corona virus btn
corona virus btn
Loading

ঠেলাগাড়ি উল্টে দিয়েছিল পুরকর্মীরা, ইনদওরের ডিম বিক্রেতা বালকের জন্য বরাদ্দ হল নতুন বাড়ি

ঠেলাগাড়ি উল্টে দিয়েছিল পুরকর্মীরা, ইনদওরের ডিম বিক্রেতা বালকের জন্য বরাদ্দ হল নতুন বাড়ি
এভাবেই উল্টে দেওয়া হয়েছিল ডিম ভর্তি ঠেলাগাড়ি৷ PHOTO- TWITTER

ইনদওরের বিজেপি বিধায়ক রমেশ মেন্ডোলা পরশের পরিবারের জন্য প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় একটি বাড়ি বরাদ্দ করেছেন৷

  • Share this:

#ইনদওর: মাত্র ১০০ টাকা ঘুষ দিতে চায়নি সে৷ তাই ডিম বিক্রি করার ঠেলা গাড়ি উল্টে দিয়েছিল পুরসভার কর্মীরা৷ এমনই অভিযোগ করেছিল ইনদওরের বাসিন্দা ১৩ বছরের পরশ রায়কর৷ তবে এই ঘটনাই যেন তার জীবনে শাপে বর হয়ে দেখা দিল৷ অভিযোগ সামনে আসার পর থেকেই পরশ এবং তার পরিবারের সাহায্যে এগিয়ে এসেছেন রাজনীতিবিদ থেকে সাধারণ মানুষ৷ যার ফলে ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় সরকারি প্রকল্পে বাড়ি পেয়েছে পরশের পরিবার৷ পরশের পড়াশোনা নিয়েও দুশ্চিন্তা মিটেছে৷

গত ২২ জুলাই পরশ ঠেলাগাড়িতে করে ইনদওরের পিপলিয়াহানা মোড়ে ডিম বিক্রি করছিল৷ অভিযোগ, সেখানে পুরসভার কয়েকজন কর্মী এসে তাকে গাড়ি সরিয়ে নিতে বলে৷ লকডাউনের জন্য ইনদওরে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে বাজার বসানো হচ্ছে৷ পরশের অভিযোগ, তার কাছে পুরসভার কর্মীরা ১০০ টাকা ঘুষ চেয়েছিল৷ তা দিতে না পারায় তার ঠেলাগাড়ি উল্টে সব ডিম রাস্তায় ফেলে নষ্ট করে দেওয়া হয়৷ এর ফলে গাড়িতে থাকা প্রায় সাত থেকে আট হাজার টাকার ডিম নষ্ট হয়ে যায়৷ ক্ষতির কথা ভেবে কেঁদে ফেলে পরশ৷

এই ঘটনা সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই প্রবল সমালোচনা শুরু হয়৷ প্রত্যেকেই পুরকর্মীদের অসংবেদনশীল আচরণের নিন্দায় সরব হন৷ একই সঙ্গে পরশ এবং তার পরিবারের জন্য উপচে পড়তে থাকে সাহায্যের প্রতিশ্রুতি৷

ইনদওরের বিজেপি বিধায়ক রমেশ মেন্ডোলা পরশের পরিবারের জন্য প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় একটি বাড়ি বরাদ্দ করেছেন৷ তার পাশাপাশি পরশকে একটি সাইকেল এবং আড়াই হাজার টাকাও দিয়েছেন ওই বিধায়ক৷ রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ও কংগ্রেস নেতা দিগ্বিজয় সিং ১০ হাজার টাকা দেওয়ার পাশাপাশি পরশ এবং তার ভাইয়ের পড়াশোনার যাবতীয় দায়িত্ব নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন৷ ইনদওর প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে পরশের পরিবারকে আর্থিক সাহায্য করা হয়৷

শুধু তাই নয়, পরশের দাদু জানিয়েছেন, রাহুল গান্ধি এবং দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর অরবিন্দ কেজরিওয়ালের দফতর থেকেও সাহায্য করতে চেয়ে তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে৷ জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াও সাহায্য করতে চেয়েছেন৷ এমনিতেই লকডাউনে বেচাকেনা কমে গিয়েছিল৷ তার মধ্যে প্রচুর টাকার ডিম নষ্ট হয়ে যাওয়ায় ভেঙে পড়েছিল পরশ৷ এখন অবশ্য বহু মানুষের থেকে সাহায্যের প্রতিশ্রুতি পেয়ে পরশ এবং তার পরিবারের মুখে হাসি ফুটেছে৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: July 26, 2020, 9:52 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर