corona virus btn
corona virus btn
Loading

দেশজুড়ে বামেদের অভিনব কর্মসূচি 'Protest From Home', মুহূর্তে ভাইরাল

দেশজুড়ে বামেদের অভিনব কর্মসূচি 'Protest From Home', মুহূর্তে ভাইরাল

আন্দোলনকারীরা প্রত্যেকে নিজেদের বক্তব্য একটি পোস্টারে লিখে সেটার সঙ্গে ছবি তুলে স্যোসাল মিডিয়াতে পোস্ট করেন। সাথে সাথে ভাইরাল হয়ে তা ছড়িয়ে পড়ে। এদিন দেশজুড়ে এসএফআই-য়ের তরফে এই কর্মসূচি পালন করা হয়।

  • Share this:

#কলকাতাঃ কর্মসূচি হল। প্রতিবাদ হল। নিজেদের বক্তব্যকে একসঙ্গে অনেকে মিলে মানুষের সামনেও নিয়ে আসা গেল। কিন্তু কাউকে রাস্তায় বেরোতে হল না। জমায়েত করতে হল না। লকডাউন ভাঙার অভিযোগও উঠলো না কারও বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার এমনই এক কর্মসূচি পালন করল বামেরা। আন্দোলনকারীরা প্রত্যেকে নিজেদের বক্তব্য একটি পোস্টারে লিখে সেটার সঙ্গে ছবি তুলে স্যোসাল মিডিয়াতে পোস্ট করেন। সাথে সাথে ভাইরাল হয়ে তা ছড়িয়ে পড়ে। এদিন দেশজুড়ে এসএফআই-য়ের তরফে এই কর্মসূচি পালন করা হয়।

কর্মসূচির মূল দাবি ছিল, করনা মোকাবিলায় সরকারকে আরও কড়া পদক্ষেপ করতে হবে। পরিযায়ী শ্রমিকদের সমস্যা সমাধানে সরকারকে উদ্যোগ নিতে হবে। স্বাস্থ্য কর্মীদের নিরাপত্তার জন্য পিপিই কিট দিতে হবে। প্রত্যেকের খাদ্যের ব্যবস্থা করতে হবে। কিন্তু বামেদের অভিযোগ, করোনা মোকাবিলায় সরকার যে পদক্ষেপ করছে তা যথেষ্ট নয়। এরই প্রতিবাদে আন্দোলন করে চলেছে বামেরা। লক ডাউনের ফলে সবচাইতে বেশি সমস্যায় পড়তে হয়েছে পরিযায়ী শ্রমিকদের। গত রবিবার বামেদের তরফ থেকে প্রতীকী অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয় রেড রোডে। পরে লক ডাউন ভাঙার অভিযোগ গ্রেফতার করা হয় বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু, সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র, পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম, বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী-সহ সতের বামদলের রাজ্য নেতৃত্ব।

কিন্তু এদিনের কর্মসূচি করা হল বাড়িতে থেকেই। সিপিএমের রাজ্য কমিটির সদস্য তথা এসএফআই-য়ের রাজ্য সম্পাদক সৃজন ভট্টাচার্য বলেন, "করোনা মোকাবিলায় লক ডাউন এক কার্যকরী পদক্ষেপ এবং এটা মেনে চলতে হবে। কিন্তু একই সাথে এই পরিস্থিতিতে যে মানুষগুলো সমস্যায় পড়বে তা সমধান করার দায়িত্ব সরকারের যেটা সরকার করছে না। কোনও সরকার বাজনা বাজাচ্ছে আবার কোনও সরকার রাস্তায় ছবি আঁকছে। লকডাউনের ফলে সবচাইতে সমস্যায় পড়েছে পরিযায়ী শ্রমিকরা। না তাঁরা বাড়ি ফিরতে পারছেন, না থাকতে পারছেন যেখানে রয়েছেন। সরকার না তাঁদের বাড়ি ফেরাচ্ছে, না আশ্রয়ের বন্দোবস্ত করছে। তাছাড়া খাদ্য পানীয়ের সমস্যা, অর্থসংকটে চলতে হচ্ছে। ছাঁটাই চলছে অমানবিকভাবে। কোথাও বেতন কাটা হচ্ছে। কোথাও বা বেতন দেওয়াই হচ্ছে না। লক ডাউনের পরে পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে। সাধারণ মানুষের প্রাপ্য রেশন নিয়ে কালোবাজারি হচ্ছে। এসব সমস্যা যাতে না হয় সেটা দেখাই সরকারের কাজ। তা না করে শুধু গালভরা প্রতিশ্রুতি চলছে। তাই আমরা বলেছি, 'ভাষণ নয় রেশন চাই।'

UJJAL ROY

Published by: Shubhagata Dey
First published: April 21, 2020, 6:34 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर