'লকডাউন শেষ হলেও ভাইরাস বিদায় নেয়নি', উৎসবে বেপরোয়া না হওয়ার অনুরোধ মোদির

'লকডাউন শেষ হলেও ভাইরাস বিদায় নেয়নি', উৎসবে বেপরোয়া না হওয়ার অনুরোধ মোদির

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ Photo-ANI/Twitter

করোনা ভ্যাকসিন নিয়েও দেশবাসীকে আশার কথা শুনিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: উৎসবের মরশুমে গাছাড়া মনোভাব দেখালেই করোনার বিরুদ্ধে যাবতীয় লড়াই ব্যর্থ হবে৷ জাতির উদ্দেশে ভাষণে বার বার সেকথাই স্মরণ করিয়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, ভ্যাকসিন বাজারে এলেই কীভাবে তা প্রত্যেক দেশবাসীর কাছে দ্রুত পৌঁছে দেওয়া যায়, সেই প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে কেন্দ্রীয় সরকার৷

    উৎসবের মরশুমে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেই প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'সময়ের সঙ্গে সঙ্গে অর্থনৈতিক কার্যকলাপও স্বাভাবিক হচ্ছে৷ উৎসবের মরশুমে বাজারও চেনা ছন্দে ফিরছে৷ তবে মনে রাখতে হবে লকডাউন শেষ হলেও ভাইরাস বিদায় নেয়নি৷ শেষ সাত- আট মাসে প্রত্যেক ভারতীয়ের চেষ্টায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের মধ্যে এসেছে৷ তাই এখন গাছাড়া মনোভাব দেখানোর সময় নয়, বরং কীভাবে তা আরও ভাল করা যায়, তা নিশ্চিত করতে হবে৷'

    প্রধানমন্ত্রী দাবি করেন, ভারতে প্রতি ১০ লক্ষ জনসংখ্যায় যেখানে সাড়ে ৫ হাজার লোকের করোনা হয়েছে, সেখানে ব্রাজিল, আমেরিকায় এই সংখ্যাটা ২৫ হাজারের কাছাকাছি৷ মৃত্যুর নিরিখে ভারতে প্রতি ১০ লক্ষে মৃতের সংখ্যা ৮৩, সেখানে আমেরিকা, ব্রাজিল, স্পেনের মতো বহু দেশে তা ৬০০-র বেশি৷ তিনি আরও বলেন, গোটা দেশে করোনা রোগীদের জন্য ৯০ লক্ষের বেশি বেড রয়েছে৷ ১২ হাজার কোয়ারেন্টাইন সেন্টার , ২ লক্ষ ল্যাব রয়েছে৷ খুব শিগগিরই দেশে করোনা পরীক্ষার সংখ্যা ১০ কোটি ছাড়িয়ে যাবে৷ নরেন্দ্র মোদি বলেন, বেশি সংখ্যায় টেস্ট করতে পারাই করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভারতের বড় শক্তি৷

    প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'চিকিৎসক, নার্স-সহ করোনা যোদ্ধারা বিপুল জনসংখ্যার সেবায় কাজ করছেন৷ এই সময়টা গাছাড়া মনোভাব দেখানোর নয়৷ করোনা বিদায় নিয়েছে এমন ভাবলে ভুল হবে৷ সাম্প্রতিক কালে এমন অনেক ভিডিও, ছবি সামনে এসেছে যাতে দেখা যাচ্ছে বহু মানুষ সতর্কতা বিধি মানছেন না৷ মাস্ক না পরে বাইরে বেরোলে, স্বাস্থ্যবিধি না মানলে নিজের পরিবার, সন্তান, পরিবারের প্রবীণদের বিপদের মুখে ঠেলে দিচ্ছেন৷ এই সময়ে নিজের সুরক্ষার বিষয়ে সবথেকে বেশি জোর দিতে হবে৷ আমেরিকা, ইউরোপের দেশগুলিতে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা কমে গিয়েও ফের বাড়তে শুরু করেছে৷ তাই ঢিলেমি দিলে হবে না৷ যতদিন না পর্যন্ত করোনার ভ্যাকসিন আসছে, বিন্দুমাত্র গাছাড়া মনোভাব দেখানো চলবে না৷'

    করোনা ভ্যাকসিন নিয়েও দেশবাসীকে আশার কথা শুনিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী৷ তিনি বলেন, 'বহু বছর পর দেখা যাচ্ছে মানব সভ্যতাকে বাঁচাতে বিশ্বের বহু দেশ ঝাঁপিয়ে পড়েছে৷ ভারতেও করোনার একাধিক ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ অনেক দূর এগিয়ে গিয়েছে৷ করোনার ভ্যাকসিন বাজারে এলেই তা প্রত্যেক ভারতীয়ের কাছে কীভাবে দ্রুত পৌঁছে দেওয়া যায়, সেই পরিকল্পনা তৈরি হচ্ছে৷ রোগকে কখনও ছোট করে দেখা উচিত নয়৷ যতক্ষণ ওষুধ মিলছে না, ততক্ষণ কোনও ঢিলেমি নয়৷'

    দেশবাসীকে নবরাত্রি, দশেরা, ইদ, দীপাবলি, ছট পুজোর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী৷ একই সঙ্গে তিনি বলেন, 'উৎসব সময় আমাদের জীবনে আনন্দ এনে দেয়৷ কিন্তু এখন সামান্যতম গাফিলতি আমাদের অগ্রগতিকে থামিয়ে দিতে পারে৷ সতর্ক হয়ে থাকলেই জীবনে খুশি বজায় থাকবে৷ না হলে উৎসবের মধ্যেই অন্ধকার নেমে আসবে৷ আপনাদের আমি খুশি দেখতে চাই, এই উৎসবের মরশুম আপনাদের পরিবারে আনন্দ এবং সমৃদ্ধি নিয়ে আসুক, আমি এটা চাই৷ সেই কারণেই আপনাদের কাছে করজোড়ে এই অনুরোধ করছি৷'

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: