corona virus btn
corona virus btn
Loading

এক ধাক্কায় ৭২০ টাকা! ভাড়া বাড়ল হাওড়া থেকে দিল্লির স্পেশাল ট্রেনের

এক ধাক্কায় ৭২০ টাকা!  ভাড়া বাড়ল হাওড়া থেকে দিল্লির স্পেশাল ট্রেনের
বাড়ল বিশেষ ট্রেনের ভাড়া।

আই আর সি টি সি'র ওয়েবসাইট অনুযায়ী অতিরিক্ত ৭১৮ টাকা ভাড়া ডায়ানমিক ফেয়ার হিসেবে নেওয়া হয়েছে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: রাজধানী নয়। তবে রাজধানীর ধাঁচের ট্রেন। তাই ভাড়াও এবার রাজধানীর মতোই বাড়তে শুরু করল স্পেশাল ট্রেনে। যদিও রেলের তরফ থেকে জানানো হয়েছে প্রথম থেকেই ডায়ানমিক ফেয়ার নেওয়া হচ্ছে স্পেশাল ট্রেনে। যেহেতু এই ট্রেনে কোনও ক্যাটারিং ব্যবস্থা থাকছে না তাই তার মূল্য ছেড়ে রাখা আছে টিকিটের দামের সাথে।

তবে রবিবার থেকে যে টিকিট বিক্রির হার অনেকটাই বেশি। ফলে যাত্রীদের প্রশ্ন, এই লকডাউন পরিস্থিতিতে এত টাকা নেওয়া কি আদৌ যুক্তিযুক্ত?

হাওড়া থেকে নয়াদিল্লি স্পেশাল ট্রেনের প্রথম দিনের টিকিট সব বিকিয়ে গিয়েছিল মাত্র ৩ মিনিটে। যে ১৫ টি রুটে স্পেশাল ট্রেন চলছে সেগুলির প্রথম সাত দিনের টিকিট মাত্র ১ ঘন্টাতে বিকিয়ে গিয়েছিল। ফলে দীর্ঘ লকডাউনের জেরে যারা আটকে ছিলেন তাদের ফেরার কারণে টিকিটের চাহিদা হল প্রবল। আর এই ১৫টি রুটেই দৌড়ে বেড়ানো স্পেশাল ট্রেন এবার ডায়ানামিক ফেয়ারেই চলছে। ফলে প্রথম দিনে যে টিকিটের দাম ছিল, ছয় দিন পরে সেই টিকিটের দাম অনেকটাই বাড়ল।

হাওড়া থেকে নয়াদিল্লি এসি প্রথম শ্রেণির ভাড়া নেওয়া হয়েছে ৪৫৯৫ টাকা। দ্বিতীয় শ্রেণিতে যে ভাড়া নেওয়া হয়েছিল ২৭০০ টাকা। তৃতীয় শ্রেণি. যাতে সবচেয়ে বেশি মানুষ যাতায়াত করেন, তার ভাড়া নেওয়া হয়েছিল ১৯০০ টাকা। আজ থেকে এই তৃতীয় শ্রেণির ভাড়া বেড়ে হল ২৬২০ টাকা। অর্থাৎ ডায়ানমিক ফেয়ারের জন্য এক ধাক্কায় টিকিটের দাম বাড়ল ৭২০ টাকা।

আই আর সি টি সি'র ওয়েবসাইট অনুযায়ী অতিরিক্ত ৭১৮ টাকা ভাড়া ডায়ানমিক ফেয়ার হিসেবে নেওয়া হয়েছে।আজ থেকে ভাড়া বেড়েছে আরও বেশ কয়েকটা রুটে। দিল্লি থেকে পাটনা এসি স্পেশাল তৃতীয় শ্রেণীতে ছিল ভাড়া ১৫২০ টাকা। সেটা বেড়ে হল ২০৯০ টাকা। ফলে ভাড়া বাড়ল ৫৭০ টাকা। এভাবেই ডায়ানমিক ফেয়ারের জন্য ভাড়া বাড়ল রাজধানীর ধাঁচের এসি স্পেশালের  ট্রেনের তৃতীয় শ্রেণীতে।

সরাসরি রেলের ভাড়া বাড়াতে রাজি নয় কেন্দ্র। ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর দুরপাল্লার ট্রেনে সাময়িক ভাড়া বৃদ্ধি করা হলেও তার প্রভাব খুব একটা নেই। যদিও এই মুহূর্তে রেলের যা অপারেটিং রেশিও তাতে আয় ও ব্যায়ের মধ্যে সমতা রাখতে ভাড়া বাড়ানো জরুরি বলেই মনে করেন মন্ত্রকের আধিকারিকরা। সরাসরি ভাড়া বহুগুণ না বাড়ালেও ২০১৫ সালে রেল ডায়ানমিক ফেয়ার চালু করে দেয়। এর ফলে ট্রেনে প্রথম ১০ শতাংশ টিকিট বিক্রি হওয়ার পরে স্বয়ংক্রিয়ভাবে টিকিটের দাম বাড়তে থাকে, যার জেরে এসি ট্রেনের তৃতীয় শ্রেণির টিকিটের দাম বিমানের দামের সাথে তুল্যমুল্য হয়ে যায় অনেক সময়। অনেক সময় এই কারণে ট্রেনে কমেছে যাত্রী সংখ্যাও।

এখন যেহেতু বিমান পরিষেবা নেই, ১৫ টি রুটে যাতায়াতের জন্য ভরসা সেই এসি স্পেশাল ট্রেন তাই ডায়ানমিক ফেয়ারের ধাঁচে এবার বাড়ছে এসি স্পেশাল ট্রেনের ভাড়া। তবে লকডাউন পরিস্থিতিতে এই ভাড়ায় অসুবিধায় পড়েছেন যাত্রীরা। তবে রেলে জানাচ্ছে প্রথম থেকেই ট্রেনগুলিতে রাজধানী ধাঁচের ভাড়া নেওয়া হয়েছে। ডায়ানমিক ফেয়ার নেওয়া হবে তাও জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া যেহেতু কেউ বাইরে যাচ্ছেন না তাই খানিকটা বাধ্য হয়েই এই ভাড়ায় তাঁদের যেতে হচ্ছে।

Published by: Arka Deb
First published: May 17, 2020, 8:13 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर