corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউন যেন আশীর্বাদ, সিউড়ির জাতীয় সড়ক সংলগ্ন এলাকাবাসীর কাছে

লকডাউন যেন আশীর্বাদ, সিউড়ির জাতীয় সড়ক সংলগ্ন এলাকাবাসীর কাছে

এই লকডাউন তাঁদের কাছে মুক্তি

  • Share this:

#সিউড়ি: লকডাউন চলাকালীন স্বস্তিতে রয়েছেন বীরভূমের সিউড়ির ১৪ নম্বর জাতীয় সড়ক লাগোয়া তিলপাড়া,  অরবিন্দপল্লী,  নতুনপল্লী,  লম্বোদরপুরের প্রায় দুই থেকে আড়াই হাজার বাসিন্দা। জাতীয় সড়কের জন্য প্রাণ ওষ্ঠাগত হয়েছিল তাদের। একেই জাতীয় সড়কের দুর্বিসহ অবস্থা আর তার পর ওই জাতীয় সড়কের উপর দিয়ে চলাচল করত দিনে কুড়ি থেকে ত্রিশ হাজার যানবাহন,   ধুলো বা ডাস্টে ঢেকে যেত তাদের বাড়িঘর,  রান্নাবান্না করে খাওয়াটাই সাংঘাতিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছিল ওই সমস্ত বাসিন্দাদের কাছে।

জাতীয় সড়ক লাগোয়া প্রচুর মানুষের মধ্যে দেখা দিয়েছিল শ্বাসকষ্টের উপসর্গ শুধুমাত্র জাতীয় সড়ক থেকে ধূলোর জন্য। বেশ কয়েকবার জাতীয় সড়ক অবরোধ করেছিলেন জাতীয় সড়ক লাগোয়া ওই সমস্ত এলাকার বাসিন্দারা। তবে এই লকডাউন টাই এখন আশীর্বাদ সিউড়ির জাতীয় সড়ক লাগোয়া বাসিন্দাদের কাছে। এক মাসেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ রয়েছে জাতীয় সড়কে যানবাহনে যাতায়াত,  হাতেগোনা কয়েকটি গাড়ি যাতায়াত করলেও তাতে সমস্যা নেই। ঝড়ঝড়ে সুন্দর ধুলোহীন পরিবেশ এখানে। তাই লকডাউন চলুক বলছেন অনেক বাসিন্দারা আবার অনেকের দাবি লকডাউন উঠে গেলে জাতীয় সড়ক মেরামত না করলে পুনরায় সেই একই সমস্যা দেখা দেবে। উল্লেখ্য বর্তমানে নতুন নামকরনে 14 নম্বর জাতীয় সড়ক ( আগে ছিল NH 60) মুর্শিদাবাদের মোড়গ্রাম থেকে নলহাটি রামপুরহাট হয়ে সিউড়ির ওপর দিয়ে এই জাতীয় সড়ক চলে যাচ্ছে মেদিনীপুর পর্যন্ত। এই জাতীয় সড়কের ওপর মল্লারপুর থেকে সদাইপুর থানা এলাকার কচুজোর পুরোটাই খারাপ,  যার মধ্যে পড়ছে সিউড়ি শহরের একটা বড় অংশ। এই রাস্তার ওপর যানবাহন গেলে পড়ে ধুলোর জেরে প্রাণ ওষ্ঠাগত জাতীয় সড়কের ধারে বসবাসকারী বাসিন্দাদের তবেই লকডাউচলা কালীন নেই সেই ধুলো।

Supratim Das

First published: May 3, 2020, 2:59 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर