Home /News /coronavirus-latest-news /
১০০০ মানুষ পিছু একটি ০.‌৭ টি বেড, কী হবে ভারতের?‌ করোনা নিয়ে কী আশঙ্কা মার্কিন গবেষণায়

১০০০ মানুষ পিছু একটি ০.‌৭ টি বেড, কী হবে ভারতের?‌ করোনা নিয়ে কী আশঙ্কা মার্কিন গবেষণায়

তবে করোনা অতিমারি যতদিন চলবে, এই সময়সূচি কার্যকর হওয়ার সম্ভাবনা কম৷ যতদিন করোনার দাপট থাকবে, যাত্রীদের জন্য বিশেষ ট্রেন চালানোর উপরেই জোর দেবে রেল৷ (AP Photo)

তবে করোনা অতিমারি যতদিন চলবে, এই সময়সূচি কার্যকর হওয়ার সম্ভাবনা কম৷ যতদিন করোনার দাপট থাকবে, যাত্রীদের জন্য বিশেষ ট্রেন চালানোর উপরেই জোর দেবে রেল৷ (AP Photo)

এরপর আরও পরীক্ষা হলে আক্রান্তের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেই মনে করছেন তাঁরা

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: মার্কিন গবেষকদের কথায় নতুন করে যেন বাড়ছে করোনা আতঙ্ক!‌ একদল মার্কিন গবেষক দাবি করেছেন, ভারতে করোনা ছড়িয়ে পড়ার ধরণটা অনেকটা আমেরিকার মতো। মার্কিন প্রদেশে যেভাবে করোনা ছড়িয়ে পড়েছে খুব ধীরে ধীরে, ভারতেও তেমন করে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। কিন্তু এই হার আর কদিন বাদেই থাকবে না। তখন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে থাকবে আক্রান্তের সংখ্যাটা। আর তাতেই পরিস্থিতি অত্যন্ত খারাপ হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

    COV-IND-19 ‌স্টাডি গ্রুপ গবেষক ও ডেটা সাইনস্টিস্টদের একটি দল গবেষণার পর জানিয়েছেন, ভারতে করোনা পরীক্ষার হার অত্যন্ত কম। এখনও পর্যন্ত মাত্র সাড়ে এগারো হাজার পরীক্ষা হয়েছে। সেই তুলনায় আক্রান্তের হার বেশি। তাই এরপর আরও পরীক্ষা হলে আক্রান্তের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেই মনে করছেন তাঁরা।

    এছাড়া, তাঁরা এও জানিয়েছেন যে, ভারতের গণস্বাস্থ্য ব্যবস্থা এমনিতেই সবসময় চাপে থাকে। এত মানুষকে পরিষেবা দেওয়া এককথায় অসম্ভব হয়ে পড়ে। তারপর যদি করোনা মহামারীর মতো ছড়িয়ে পড়ে, তাহলে সেটা আটকে রাখাই মুশকিল হয়ে যাবে। কারণ, ভারতের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার এত ধারণ ক্ষমতাই নেই। পরিসংখ্যানে দেখা গিয়েছে, ভারতে একহাজার মানুষ পিছু বেডের সংখ্যা রয়েছে মাত্র ০.‌৭টি। অন্যদিকে ফ্রান্সে রয়েছে ৬.‌৫টি, ১১.‌৫ টি দক্ষিণ কোরিয়ায়, চিনে ৪.‌২, ইতালিতে ৩.‌৪ টি। এই অনুপাত থাকলে কোথায় চিকিৎসা হবে মানুষের, প্রশ্ন সেটাই।

    এই সমস্ত কিছুর ওপর বিচার করেই তাঁরা বলেছেন, যদি আক্রান্তের সংখ্যা কমবেশি এই একই হারে বাড়তে থাকে তাহলে মে মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত এ দেশে করোনা আক্রান্ত হতে পারেন প্রায় ১৩ লক্ষ মানুষ। আর এই ১৩ লক্ষ মানুষের মধ্যে যাঁদের বয়স বেশি, তাঁদেরই আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা বেশি থাকছে।

    Published by:Uddalak Bhattacharya
    First published:

    Tags: Corona in india, Coronavirus, COVID-19

    পরবর্তী খবর