দিল্লির অর্ধেকেরও বেশি মানুষের শরীরে তৈরি হয়েছে করোনার অ্যান্টিবডি, জানাচ্ছে পঞ্চম সেরো সার্ভে

দিল্লির অর্ধেকেরও বেশি মানুষের শরীরে তৈরি হয়েছে করোনার অ্যান্টিবডি, জানাচ্ছে পঞ্চম সেরো সার্ভে
Photo-Representative

দিল্লিতে এ নিয়ে পঞ্চম বারের মতো সেরোলজিক্যাল সার্ভে চালানো হলো। সার্ভের রিপোর্টে বলা হয়েছে, অন্তত ৫৬.১৩ শতাংশ মানুষের দেহে করোনার অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে ।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি:  রাজধানী দিল্লির অর্ধেকেরও বেশি মানুষের শরীরে করোনার অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে। সম্প্রতি দিল্লিতে সেরোলজিক্যাল সার্ভের রিপোর্টে উঠে এসেছে এমন তথ্য। দিল্লিতে এ নিয়ে পঞ্চম বারের মতো সেরোলজিক্যাল সার্ভে চালানো হলো। সার্ভের রিপোর্টে বলা হয়েছে, অন্তত ৫৬.১৩ শতাংশ মানুষের দেহে করোনার অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে। অর্থাৎ, ২ কোটি জনসংখ্যার দিল্লি ক্রমেই করেনার বিরুদ্ধে হার্ড ইমিউনিটির দিকে এগোচ্ছে।

    দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন জানিয়েছেন, উত্তর দিল্লির বাসিন্দাদের মধ্যে অ্যান্টিবডি তৈরির হার কম। সেখানে ৪৯ শতাংশ বাসিন্দার শরীরে অ্যান্টিবডি পাওয়া গিয়েছে। অপরদিকে দক্ষিণ–পূর্ব দিল্লিতে ৬২.১৮ শতাংশ বাসিন্দার শরীরে অ্যান্টিবডি মিলেছে। দিল্লিতে প্রথম সেরো সার্ভে করা হয়েছিল ২৭ জুন থেকে ১০ জুলাইয়ের মধ্যে। দিল্লি সরকারের পাশাপাশি এই কাজে সাহায্য করেছিল ন্যাশনাল সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল। ২১ হাজার ৩৮৭ জনের মধ্যে করা সেই সার্ভেতে দেখা গিয়েছিল ২৩ শতাংশ মানুষের মধ্যে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে।


    সর্বশেষ সার্ভে চালানো হয় ১৫ থেকে ২৩ জানুয়ারির মধ্যে। এতে ২৮ হাজার জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এতে দিল্লির অর্ধেকেরও বেশি মানুষের শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরির তথ্য উঠে আসে। ভাইরাস সংক্রমণের পরে অ্যান্টিবডি তৈরি হওয়ায় অনেকের মধ্যেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়ে যায়। ফলে তারা হার্ড ইমিউনিটির অন্তর্ভুক্ত হয়ে যান।

    প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার দেখা যায়,শেষ ২৪ ঘণ্টায় গোটা দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা মাত্র ৮,৬৩৫৷ কেন্দ্রীয় সরকারের প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, দৈনিক সংক্রমণের নিরিখে গত আট মাসের মধ্যে যা সর্বনিম্ন৷ গত বছর ২ জুন একদিনে দেশে নতুন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৮১৬১৷ তার পর গত ২৪ ঘণ্টাতেই তা এতটা কমল৷ গোটা পৃথিবীর মধ্যে ভারতেই সবথেকে দ্রুত গতিতে করোনার টিকাকরণের কাজ চলছে৷ রবিবার মন কি বাত- এ এমনই দাবি করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, গত ১৬ জানুয়ারি থেকে টিকাকরণ শুরু হওয়ার পর এখনও পর্যন্ত ৩৯ লক্ষ মানুষ করোনার টিকা পেয়েছেন৷

    Published by:Simli Dasgupta
    First published: