corona virus btn
corona virus btn
Loading

সুখবর! পূর্ব বর্ধমানে করোনা আক্রান্তদের বেশিরভাগই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরায় স্বস্তি

সুখবর! পূর্ব বর্ধমানে করোনা আক্রান্তদের বেশিরভাগই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরায় স্বস্তি

জেলায় এখন করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩৬ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮৫ জন।

  • Share this:

#বর্ধমান: ভিন রাজ্য থেকে আসা বাসিন্দা সংখ্যা যতই বাড়ছে, ততই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। তবে পূর্ব বর্ধমান জেলায় যতজন আক্রান্ত হয়েছেন তার মধ্যে বেশির ভাগ জনই চিকিৎসার পর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এখনও পর্যন্ত এই জেলায় ১২১ জন আক্রান্ত হলেও তাদের মধ্যে এক জনেরও মৃত্যু হয়নি। জেলায় এখন করোনা আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩৬ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮৫ জন। জেলায় এখন ৯৪৬টি কোয়ারেন্টাইন সেন্টার রয়েছে। সেই সব সেন্টারগুলিতে বেশিরভাগই বাইরের রাজ্য থেকে আসা পরিযায়ী শ্রমিকরা রয়েছেন।

গত চব্বিশ ঘণ্টায় নতুন করে জেলায়  সাত জন বাসিন্দার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। তাদের মধ্যে কাটোয়া পুরসভা এলাকায় আক্রান্ত হয়েছেন দু জন। বর্ধমান এক নম্বর ব্লকে আক্রান্ত হয়েছেন একজন। ভাতার ব্লকেও এক জন আক্রান্ত হয়েছেন। মঙ্গলকোটে একজন ও কেতুগ্রামে দু’জন করোনা আক্রান্তের হদিস মিলেছে। এরা সবাই পরিযায়ী শ্রমিক। লক ডাউনে ভিন রাজ্যে আটকে থাকার পর সম্প্রতি বিশেষ ট্রেনে জেলায় ফিরেছিলেন।

এখন পূর্ব বর্ধমান জেলার বিভিন্ন কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রয়েছেন ১১,১৫৮ জন বাসিন্দা। তাঁরা মূলত ভিন রাজ্য থেকে সম্প্রতি ফিরেছেন। কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে থাকা বাসিন্দাদের মধ্যে ৬২৫৩ জন ব্যাপক ভাবে  করোনা আক্রান্ত  পাঁচ রাজ্য থেকে এসেছেন। পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানান, জেলায় এখনও পর্যন্ত ৯৩টি এলাকাকে কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। নতুন করে আক্রান্তের হদিশ মিললে সেই এলাকাকেও কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে  ঘোষণা করা হবে। তবে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে বাইরের রাজ্য থেকে আসা কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে থাকা বাসিন্দার সংখ্যা কমে যাবে। সাত দিনের বেশি সময় কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রয়েছেন এমন বেশিরভাগ বাসিন্দা সুস্থ রয়েছেন। তাদের দেহে করোনার কোনও উপসর্গ পাওয়া যায়নি। তাদের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট করোনা নেগেটিভ এলে তাদের বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হবে। তাই আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে থাকা বাসিন্দা সংখ্যা অনেকটাই কমে আসবে বলে আশা করা হচ্ছে।

Saradindu Ghosh

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: June 5, 2020, 5:28 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर