাঁকা। যাঁরা বের হচ্ছেন তাঁরাও এখন সাবধানী।  মাস্ক বা ফেস কভার ছাড়া বাইরে বের হচ্ছেন না কেউই। রমজান মাস চলায় বর্ধমানের বি সি রোডে ফলের বাজারে কিছুটা ভিড় হচ্ছে। কিছু বাসিন্দা সবজি বাজার করতে সকালের দিকে বের হচ্ছেন। এছাড়া ওষুধ বা  চিকিৎসার প্রয়োজন ছাড়া রাস্তায় নামছেন না কেউই।

তাই এই পরিস্থিতিতে দোকান খুলতে চাইছেন না অনেক ব্যবসায়ী।তাঁরা বলছেন, এমনিতেই বাস, ট্রেন চলাচল বন্ধ। বাইরে থেকে কেউ আসতে পারছেন না। শহরের বাসিন্দারাও খুব একটা বাইরে বের হচ্ছেন না। তাই দোকান খুলে লোকসানের বহর আর বাড়াতে নারাজ তাঁরা। পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলে তবেই দোকান খোলার মনস্থির করছেন অনেকেই।

SARADINDU GHOSH

Published by:Debamoy Ghosh
First published: