Coronavirus in Burdwan: বর্ধমান শহরে একদিনে আক্রান্ত ৩০০শোরও বেশি, উদ্বেগ চরমে

করোনা আক্রান্ত, বর্ধমান

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গোষ্ঠী সংক্রমণ এখন ব্যাপক আকার ধারণ করেছে।

  • Share this:

#বর্ধমান: বর্ধমান শহরে লাগামহীনভাবে বেড়ে চলেছে করোনার সংক্রমণ। প্রতিদিনই শয়ে শয়ে বাসিন্দা করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। তাদের মধ্যে এ দিন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে অনেকেরই। জেলার মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বর্ধমান শহরেই সবচেয়ে বেশি। সংক্রমণ ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ায় রীতিমতো আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন এই শহরের বাসিন্দারা। কবে সংক্রমণের এই ব্যাপকতা কমবে সেই দিকেই এখন তাকিয়ে রয়েছেন বাসিন্দারা।

গত চব্বিশ ঘণ্টায় জেলার সদর শহর বর্ধমানে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৩২৮ জন। বুধবার এই শহরে করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন ৬৪ জন। একদিনে সংক্রমণ পাঁচ গুণ বেড়ে যাওয়ায় রীতিমতো আতঙ্কিত শহরের বাসিন্দারা। ৪ঠা মে এই শহরে ১৪৪ জন আক্রান্ত হয়েছিলেন। ৩মে আক্রান্ত হয়েছিলেন ১৭৩ জন। ২ মে এই শহরে ৭৮ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। পয়লা মে আক্রান্ত হয়েছিলেন ১০১ জন। হঠাৎ করে সেই সংখ্যা ৩০০ ছাড়িয়ে যাওয়ায় আতঙ্কিত শহরের বেশিরভাগ এলাকার বাসিন্দারা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গোষ্ঠী সংক্রমণ এখন ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। বহু মানুষ জ্বর সর্দি সহ করোনার উপসর্গ নিয়ে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, কৃষি খামারের সেফ হোম ও বিভিন্ন বেসরকারি ল্যাবরেটরিতে ভিড় করছেন। তাদের নমুনা পরীক্ষা করে আক্রান্তদের চিহ্নিত করা হচ্ছে। এই সময় খুব প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে পা না রাখা পরামর্শ দিচ্ছেন তাঁরা।

আরও পড়ুন Corona in Burdwan: একদিনে আক্রান্ত নশো জন! আতঙ্কিত পূর্ব বর্ধমান জেলার বাসিন্দারা

সংক্রমণ ব্যাপকভাবে বেড়ে যাওয়ায় রাস্তাঘাট এখন অনেকটাই ফাঁকা থাকছে। বেশিরভাগ বাসিন্দাই মাস্কে মুখ ঢাকছেন। স্যানিটাইজারের ব্যবহার বেড়েছে অনেকটাই। বৃহস্পতিবার থেকে লোকাল ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বর্ধমান শহরে বাইরে থেকে আসা বাসিন্দাদের সংখ্যা কমেছে। রাজ্যের অন্যান্য অংশের সঙ্গে বর্ধমান শহরে দোকান বাজার, সবজি বাজার খোলা রাখার ক্ষেত্রে সময়সীমা নিয়ন্ত্রিত হওয়ায় জেলার অন্যান্য অংশের বাসিন্দারাও কম সংখ্যায় এই শহরে আসছেন। তার ফলে দুপুরের পর থেকে শহর শুনশান থাকছে। রাস্তাঘাট ফাঁকা থাকছে। খুব প্রয়োজন ছাড়া বেরচ্ছেন না অনেকেই।

Published by:Pooja Basu
First published: