COVID19: মিথ্যে করোনা টেস্ট করছে ল্যাব, নেই ICMR-র স্বীকৃতি, চূড়ান্ত নাজেহাল রোগী

রোগীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে কলকাতার হাসপাতালে নিয়ে যওয়া হয়। কিন্তু রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি করতে অসুবিধায় পড়েন রোগীর পরিবার।

রোগীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে কলকাতার হাসপাতালে নিয়ে যওয়া হয়। কিন্তু রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি করতে অসুবিধায় পড়েন রোগীর পরিবার।

  • Share this:

#হাবড়া: অনুমোদন নেই করোনা পরীক্ষা করার। তবুও করোনা টেস্ট করে রিপোর্ট দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার এজেন্ট৷ সিল করা হল হাবরায় দোকান। উত্তর ২৪ পরগনার হাবড়া থানার জয়গাছি এলাকায় তরুণ প্রামানিক প্যাথলজিক্যাল টেস্টের একটি কালেকশন সেন্টারের ব্যবসা করেন ।মূলত রক্ত, মল, মুত্র টেস্টের জন্য কয়েকটি ছেলে রেখে এই প্যাথলজিক্যাল কালেকশন সেন্টারটি চালান তিনি। করোনা অতিমারির প্রকোপে রাজ্যের মতই হাবরা শহরে সংক্রমণ প্রবল। শুধুমাত্র করোনার পরীক্ষা করাতে সরকারি হাসপাতালের লম্বা লাইন প্রতিদিন । সেখানে হিমশিম অবস্থা। আর এই লম্বা লাইন এড়াতে বহু মানুষ বাড়ি থেকে সোয়াব টেস্টের জন্য প্রতিষ্ঠান খুঁজে বেড়ান। প্রতিষ্ঠিত ও স্বীকৃত বেসরকারি সংস্থা থেকে রিপোর্ট করালে সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে করোনা পজিটিভ রুগী হলে ভর্তি হওয়া যায়।

প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, হাবরা জয়গাছি পিন্টু পাল নামে এক ব্যক্তি পেটকেয়ার নামে কলকাতার এক ল্যাবের সঙ্গে দীর্ঘদিন কাজ করছেন। বেসরকারিভাবে করোনা টেস্ট করানোর জন্য সাধারণ মানুষ এই এজেন্টের কাছ থেকে পরীক্ষা করায়। গত সপ্তাহে এমনই এক রোগী এই পিন্টু পালের কাছ থেকে করোনার আর টি পি সি আর পরীক্ষা করান। তাঁর রিপোর্ট পজিটিভ আসে। রোগীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে কলকাতার হাসপাতালে নিয়ে যওয়া হয়। কিন্তু রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি করতে অসুবিধায়  পড়েন রোগীর পরিবার।

আরও পড়ুন COVID19 Black Market: কালোবাজারি রুখতে সরকারি ভ্যাকসিন ভ্যান ও অক্সিজেন সরবরাহের গাড়িতে GPS ও CCTV

পরিবারের দাবী তরুণ প্রামানিকের কালেকশন সেন্টার মাধ্যমে পেটকেয়ার নামে যে ল্যাব থেকে পরীক্ষা করা হয়েছে তার আই সি এম আর সঙ্গে রেজিস্ট্রেশন নেই। তারপর তারা রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের সাহায্যে রোগীকে তড়িঘড়ি  ভর্তি করাতে সক্ষম হন। এরপরই পরিবারের লোকজন স্বাস্থ্য দফতরে অভিযোগ করেন।নড়েচড়ে বসে স্বাস্থ্য দফতর।জেলা স্বাস্থ্য দফতরের নির্দেশে  হাবরা হাসপাতালের সুপার ও হাবরা থানার পুলিশ গিয়ে তরুণ প্রামানিকের কালেকশন সেন্টারটি সিল করে দেয়। ওই কালেকশন সেন্টাররে  এজেন্ট পিন্টু পালকে গ্রেফতারও করে পুলিশ। হাবরা হাসপাতাল সুপার বিবেকানন্দ বিশ্বাস সাধারণ মানুষকে সরকারি জায়গা থেকেই পরীক্ষা করার আহ্বান জানান।একই সঙ্গে তিনি বলেন স্বীকৃত বেসরকারি সংস্থা দেখে নিয়েই তবেই করোনার পরীক্ষা করতে।

Published by:Pooja Basu
First published: