করোনা ভাইরাস

corona virus btn
corona virus btn
Loading

নেওয়ার পর থেকেই প্রচণ্ড মাথাব্যথা, হ্যাংওভার আর মাসল পেইন! কোন দিকে এগোচ্ছে করোনার Pfizer ভ্যাকসিনের ট্রায়াল?

নেওয়ার পর থেকেই প্রচণ্ড মাথাব্যথা, হ্যাংওভার আর মাসল পেইন! কোন দিকে এগোচ্ছে করোনার Pfizer ভ্যাকসিনের ট্রায়াল?
Representative Image

এই ভ্যাকসিন ও শরীরে তার পরবর্তী প্রতিক্রিয়া নিয়ে ইতিমধ্যেই নানা খবর সামনে এসেছে।

  • Share this:

ছোটবেলায় আমরা অনেকেই নানা ভ্যাকসিন নিয়েছি। বড় হয়েও বিপদে পড়ে নানা কারণে ভ্যাকসিন নিতে হয়। সাধারণত কোনও ভ্যাকসিন নেওয়ার পর ব্যথা হয়। অল্পবিস্তর জ্বর আসে। তবে এ ক্ষেত্রে করোনারোধী ভ্যাকসিন নেওয়া স্বেচ্ছাসেবকেরা হ্যাংওভারে রয়েছেন। রয়েছে প্রচণ্ড মাথাব্যথা আর মাসল পেইনও। শুনে খানিক চমকে উঠলেও, এটাই সত্যি। এই সব কিছুর নেপথ্যে রয়েছে Pfizer ভ্যাকসিন।

এই ভ্যাকসিন ও শরীরে তার পরবর্তী প্রতিক্রিয়া নিয়ে ইতিমধ্যেই নানা খবর সামনে এসেছে। বেশ কয়েকটি প্রতিবেদন সূত্রে খবর, পাইজার নামে এই ফ্লু ভ্যাকসিন ট্রায়ালে যাঁরা অংশগ্রহণ করেছিলেন, তাঁদের প্রায় অনেকেই একই সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন। ভ্যাকসিন নেওয়ার পর দেখা গিয়েছে, অসম্ভব হেডেক, পেশিতে ব্যথা অনুভূত হচ্ছে। পরের দিকে জ্বরও এসেছে। এ বিষয়ে ৪৫ বছরের এক সাংবাদিক জানাচ্ছেন এই Pfizer ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নেওয়ার পর তেমন কিছু না হলেও দ্বিতীয়বার একাধিক পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে। অন্য এক অংশগ্রহণকারী জানাচ্ছেন, ভ্যাকসিনটি নেওয়ার পর একটা মারাত্মক হ্যাংওভারে ভুগতে শুরু করেন তিনি। তবে এই উপসর্গ বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কার করার লক্ষ্যে American Pharmaceutical Behemoth Pfizer ও জার্মানের ফার্মা BioNtech-র যৌথ উদ্যোগে এই পাইজার ভ্যাকসিনের ট্রায়াল চলছে। ছ'টি দেশের ৪৩,৫০০-এর বেশি মানুষ অংশগ্রহণ করেছেন এই ট্রায়ালে। ইতিমধ্যেই ৮ নভেম্বর প্রায় ৩৮,৯৫৫ জনকে সেকেন্ড ডোজও দেওয়া হয়ে গিয়েছে। কিন্তু অনেকের ক্ষেত্রে ভ্যাকসিনের এই হ্যাংওভার এফেক্ট চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, একটি ডবল ব্লাইন্ড মেথড ব্যবহার করে mRNA Pfizer ও BioNtech BNT162b2 ভ্যাকসিনের এই ট্রায়াল শুরু করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই এটি অনেকাংশে সফল। তবে কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে এখনও গবেষণা চলছে। যদিও এটি কোনও গুরুতর চিন্তার বিষয় নয় বলেই দাবি করছেন গবেষকরা।

বলা বাহুল্য, ভ্যাকসিন তৈরির এই দৌড়ে পিছিয়ে নেই অন্য দেশগুলিও। এ বছরের অক্টোবরে হায়দরাবাদের রেড্ডি ল্যাবের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে Sputnik V ভ্যাকসিন তৈরির কাজ করছে রাশিয়া। অন্য দিকে ব্রিটিশ-সুইডিস কোম্পানি AstraZeneca সেরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়ার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে একটি ভ্যাকসিন তৈরি করার চেষ্টা করছে।

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: November 12, 2020, 7:28 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर