corona virus btn
corona virus btn
Loading

বহুমূল্যের বিদেশি গাড়ি বিক্রি করে মুমূর্ষু রোগীকে পৌঁছচ্ছেন অক্সিজেন সিলিন্ডার, যুবকের মানবিক মুখ

বহুমূল্যের বিদেশি গাড়ি বিক্রি করে মুমূর্ষু রোগীকে পৌঁছচ্ছেন অক্সিজেন সিলিন্ডার, যুবকের মানবিক মুখ
প্রতীকী ছবি

৫ জুন থেকে এখনও পর্যন্ত ২৫০ পরিবারের হাঁতে তিনি অক্সিজেন সিলিন্ডার তুলে দিয়েছেন শাহনওয়াজ ।

  • Share this:

#মুম্বই: চোখের সামনে বন্ধুর অন্তঃসত্ত্বা বোনকে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়তে দেখেন অক্সিজেনের অভাবে । তারপরে আর নিজেকে স্থির রাখতে পারেননি । বহু শখে কেনা এসইউভি বিক্রি করে দেন অক্সিজেন সিলিন্ডার কেনার জন্য । তবে নিজের আত্মীয় পরিজনদের জন্য নয় , তাঁর এই কাজ আত্মীয়, প্রতিবেশী থেকে সাধারণ মানুষ সকলের জন্য ।

৩১ বছরের যুবক শাহনওয়াজ শেখ মুম্বইয়ের বাসিন্দা । ৫ জুন থেকে এখনও পর্যন্ত ২৫০ পরিবারের হাতে তিনি অক্সিজেন সিলিন্ডার তুলে দিয়েছেন । যাঁদের পরিবারের কেউ না কেউ করোনা সংক্রমণের বিরুদ্ধে কঠিন লড়াই লড়ছেন । জানা গিয়েছে, তিনি এবং তাঁর বন্ধুরা সাধারণ মানুষকে অক্সিজেন সিলিন্ডার পাওয়ার বিষয়ে জানাতে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করেন । শুধুমাত্র চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন থাকলেই শাহনওয়াজের সংগ্রহে থাকা সিলিন্ডার পেয়ে যান রোগীর পরিবার ।  তবে যদি কোনও রোগীর পরিবারের সকলেই যদি কোয়ারেন্টাইনে থাকেন ,  সেক্ষেত্রে যথাযথ সুরক্ষাবিধি মেনে তাঁর বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয় সিলিন্ডার ।

প্রসঙ্গত , ২০১১ সালে বিদেশি সংস্থার একটি দামি গাড়ি কেনেন শাহনওয়াজ শেখ । প্রিমিয়াম নম্বর প্লেট পেতে এবং সেই গাড়িকে মনের মতো করে সাজাতে খরচ করেছিলেন আরও কয়েক লক্ষ টাকা । নিজেই চড়তেন সেই গড়ি । কিন্তু লকডাউনে অসুস্থ মানুষের হাসপাতালে পৌঁছনোর বিষয় তাঁকে ভাবিয়ে তুলেছিল । ফলে তিনি ঠিক করেন তাঁর সাধের গাড়ি সাধারণ মানুষের কাজে লাগুক । যেমন ভাবা তেমন কাজ । সময় নষ্ট না করে লকডাউনের মধ্যে তার গাড়িকে অ্যাম্বুলেন্স হিসাবে ব্যবহার করা শুরু করেন । সেভাবেই চলছিল । কিন্তু ২৮ মে ব্যবসায়ী বন্ধুর অন্তঃসত্ত্বা বোন অক্সিজেনের ওভাবে মারা যায় । পাঁচটি হাপাতাল ঘুরে অক্সিজেন এবং হাসপাতালে বেড মেলেনি । তারপরেই শাহনওয়াজ তাঁর গাড়ি বিক্রি করে, সেই অর্থ  দিয়ে অক্সিজেন সিলিন্ডার কিনে, তা সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেন ।

Published by: Shubhagata Dey
First published: June 24, 2020, 8:29 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर