corona virus btn
corona virus btn
Loading

শহরে পুলিশকর্মীদের মধ্যে ছড়াচ্ছে সংক্রমণ, করোনায় আক্রান্ত কলকাতার আরও একটি থানার ওসি

শহরে পুলিশকর্মীদের মধ্যে ছড়াচ্ছে সংক্রমণ, করোনায় আক্রান্ত কলকাতার আরও একটি থানার ওসি

এই ওসি বৌবাজার থানায় কাদের সংস্পর্শে এসেছিলেন, তা খতিয়ে দেখে প্রত্যেককে কোয়ারেন্টাইন করা হবে বলে জানা গিয়েছে। এ নিয়ে এখনও পর্যন্ত আট জন পুলিশকর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

  • Share this:

#কলকাতা: এবার নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হলেন কলকাতার বউবাজার থানার ওসি। বুধবার সকালে তাকে ইএম বাইপাসের পাশে ডিসান হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই হাসপাতালটি করোনা হাসপাতাল হিসেবে চিহ্নিত। কলকাতা পুলিশের এই শীর্ষ আধিকারিক কিভাবে করোনা আক্রান্ত হলেন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে গত চার দিন ধরেই তার জ্বর, কাশি,মাথা ধরা ছিল। এরপর বেলেঘাটা নাইসেডে লালা রস পরীক্ষা করলে দেখা যায় করোনা পজিটিভ। এই ওসি বৌবাজার থানায় কাদের সংস্পর্শে এসেছিলেন, তা খতিয়ে দেখে প্রত্যেককে কোয়ারেন্টাইন করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

কলকাতার পুলিশ মহলে প্রথম বন্দর এলাকার গার্ডেনরিচ থানার ওসি নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন। বেশ কয়েকদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর তিনি বর্তমানে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এরপর রবিবার সায়েন্স সিটির পাশে প্রগতি ময়দান থানার ওসি করোনা আক্রান্ত হন।

অন্যদিকে, উত্তর কলকাতার জোড়াবাগান ট্রাফিক গার্ডের এক সার্জেন্ট করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর মঙ্গলবারই গোটা ট্র্যাফিক গার্ড বন্ধ করে জীবাণুমুক্ত করা হয়। জোড়াবাগান ট্রাফিক গার্ডকে কনটেইনমেন্ট এলাকা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এর আগে বড়তলা থানার একাধিক পুলিশ কর্মীও করোনা আক্রান্ত হন বলে জানা যায়।

পরপর বিভিন্ন থানার শীর্ষ আধিকারিকরা করোনা আক্রান্ত হওয়ায় নিচুতলার পুলিশ কর্মীদের মধ্যে যথেষ্টই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। তবে কলকাতা পুলিশের যুগ্ম নগরপাল (সদর) শুভঙ্কর সিনহা বলেন, “ওই ওসির করোনা রিপোর্ট পজিটিভ। এ নিয়ে এখনও পর্যন্ত আট জন পুলিশকর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। থানা-ট্রাফিক গার্ডগুলিতে নিয়মিত জীবাণুমুক্ত করার প্রক্রিয়া চলছে।”

করোনা মোকাবিলায় চিকিৎসক, নার্স,স্বাস্থ্যকর্মীদের সঙ্গে লকডাউন মোকাবিলায় দিনরাত কাজ করছেন পুলিশকর্মীরা। এ ছাড়া হাসপাতালের ডিউটি থেকে শুরু করে নাকা চেকিং, আইনশৃঙ্খলার বজায় রাখার কাজে অনেকের সংস্পর্শেই আসতে হচ্ছে পুলিশ কর্মীদের। ফলে ঝুঁকির পরিমাণ অনেকটাই বেড়েছে। সে কারণে সব পুলিশ কর্মীকে ডিউটির সময় ঘন ঘন হাত স্যানিটাইজ করতে বলা হচ্ছে। সব রকম সুরক্ষা নিয়ে তাদের কাজ করতে বলা হচ্ছে। পর্যাপ্ত মাস্ক,গ্লাভস এর যোগান রয়েছে বলে জানিয়েছে কলকাতা পুলিশের শীর্ষ কর্তারা। সেই সঙ্গে থানা, ট্রাফিক গার্ডে জীবাণুনাশক স্প্রে করাও হচ্ছে। তারপরেও পুলিশ বাহিনীর মধ্যে অনেকেই করোনা আক্রান্ত হয়ে যাচ্ছেন। তা নিয়ে পুলিশকর্তাদের পাশাপাশি উদ্বেগে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরও।

Avijit Chanda

Published by: Elina Datta
First published: May 6, 2020, 6:55 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर