corona virus btn
corona virus btn
Loading

দৈব ওষুধে দূর হবে করোনা ! গুজবে মাটি খোঁড়ার হিড়িক দক্ষিণবঙ্গের গ্রামে গ্রামে 

দৈব ওষুধে দূর হবে করোনা ! গুজবে মাটি খোঁড়ার হিড়িক দক্ষিণবঙ্গের গ্রামে গ্রামে 

কয়লা মিললে পরিবারের মহিলারা উলুধ্বনি দিচ্ছেন। শাঁখ বাজাচ্ছেন। এরপর নদী বা জলাশয়ে গিয়ে সেই কয়লা জলে গুলে গায়ে মাখছেন।

  • Share this:

#বর্ধমান: মাটি খুঁড়লে মিলবে কয়লা। সেই কয়লা নদীর জলে গুলে গায়ে মাখলেই দূরে থাকবে করোনা। মুক্তি মিলবে এই মারণ ভাইরাস থেকে। এই গুজবেই শনিবার সকাল থেকে তোলপাড় দক্ষিণবঙ্গের বিস্তীর্ণ এলাকা।  বর্ধমান, হুগলি, মেদিনীপুরের গ্রামে গ্রামে কয়লা খোঁড়ার হিড়িক পড়ে গিয়েছে। শুরু হয়েছে বিশেষ পুজো। কয়লা মিললে পরিবারের মহিলারা উলুধ্বনি দিচ্ছেন। শাঁখ বাজাচ্ছেন। এরপর নদী বা জলাশয়ে গিয়ে সেই কয়লা জলে গুলে গায়ে মাখছেন। তাদের বিশ্বাস, এই দৈব ওষুধ গায়ে মাখলেই করোনা থেকে মুক্তি মিলবে।

সকাল থেকেই জোর গুজব। বাড়ির ঈশান কোনে বাইরের  দরজার পাশে মাটি খুঁড়লেই মিলবে কাঠ কয়লা। নদী থেকে জল এনে তাতে সেই কয়লা গুলে গায়ে মাখলে করোনা থেকে মুক্তি মিলবে। হুগলির আরামবাগ মহকুমার পূর্ব হরিপুর, বাছানড়ি, কাবলে, মায়াপুর সহ সব গ্রামেই মাটি খুঁড়ে কয়লা বের করার হিড়িক পড়ে গিয়েছে। উলু শঙ্খধ্বনি চলছে। খঞ্জনি খোল কত্তাল নিয়ে বেরিয়ে পড়েছেন অনেকে।

জানা গিয়েছে, চন্দননগর থেকে কিছু গ্রামবাসীর মোবাইলে ফোন যায়। তাতেই করোনা মুক্তির এই দাওয়াই দেওয়া হয়। বলা হয়, এটি বাবা তারকনাথের ওষুধ। আবার কোথাও বলা হচ্ছে, পুরীর জগন্নাথ মন্দিরের ধ্বজা পুড়ে গিয়েছে। এই কাঠ কয়লা তারই অংশ। অনেক গ্রামে বাড়ির বাইরে কয়লার টুকরো পাওয়া যাচ্ছে। মুন্ডেশ্বরী, দ্বারকেশ্বর, রূপনারায়ণের তীরে গিয়ে কয়লা গুলে গায়ে মাখা হচ্ছে।

সব মিলিয়ে কৃষিকাজ, নাওয়া খাওয়া ভুলে কয়লার খোঁজে কোদাল নিয়ে মাটি খুঁড়তে ব্যস্ত অনেকেই। অনেক জায়গায় আবার বাড়ির সামনে মাটির ওপরেই মিলছে কয়লা। কয়লা গুলে করোনা তাড়ানোর গুজব মোবাইল ফোনে ছুটছে গ্রামে গ্রামে জেলায় জেলায়। অনেকেই বুঝছেন, এর কোনও বিজ্ঞান সম্মত ভিত্তি নেই। তবু কয়লা গুলে গায়ে মাখছেন, ফোঁটা নিচ্ছেন অনেকেই।

যদিও বিজ্ঞান মঞ্চের সদস্যরা বলছেন, নিছকই রটনা। কেউ বা কারা এই গুজব ছড়িয়েছে। কোনও কোনও গ্রামে আগাম পরিকল্পনা করে কয়লা বাড়ির সামনে রেখে আসা হতে পারে। অনেক গ্রামেই এখনও বাড়িতে বাড়িতে কাঠের জ্বালে রান্না হয়। তাই মাটি খুঁড়লে পোড়া কাঠের টুকরো বা ছাই মাটি পাওয়া স্বাভাবিক ঘটনা। তাই এখন এসব গুজবে কান না দিয়ে সচেতন ও সতর্ক থাকা দরকার। করোনা ঠেকাতে সরকারের পরামর্শগুলি মেনে চলা উচিত।

Saradindu Ghosh

First published: March 21, 2020, 9:57 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर