corona virus btn
corona virus btn
Loading

হাহাকার! এক বৃদ্ধাবাসের ৭০ জনই মারা গেলেন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে

হাহাকার! এক বৃদ্ধাবাসের ৭০ জনই মারা গেলেন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে
Photo- Representive

ঘাড়ের ওপর ঘাড়ে থাকতেন এক একজন , কমে গিয়েছিল কর্মী, আগুনের গতিতে এতগুলো প্রাণ নিয়ে নিল করোনা

  • Share this:

#ম্যাসাচুসেটস: মর্মান্তিক, বেদনাদায়ক কোনও শব্দই আরই করোনা ক্লিষ্ট পৃথিবীতে যথেষ্ট নয় বলেই প্রমাণিত ৷ এরই মধ্যে এক ভয়ানক খবরে কেঁপে উঠল সকলে ৷ আমেরিকায় একটি বৃদ্ধাবাসে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল ৭০ জন বৃদ্ধের ৷ ঘটনাটি ঘটেঠে ম্যাসাচুসেটসের একটি বৃদ্ধাবাসে ৷ স্টেট ও ফেডারাল আধিকারিকরা এই মুহূর্তে জোর তদন্তে ঠিক কীভাবে এই মারণ রোগ শ্মশান করে দিল একটি বৃদ্ধাবাসকে৷

Holyoke Soldiers নামের বৃদ্ধাবাসে ক্রমেই লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েই চলেছে মৃতের সংখ্যা ৷ তদন্তকারী দল এখন খতিয়ে দেখছে যে আবাসিক বৃদ্ধরা কী কেউই চিকিৎসা পরিষেবা নেওয়ার জন্য তৈরি হননি না হলে এখনকার পরিস্থিতি এরকম মর্মান্তিক হল কী করে ৷ এটা খতিয়ে দেখে তবেই আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে ৷ একজনের শ্বশুর যাঁর এখন অল্প সংক্রমণের লক্ষণ রয়েছে তিনি জানিয়েছেন পরিস্থিতি ভয়ানক ৷

‘৬৬ জন ইতিমধ্যেই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন , এরা কোনও সুযোগই পাননি ৷ আরও একজনের মারা যাওয়ার কারণ খুঁজে পাওয়া যায়নি ৷ এই বৃদ্ধাবাসের আরও ৮৩ জন আবাসিক ও ৮১ জন কর্মী সকলেই করোনা পজিটিভ ৷ ’
হোমের সুপারিনটেডেন্ট যে প্রশাসনিক ছুটিতে পাঠানো হয়েছে ৷ তিনি অবশ্য জানিয়েছেন স্টেটের আধিকারিকরা মিথ্যা অভিযোগ তুলেছেন ৷ সুপারিনটেন্ডেন্ট বেনেট ওয়ালশ জানিয়েছেন এই মাসের শুরুতে জানিয়েছেন হোমের অবস্থা সংকটজনক ৷ সেখানে কর্মী কম ছিল আর সংক্রমণের প্রাথমিক লক্ষণ আছে বলে জানানো হয়েছিল ৷

এই হোমে নার্সের দায়িত্ব পালনরত জোয়ান মিলার জানিয়েছেন কর্মী সংখ্যা কম থাকায় বিষয়টা আগুনের মতো গতিত ছড়িয়ে পড়েছে ৷ এতটাই কর্মী সংকট ছিল যে এক ইউনিটের কর্মীরা অন্য ইউনিটে যেতে বাধ্য হচ্ছিলেন ৷ ফলে ভাইরাসের সংক্রমণ ভয়ানক আকার নিয়ে নেয় ৷ একটা সময় একটা ইউনিট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল সেখানে কোনও কর্মী না থাকায় ৷ প্রবীণদের সেখান থেকে সরিয়ে আরও কাছাকাছি করে বিল্ডিংয়ের অন্য প্রান্তে রাখা হয়েছিল ৷

এক জন বৃদ্ধ আরেকজনের ওপরে থাকতেন ৷ তাঁরা জানিয়েছেন কে পজিটিভ কে পজিটিভ নয় তা জানা ছিল না ৷ তাঁরা এক গ্রুপে থাকতেন তার ফলে পরিস্থিতি আরও ভয়ানক হয়ে ওঠে ৷ এরপরেই ঘটনা সর্বসমক্ষে আসে ৷

এই বৃদ্ধাবাসে ২৩০ বাস করছিলেন মার্চ মাসে সোমবার সেখানে মাত্র ১০০ জন পড়ে রয়েছেন ৷ এঁদের বেশিরভাগের শরীরেই করোনা ভাইরাস মৃদু ও মধ্যম মানের সংক্রমণ দেখাচ্ছিল ৷ কারোর জ্বর ছিল কারোর কাশি যেটা অনেকের সারছিল বলে মনে হয় আবার অতি বৃদ্ধদের  ক্ষেত্রে সেটা নিউমোনিয়ায় পরিণত হয়েছিল ৷

বিভিন্ন বৃদ্ধদের অভিযোগ তাঁরা যখন তাঁদের আত্মীয়দের খবর নিতেন তখন এক একদিন এক একজন উত্তর দিত ৷ আর হোমের প্রকৃত অবস্থাটা কেউই বলত না৷ এটা আমেরিকার অন্যতম প্রাচীন বৃদ্ধাবাস ছিল৷

     
Published by: Debalina Datta
First published: April 29, 2020, 8:59 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर