corona virus btn
corona virus btn
Loading

#Exclusive: সামাজিক জমায়েত এড়িয়ে চলুন, নিজেকে বাঁচান, একাধিক সচেতনতার পোস্টার শহরজুড়ে

#Exclusive: সামাজিক জমায়েত এড়িয়ে চলুন, নিজেকে বাঁচান, একাধিক সচেতনতার পোস্টার শহরজুড়ে

সরকারের পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনেরা এগিয়ে আসায় করোনা মোকাবিলায় গতি আসবে

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: করোনার দাপট ক্রমেই বাড়ছে রাজ্যে। উত্তরবঙ্গেও ছড়িয়েছে মারণ করোনা। আর তাই স্বাভাবিকভাবেই সর্বত্রই আতঙ্কিত স্থানীয় বাসিন্দারা। প্রতি মূহূর্তেই প্রশাসন করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে চলেছে, অযথা আতঙ্কিত না হওয়ারও পরামর্শ দিচ্ছে । কেন্দ্র ও রাজ্যের আর্জিতে গোটা দেশই আজ ঘরবন্দি। তবুও একটা অংশ মানছে কোথায়? অযথা রাস্তায় বের হচ্ছেন। অজান্তেই যে রোগ বহন করে ঘরে ফিরছেন কি না তাও অজানা। এখনও বিশ্ব করোনামুক্ত হয়নি।

দেশেও লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা । ইতিমধ্যেই দেশে আরও দু'সপ্তাহ লকডাউন বর্ধিত করার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্র । রাজ্য সরকারও তৎপর। ইতিমধ্যেই জোন বাছাই করা হয়েছে। গ্রিন, অরেঞ্জ এবং রেড এই তিন জোনে ভাগ করা হয়েছে রাজ্যের বিভিন্ন জেলাকে। দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি এবং মালদহ উত্তরের এই চার জেলাকে রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করেছে কেন্দ্র। কেন্দ্রের নির্দেশিকা মেনে সাধারণ বাসিন্দাদের সচেতন করতে এগিয়ে এসেছে শিলিগুড়ির তরুণেরা।

করোনা সচেতনতা প্রচারে নেমেছেন তারা। কী করবেন ? আর কী করবেন না সম্বলিত পোস্টার নিয়ে পথে বেড়িয়ে পড়েছেন। বিভিন্ন পাড়ায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন। পোস্টার সাঁটিয়ে দিচ্ছেন। যেখানে লেখা রয়েছে "জ্বর, সর্দি এবং কাশি হলেই করোনা নয়। চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।" "সামাজিক জমায়েত এড়িয়ে চলুন। নিজেকে বাঁচান। নিজের পরিবারকে বাঁচান। নিজের রাজ্য এবং দেশকে বাঁচান।" আবার কোনও পোস্টারে লেখা "বাইরে বের হলে মাস্ক বা ফেস কভার পরে বের হন।" "বাইরে থেকে বাড়িতে ফিরলে ভাল ভাবে সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নিন।" এই ধরনের সচেতনতামূলক পোস্টার শহরের একাধিক ওয়ার্ড। তরুণদের এই উদ্যোগের পক্ষে রনি রাহা জানিয়েছেন, ধাপে ধাপে প্রতিটি ওয়ার্ডেই বাড়ি বাড়ি গিয়ে পোস্টারের মাধ্যমে প্রচার করা হবে।

শহরবাসীকে করোনা নিয়ে সচেতন করাই লক্ষ্য। অযথা আতঙ্কিত না হওয়ারই পরামর্শ। সরকারের পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনেরা এগিয়ে আসায় করোনা মোকাবিলায় গতি আসবে বলেই মনে করা হচ্ছে ।

Partha Pratim Sarkar

First published: May 3, 2020, 9:55 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर