corona virus btn
corona virus btn
Loading

১৭ মে পর্যন্ত বন্ধ উড়ানের বুকিং, ভবিষ্যতের পরিষেবাও অনিশ্চিত

১৭ মে পর্যন্ত বন্ধ উড়ানের বুকিং, ভবিষ্যতের পরিষেবাও অনিশ্চিত
বিমান পরিষেবা সচল হওয়ার সম্ভাবনা নেই এখনই

প্রত্যাশিত ভাবেই আগামী ১৭ মে রাত ১২ টা পর্যন্ত সমস্ত যাত্রীবিমান পরিষেবাও বন্ধ রাখা হল। তবে যাত্রী বিমান পরিষেবা বন্ধ থাকলেও কারগো পরিষেবা নিয়মিত চলবে বলে জানিয়ে দিয়েছে ডিরেক্টরেট জেনারেল অফ সিভিল অ্যাভিয়েশন।

  • Share this:

#কলকাতা:শুক্রবারই কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে ১৭ মে পর্যন্ত লকডাউন আরও বাড়ানোর ঘোষণা করা হয়। প্রত্যাশিত ভাবেই আগামী ১৭ মে রাত ১২ টা পর্যন্ত সমস্ত যাত্রীবিমান পরিষেবাও বন্ধ রাখা হল। তবে যাত্রী বিমান পরিষেবা বন্ধ থাকলেও কারগো পরিষেবা নিয়মিত চলবে বলে জানিয়ে দিয়েছে ডিরেক্টরেট জেনারেল অফ সিভিল অ্যাভিয়েশন। এ ছাড়া, ডিজিসিএ অনুমতি দিলে বিশেষ যাত্রী বিমানও চলতে পারে বলে জানানো হয়েছে ওই বিজ্ঞপ্তিতে।

এর আগে করোনা মোকাবিলায় ৩ মে পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি লকডাউন চালু রাখার সিদ্ধান্ত জানানোর কয়েক দিন পরেই ৪ মে থেকে বুকিং খুলে দেয় এয়ার ইন্ডিয়া। বুকিং খোলার কিছুক্ষণের মধ্যেই অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রকের সুপারিশে তা বন্ধও করে দেয় এয়ার ইন্ডিয়া। এই ঘটনার পরে পরেই ডিজিসিএ-র পক্ষ থেকে বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়ে দেওয়া হয়, ৩ মে লকডাউন শেষ হচ্ছে বলেই এমন কোনও নিশ্চয়তা নেই যে, তার পর দিন থেকেই বিমান পরিবহণ চালু হয়ে যাবে। তাই, পরবর্তী নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত আপাতত বুকিং বাতিল করার নির্দেশ দেয় ডিজিসিএ। বুকিং খোলার জন্য নির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত কয়েক দিন আগেই জানিয়ে দেওয়া হবে, বলে জানিয়ে দেয় ডিজিসিএ।

তার দু'এক দিনের মধ্যেই ইন্ডিগোর পক্ষ থেকে ৩১ মে পর্যন্ত বুকিং বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ভিস্তারা এবং এয়ার এশিয়াও জানিয়ে দেয়, ৩১ মে পর্যন্ত সমস্ত বুকিং তারা বন্ধ রাখবে। স্পাইসজেট এবং গো-এয়ার জানায়, তারা বুকিং ১৫ মে পর্যন্ত বন্ধ রাখবে। আর এয়ার ইন্ডিয়া জানিয়ে দেয়, ডিজিসিএ-র অনুমোদন পাওয়ার পরেই ফের টিকিট বুকিং শুরু করা হবে। লকডাউন ফের বৃদ্ধির পরে স্পাইসজেট আর গো-এয়ারও জানিয়েছে, আপাতত ১৭ মে পর্যন্ত তারা বুকিং বন্ধ রাখছে। অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রকের এক কর্তা বলেন, "যদি ধরেও নেওয়া হয় যে ১৭ মে লকডাউন উঠে যাবে এবং পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে, তা একেবারেই নয়। লকডাউন উঠে যাওয়ার পরে আরও ১৫ দিন অন্তত বিমান পরিষেবা স্বভাবিক হবে না।" বেশির ভাগ বিমান সংস্থাই জানাচ্ছে, লকডাউন উঠলেও বিমান পরিষেবা যে স্বাভাবিক হবে না, তা একপ্রকার নিশ্চিত। এমনকী, আন্তর্জাতিক বিমান পরিষেবা স্বাভাবিক হতে বছরখানেক লেগে যাবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

First published: May 3, 2020, 1:05 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर