Home /News /coronavirus-latest-news /
করোনাভাইরাস স্পেশাল ওপিডি চালু হল বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে

করোনাভাইরাস স্পেশাল ওপিডি চালু হল বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে

নোভেল করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পরই সমাজে অচ্ছুত হয়ে পড়েছিলেন রোগীরা। চিকিৎসা করিয়ে সুস্থ হওয়ার পরও রেহাই নেই। সকলেই যেন বাঁকা নজরে দেখছে। তার মধ্যেই চিকিৎসা করাতে গিয়ে পড়ছেন হাজারও সমস্যায়।

  • Share this:

#কলকাতা: রোগ থেকে মুক্তি পেলেও রোগীর রেহাই নেই। নোভেল করোনাকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেলেও চিকিৎসা বিভ্রাটে চলছেই। অসুস্থ হলে চিকিৎসা করাতে গিয়ে সমস্যায় পড়ছেন প্রাক্তন কোভিড রোগীরা। তাদের কথা ভেবেই আইডি হাসপাতালে চলছে স্পেশাল ওপিডি।

নোভেল করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পরই সমাজে অচ্ছুত হয়ে পড়েছিলেন রোগীরা। চিকিৎসা করিয়ে সুস্থ হওয়ার পরও রেহাই নেই। সকলেই যেন বাঁকা নজরে দেখছে। তার মধ্যেই চিকিৎসা করাতে গিয়ে পড়ছেন হাজারও সমস্যায়।

কোভিড বা করোনা ফলোআপ ক্লিনিক। এই নামেই স্পেশাল ওপিডি খুলেছে আইডি হাসপাতাল। কোভিড রোগীরা সুস্থ হয়ে বাড়ি গেলেও যে সমস্যায় পড়ছেন তা পৌঁছেছিল কর্তৃপক্ষের কানে। তারপরই আলোচনায় বসে আইডি হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতি।

বুধবার আইডি হাসপাতালে ওপিডির খবর পেয়ে পৌঁছে যান বসিরহাটের এক বাসিন্দা। তিনি জানান, গত কয়েকদিন ধরেই শারীরিক অসুস্থতা বোধ করছিলেন। কিন্তু যে চিকিৎসাকেন্দ্রে তিনি গিয়েছিলেন সেখানে প্রাক্তন করোনা রোগী দেখে সকলেই দূরে সরে গিয়েছে। বুধবার আইডি হাসপাতালে ওপিডিতে চিকিৎসা করিয়ে দেখেন তার রক্তচাপ কিছুটা বেড়েছে। প্রয়োজনীয় ওষুধ পরামর্শ নিয়ে আশ্বস্ত মনে ফিরে যান বাড়িতে।

কলকাতা পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য স্বপন সমাদ্দার৷ তিনি আবার আইডি হাসপাতালে রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান। তিনি বলেন কলকাতা তো বটেই রাজ্যের বেশ কিছু জায়গা থেকে রিপোর্ট আসছিল। যারা করোনায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরছেন ভবিষ্যতে তাদের চিকিৎসার সমস্যা হচ্ছে। অনেককেই চিকিৎসা না পেয়ে ফিরে যেতে বাধ্য হচ্ছেন বলে অভিযোগ। তাই করোনায় সুস্থ হয়ে যাওয়া রোগীদের ও এবার ফলোআপের জন্য স্পেশাল ওপিডি চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এখন থেকে নিয়মিত চলবে এই স্পেশাল ওপিডি।

প্রতি বুধবার আইডি হাসপাতালে সকাল ১১ টা থেকে বসেছে এই স্পেশাল ওপিডি। শুধু কলকাতা নয় রাজ্যের যে কোন প্রান্ত থেকেই সুস্থ হওয়া কোভিড রোগীরা এখানে ফলোআপের জন্য আসতে পারবেন।

Published by:Pooja Basu
First published:

Tags: Coronavirus, COVID19

পরবর্তী খবর