corona virus btn
corona virus btn
Loading

বাড়ছে উদ্বেগ, চার দিনেই পূর্ব বর্ধমানে তিনগুণ বাড়ল কন্টেইনমেন্ট জোনের সংখ্যা !

বাড়ছে উদ্বেগ, চার দিনেই পূর্ব বর্ধমানে তিনগুণ বাড়ল কন্টেইনমেন্ট জোনের সংখ্যা !

কন্টেইনমেন্ট জোনের পরিধি বাড়ানোর কথাও ভাবছে জেলা প্রশাসন।

  • Share this:

#বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলায় ১৭টি কন্টেইনমেন্ট জোন নিয়ে বৃহস্পতিবার থেকে নতুন করে কড়াকড়ি লকডাউন শুরু হয়েছিল। চার দিনেই সেই কন্টেইনমেন্ট জোনের সংখ্যা তিনগুণ বেড়ে গেল। মঙ্গলবার পর্যন্ত পূর্ব বর্ধমান জেলায় ৫২টি এলাকাকে কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করে সেখানে করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউন করা হচ্ছে। যথাযথভাবে যাতে লকডাউন পালিত হয় তা নিশ্চিত করতে পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন। কন্টেইনমেন্ট জোনের পরিধি বাড়ানোর কথাও ভাবছে জেলা প্রশাসন।

পূর্ব বর্ধমান জেলায় ৫২টি কন্টেইনমেন্ট জোনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি কন্টেইনমেন্ট জোন রয়েছে জেলার সদর শহর বর্ধমান শহরে। এই শহরে পাঁচটি এলাকায় কন্টেইনমেন্ট জোন ঘোষণা করে লকডাউন চালানো হচ্ছে। এছাড়া বর্ধমান শহর লাগোয়া বর্ধমান এক নম্বর ব্লক এলাকায় একটি, বর্ধমান দু’নম্বর ব্লক এলাকাতেও একটি জায়গায় কন্টেইনমেন্ট জোন রয়েছে। শহর এলাকাগুলির মধ্যে কালনা পুরসভা এলাকায় একটি, কাটোয়া পুরসভা এলাকায় দুটি, মেমারি পুরসভা এলাকায় একটি কন্টেইনমেন্ট জোন রয়েছে। এছাড়া গলসি এক নম্বর ব্লকে একটি, কালনা এক নম্বর ব্লকে পাঁচটি কন্টেইনমেন্ট জোন রয়েছে। কালনা দু'নম্বর ব্লকে তিনটি এলাকায় কন্টেইনমেন্ট জোন করে সেখানে লকডাউন পালন করা হচ্ছে। কাটোয়া এক নম্বর ব্লকে দুটি এলাকায় ও কাটোয়া দু’নম্বর ব্লকের দুটি এলাকায় কন্টেইনমেন্ট জোন রয়েছে। কেতুগ্রাম এক ব্লকে কন্টেইনমেন্ট জোনের সংখ্যা ৭টি।

এছাড়া মেমারি এক নম্বর ব্লকে ছটি ও মেমারি দু'নম্বর ব্লকে দুটি কন্টেইনমেন্ট জোন রয়েছে। মঙ্গলকোটের দুটি এলাকায় কন্টেইনমেন্ট জোন রয়েছে। পূর্বস্থলী এক নম্বর ব্লকের তিনটি ও পূর্বস্থলী দু’নম্বর ব্লকের পাঁচটি এলাকায় কন্টেইনমেন্ট জোন রয়েছে। রায়না দু’নম্বর ব্লকের তিনটি এলাকায় কন্টেইনমেন্ট জোন রয়েছে। জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানান, প্রত্যেক কন্টেইনমেন্ট  জোনেই পুরোপুরি লকডাউন পালন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। জেলা পুলিশ ও প্রশাসনের আধিকারিকরা যৌথভাবে সেখানে অভিযান চালাবে। গ্রামীণ এলাকায় পুলিশের সঙ্গে ব্লক লেভেল কমিটি লকডাউন পরিদর্শন করবেন। শহর এলাকায় পুলিশ প্রশাসন ও পুরসভার আধিকারিকরা যৌথভাবে কন্টেইনমেন্ট এলাকায় লকডাউন নিশ্চিত করতে  নজরদারি চালাবেন।

Saradindu Ghosh

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: July 14, 2020, 2:49 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर