হোম /খবর /করোনা ভাইরাস /
এই হাসপাতালেই জন্ম! পুলিশ দিবসে সেই হাসপাতাল সেনেটাইজার,মাস্ক বিলি পুলিশ কর্মীর

এই হাসপাতালেই জন্ম! পুলিশ দিবসে সেই হাসপাতাল সেনেটাইজার, মাস্ক তুলে দিলেন পুলিশ কর্মী বাপন

৪০ বছর আগে এই ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে জন্ম হয়েছিল বাপন দাসের। ইসলামপুরে পড়াশুনার শেষ করে কলকাতা পুলিশে কনষ্টেবলে চাকরি পান তিনি।

  • Last Updated :
  • Share this:

#ইসলামপুর: পুলিশ দিবসে ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে রোগীও তাদের আত্মীয়দের হাতে মাক্স ও স্যানিটাইজার তুলে দিলেন কলকাতা পুলিশের কনষ্টেবল বাপন দাস। এদিন ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালের বাইরে দাঁড়িয়ে রোগী এবং রোগীর পরিবারকে এই করোনা প্রতিরোধ সামগ্রী তুলে দেন তিনি।

৪০ বছর আগে এই ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে জন্ম হয়েছিল বাপন দাসের। ইসলামপুরে পড়াশুনার শেষ করে কলকাতা পুলিশে কনষ্টেবলে চাকরি পান তিনি। ছুটি পেলেই জন্মস্থান ইসলামপুর থানার হপ্তিয়াগজে পৈত্রিক ভিটেতে ছুটে আসেন বাপন। করোনা সংক্রামন ঠেকাতে দেশ জুড়ে লকডাউনের ফলে চরম সমস্যায় পড়েছিলেন গ্রামের মানুষজন।গ্রামের মানুষের মুখে দু’মোঠো ভাত তুলে দেওয়া থেকে রাস্তায় থাকা ভবঘুরে, অসহায় দরিদ্রদের খাদ্য সামগ্রী তুলে দিয়েছেন তিনি। কখনও আবার  করোনা সচেতনতায় গাড়ির চালকের মুখে পরিয়ে দিয়েছেন মাস্ক। তার পাশাপাশি গরীব অসহায় মানুষের জন্য বিনামূল্যে শাক, সবজি থেকে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী বাড়ি বাড়ি পৌছে দিয়েছেন বাপন ।

এবারে নিজের বাইককে সঙ্গী করে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার নিয়ে ছুটছেন এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। পুলিশ কর্মী বাপন দাস বলেন মাননীয় মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে সারা রাজ্যে পুলিশ দিবস পালন করা হচ্ছে। পুলিশ কর্মীরা সারা বছর মানুষের সেবা করে চলেছে। বিশেষ করে করোনার সময় একেবারে সামনের সারি থেকে কাজ করছেন তারা৷ বাপনের কথায়, আজ থেকে ৪০ বছর আগে ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে আমি জন্ম নিয়েছিলাম। তাই আজকে ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে রোগী ও তাদের আত্মীয় স্বজন যারা রয়েছেন তাদেরকে মাক্স ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে একটু সাহায্য করছি।

Published by:Pooja Basu
First published:

Tags: Coronavirus, North bengal news