corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউনে রাস্তায় অকারণে! পুলিশের চোখে ধুলো দিতে গাড়িতে  'ভুয়ো' স্টিকারের ছড়াছড়ি

লকডাউনে রাস্তায় অকারণে! পুলিশের চোখে ধুলো দিতে গাড়িতে  'ভুয়ো' স্টিকারের ছড়াছড়ি

প্রসঙ্গত করোনা পরিস্থিতিতে কার্যত 'রেড জোন' হিসেবে চিহ্নিত এলাকা গুলির মধ্যে অন্যতম বেলগাছিয়া। সেই কারণেই মঙ্গলবার সকাল থেকেই দেখা গেছে পুলিশের বাড়তি তৎপরতা ।

  • Share this:

#কলকাতা:  লকডাউনের  সময় অনেকেই বিনা কারণে  রাস্তায় নামছেন।  চারচাকা কিম্বা দু’চাকার যানবাহনে অনেকেই  ভুয়ো 'EMERGENCY SERVICE' স্টিকার লাগিয়ে পার পাওয়ার চেষ্টা করছেন। কেউ বলছেন হাসপাতালে যাচ্ছেন। আবার কেউ নিজেদের ব্যাঙ্ক কর্মী পরিচয় দিচ্ছেন। তবে গাড়িতে  'EMERGENCY' কিম্বা জরুরি পরিষেবার জন্য স্টিকার লাগালেই যে রাস্তায় গাড়ি চলাচলের ছাড় পাওয়া যাবে এমন নয়। জরুরি কাজের  প্রয়োজনীয়তা খতিয়ে দেখতে বেলগাছিয়ায়  চোখে পড়ল নাকা চেকিংয়ের সময় বাড়তি তৎপরতা।

উল্টোডাঙ্গা পুলিশের অধীনে থাকা ট্রাফিক গার্ডের তরফ থেকে রাস্তায় রাস্তায় নাকা চেকিংয়ের সময় দেখা গেল সমস্ত যানবাহনকে দাঁড় করিয়ে চালকের কাছ থেকে বিস্তারিত তথ্য এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র খতিয়ে দেখতে। 'ব্যাঙ্ক  অন  ডিউটি', চিকিৎসকের 'লোগো' লাগানো গাড়ি,  রোগীর গাড়ি', 'মুদিখানার গাড়ি', 'এমারজেন্সি'--  এই ধরনের বিভিন্ন ধরনের গাড়িতে সাঁটানো পোস্টারের পাশাপাশি সরকারি দফতরের বোর্ড লাগানো গাড়িতেও  চালান হল নজরদারি।

জরুরী কাজের নির্দিষ্ট প্রয়োজনীয় কাগজপত্র কিম্বা চালকের পরিচয় পত্র ছাড়া রাস্তায় চলাচলে কোনও যানবাহনকেই ছাড় দেওয়া  হচ্ছে না। সত্যিই প্রয়োজনের তাগিদে মানুষ রাস্তায় নেমেছেন ? নাকি কোন প্রয়োজন ছাড়াই যানবাহন নিয়ে রাস্তাঘাটে 'এমারজেন্সি স্টিকার' লাগিয়ে ঘোরাফেরা করছেন মানুষজন ? তা খতিয়ে দেখতে লাগাতার অভিযান চালায় পুলিশ।  চেকিংয়ে অনেকেই অহেতুক এমারজেন্সি স্টিকার লাগিয়ে রাস্তায় নেমেছেন এমন ছবিও মঙ্গলবার ধরা পড়ে। কতটা জরুরী প্রয়োজনে মানুষজন যানবাহন নিয়ে রাস্তায় নেমেছেন? তা খতিয়ে দেখতে নির্দিষ্ট কাগজপত্র এবং গাড়ি চালকের পরিচয় পত্র ছাড়া রাস্তায় নামায় অনেক যানবাহনকেই বাড়ি ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয়। যেমন, 'পাবলিক ডিস্ট্রিবিউশন সিস্টেম' লেখা একটি চার চাকার গাড়িতে  'অন ডিউটি' কাগজ সেঁটে পুলিশের অভিযানের সময় কর্তব্যরত পুলিশ কর্মীরা ওই গাড়ির চালকের কাছ থেকে কোনও রকম জরুরী প্রয়োজনের সদুত্তর না পেয়ে সেই গাড়ি থেকে  স্টিকার খুলিয়ে চালককে সতর্ক করে গাড়ি ফেরত পাঠিয়ে দেন  উল্টোডাঙ্গা থানার অধীনস্থ  ট্রাফিক গার্ডের  পুলিশকর্মীরা।

এই ধরনের অনেক গাড়িকেই এদিন দেখা গেল বেলগাছিয়ার রাস্তায় চলাচল করতে। কলকাতা পুলিশের এক পদস্থ কর্তা বলেন, 'মানুষের অজুহাত শুনতে শুনতে হাঁপিয়ে উঠেছি। প্রয়োজন ছাড়া অনেকেই রাস্তায় বের হচ্ছেন। তবে আমরা কঠোরভাবে  নজরদারি চালাচ্ছি'। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দেন ওই পুলিশকর্তা।

প্রসঙ্গত করোনা পরিস্থিতিতে কার্যত 'রেড জোন' হিসেবে চিহ্নিত এলাকা গুলির মধ্যে অন্যতম বেলগাছিয়া। সেই কারণেই মঙ্গলবার সকাল থেকেই  দেখা গেছে পুলিশের বাড়তি তৎপরতা । যদিও সামাজিক দূরত্বকে কার্যত বুড়ো আঙুল দেখিয়ে বিভিন্ন বাজারে বিকিকিনিতে মঙ্গলবার জমজমাট ছবি ধরা পড়ে শহরের বিভিন্ন প্রান্তে। লক্ষ্য করা যায় জটলাও। সোমবার স্বাস্থ্য দফতরের নির্দেশে এই এলাকারই একটি উর্দু স্কুলে হয়েছে স্থানীয় কয়েকজনের রক্তের নমুনা নিয়ে  র‍্যাপিড টেস্ট। করোনা পরিস্থিতি নিয়ে যখন বিভিন্ন মহল থেকে সচেতনতার  কথা বারবারই  বলা হচ্ছে। এলাকায় এলাকায় ক্রমাগত মাইকিং চলছে। তখন 'রেড জোন' হিসেবে চিহ্নিত বেলগাছিয়া আছে বেলগাছিয়াতেই। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের মত অসচেতনতার ছবিটা স্পষ্ট এখানেও।

Published by: Pooja Basu
First published: April 21, 2020, 3:14 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर