করোনা কাঁটায় খাঁ খাঁ করছে ম্যাল-চৌরাস্তা, নিস্তব্ধ শৈলশহর দার্জিলিং

করোনা কাঁটায় খাঁ খাঁ করছে ম্যাল-চৌরাস্তা, নিস্তব্ধ শৈলশহর দার্জিলিং
পাহাড় ছাড়ছেন পর্যটকরা

বুধবারই গোর্খাল্যাণ্ড টেরিটোরিয়াল এডমিনিস্ট্রেশনের (জিটিএ) চেয়ারম্যান অনীত থাপা ঘোষণা করেছেন, আজ থেকে পাহাড়ে নতুন করে পর্যটক আর নয়। সব হোটেল বুকিং বাতিল।

  • Share this:

দেশ জুড়েই দ্রুত ছড়াচ্ছে করোনা। বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। রাজ্যেও কড়া সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এক এক করে পাহাড় ছাড়ছেন দেশ বিদেশের পর্যটকেরা। কার্যত পর্যটকশূন্য পাহাড়। খাঁ খাঁ করছে ম্যাল, চৌরাস্তা।

বুধবারই গোর্খাল্যাণ্ড টেরিটোরিয়াল এডমিনিস্ট্রেশনের (জিটিএ) চেয়ারম্যান অনীত থাপা ঘোষণা করেছেন, আজ থেকে পাহাড়ে নতুন করে পর্যটক আর নয়। সব হোটেল বুকিং বাতিল। আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত তা কার্যকরী থাকবে। আজ পাহাড়ে ওঠার বিভিন্ন জায়গায় হেলথ স্ক্রিনিংয়ের কড়াকড়ি করা হয়েছে। জিটিএ'র চেয়ারম্যান অনীত থাপা নিজেই বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শনে যান। তিনি বলেন, "দার্জিলিংকে বাঁচাতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছ। বিমান এবং ট্রেনের টিকিট না থাকায় কিছু পর্যটক এখনও পাহাড়ে রয়েছেন। শনিবারের মধ্যে তারাও ফিরে যাবেন। "

বেশ কিছু বিদেশি পর্যটকও এই মূহূর্তে রয়েছেন পাহাড়ে। অনেকেই গতকাল এসছেন পাহাড়ে। বিকেলে জিটিএ'র ঘোষণার পরই পাহাড় ছাড়ার হিড়িক পরে গিয়েছে। তবে অযথা আতঙ্কিত না হয়ে সকলকেই সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন জিটিএ'র চেয়ারম্যান। তিনি এও জানান, অনেক পর্যটক বেড়াতে আসছেন না নিজে থেকেই। পাহাড় বেড়াতে এসেও ঘুরতে না পেয়ে অনেক পর্যটকের মন খারাপ হলেও করোনা আতঙ্কে বেশ সতর্ক। জিটিএ'র সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন পর্যটকেরা।

কলকাতা থেকে আসা চৈতালি সেন জানান, দেশ জুড়েই করোনা সতর্কতা জারি করা হয়েছে। তাই পাহাড় থেকে নেমে পড়ছি। এই সময় সতর্ক থাকাই শ্রেয়। আজও কিছু পর্যটক পাহাড়ের পথে উঠেছেন। কেননা আগে থেকেই বুকিং ছিল। আচমকা বুকিং বাতিল করার খবরে অনেকেই দ্বিধাগ্রস্থ। অন্যদিকে কালিম্পংয়েও বন দপ্তরের একাধিক পার্ক আজ থেকেই বন্ধ। পাহাড় জুড়ে ১০ জনের বেশি এক জায়গায় জমায়েতের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

First published: March 19, 2020, 5:32 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर