corona virus btn
corona virus btn
Loading

বাজার থেকে উধাও আলু ! সুযোগ বুঝে কালোবাজারির অভিযোগ

বাজার থেকে উধাও আলু ! সুযোগ বুঝে কালোবাজারির অভিযোগ
Representational Image

শুক্রবার সকাল থেকেই ক্যানিং বাজারে সব থেকে বেশি প্রভাব পড়তে শুরু করেছে আলুর দামে।

  • Share this:

#ক্যানিং: করোনা আতঙ্কে বাড়ি থেকে লোকজনকে বাজার ঘাটে বের হতে নিষেধ করা হচ্ছে স্বাস্থ্য দফতরের তরফ থেকে। অপ্রয়োজনে বাড়ি থেকে যাতে মানুষজন বের না হন, তাহলেই করোনা ভাইরাস থেকে সংক্রমণের পরিমাণ অনেক কমে যাবে বলে দাবি করা হচ্ছে। আর সেই কারণে কয়েকদিনের নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য বাড়িতে মজুত করার হিড়িক লক্ষ্য করা যাচ্ছে ক্যানিং, বাসন্তী, গোসাবা এলাকায়। এরফলে নিত্য প্রয়োজনীয় বেশ কিছু দ্রব্যের দাম বাড়ার লক্ষণ দেখা গিয়েছে বাজারে। সব থেকে বেশি প্রভাব পড়েছে আলুর দামে।

শুক্রবার সকাল থেকেই ক্যানিং বাজারে সব থেকে বেশি প্রভাব পড়তে শুরু করেছে আলুর দামে। এদিন সকালে বাজার শুরু হওয়ার সময় ১৬ থেকে ১৮ টাকা কেজি দরে আলুর বিক্রি শুরু হয়। কিন্তু ধীরে ধীরে বাজারে ক্রেতারা ভিড় জমাতে থাকেন। নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মধ্যে অত্যন্ত প্রয়োজনীয় আলুর দোকানগুলিতে ভিড় জমাতে থাকেন ক্রেতারা। যারা দিনে ৫০০ গ্রাম বা ১ কেজি আলু কিনতেন তারা ৫ কেজি, ১০ কেজি করে আলু কিনতে শুরু করেন। কেউবা ৫০ কেজির বস্তা কিন্তু শুরু করেন। করোনার আতঙ্কের কারণেই যে হঠাৎ করে আলুর চাহিদা বেড়ে গিয়েছে বাজারে সেই বিষয়টি বুঝতে অসুবিধা হয়নি বিক্রেতাদের। সাথে সাথে তারাও আলুর দাম চড়াতে শুরু করেন।

শেষে ২৫ থেকে ২৭ টাকা কেজি দরে দাম ওঠে আলুর। ক্যানিং বাজারের  পাশাপাশি বাসন্তী ও গোসাবার বাজারগুলিতে ও এই প্রভাব লক্ষ্য করা যায়। তবে সেখানে কেজি প্রতি ২ থেকে ৩ টাকা দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। এদিন শুধু আলু নয়, পেঁয়াজ, আদা, রসুনের দাম ও কেজি প্রতি বেশ কিছুটা বেড়েছে ক্যানিং বাজারে। চালের দাম ও কেজি প্রতি ২ থেকে ৪ টাকা বেড়েছে। ক্রেতাদের দাবি করোনা আতঙ্কের জেরে আলু, পেঁয়াজ, চাল, ডাল কেনার জন্য হটাৎ চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় সেই সুযোগে কালো বাজারি শুরু হয়েছে। আচমকা জিনিষের দাম অনেকখানি বেড়ে গেলেও বেশিরভাগ ক্রেতাই সেই বাড়তি দাম দিয়ে এদিন আলু- -সহ অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য কিনছেন।

First published: March 21, 2020, 9:27 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर