• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • ১৫ দিনে ১৫ হাজার ইউনিটের বেশি রক্তদান করলেন করোনা যোদ্ধারা !

১৫ দিনে ১৫ হাজার ইউনিটের বেশি রক্তদান করলেন করোনা যোদ্ধারা !

লকডাউন পর্বে রক্তের আকাল যাতে না হয়, কোনও মুমূর্ষু রোগীকে রক্তের অভাবে যাতে মারা যেতে না হয় সেজন্য মাসব্যাপী রক্তদান করছে পুলিশ।

লকডাউন পর্বে রক্তের আকাল যাতে না হয়, কোনও মুমূর্ষু রোগীকে রক্তের অভাবে যাতে মারা যেতে না হয় সেজন্য মাসব্যাপী রক্তদান করছে পুলিশ।

লকডাউন পর্বে রক্তের আকাল যাতে না হয়, কোনও মুমূর্ষু রোগীকে রক্তের অভাবে যাতে মারা যেতে না হয় সেজন্য মাসব্যাপী রক্তদান করছে পুলিশ।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে স্বাস্থ্য কর্মীদের পাশাপাশি লড়ছে পুলিশও। তাই তারাও করোনা যোদ্ধা। রাজ্যজুড়ে লকডাউন ঠিকমত হচ্ছে কিনা, মানুষ সামাজিক দূরত্ব মানছেন কিনা, একদিকে যেমন সেইসব দায়িত্ব নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করতে হচ্ছে পুলিশ বাহিনীকে। তেমনই এই লকডাউন পর্বে রক্তের আকাল যাতে না হয়, কোনও মুমূর্ষু রোগীকে রক্তের অভাবে যাতে মারা যেতে না হয় সেজন্য মাসব্যাপী রক্তদান করছে পুলিশ।

শুরুটা হয়েছিল চলতি মাসের ১ তারিখ থেকে। আর ১৫ দিনেই সংখ্যা ছাড়াল ১৫ হাজার ইউনিটের বেশি। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে রাজ্যজুড়ে পুলিশকর্মীদের রক্তদান শিবির শুরু হয়েছিল কলকাতা নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়াম ও রাজ্যের প্রত্যেক থানা এলাকায়। কলকাতা পুলিশ ও রাজ্য পুলিশের সমস্ত শাখার পুলিশকর্মীরা প্রতিদিন নির্দিষ্ট রক্তদান শিবিরে রক্ত দান করছেন মাসের প্রথম দিন থেকেই। তারই ফলস্বরূপ মাত্র পনেরো দিনে শুধুমাত্র পুলিশকর্মীদের দেওয়া রক্তের ইউনিটের সংখ্যা ১৫ হাজার ছাড়িয়েছে। আগামী ১৫ দিনে সেই সংখ্যা ৩০ হাজার ছাড়াবে বলে মনে করছে রাজ্য পুলিশ।

লকডাউন পর্বে যাতে কোনওভাবেই রক্তের আকাল না তৈরি হয় সেজন্যই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কলকাতা পুলিশ ও রাজ্য পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছিলেন এক মাসব্যাপী পুলিশকর্মীদের রক্তদান শিবির চালানোর জন্য। যেখানে পুলিশের বিভিন্ন স্তরের কর্মীরা নিয়ম করে রক্তদান করবেন। সেন্ট্রাল ব্লাড ব্যাঙ্ক প্রত্যেক দিন নির্দিষ্ট শিবির থেকে রোজ রক্ত সংগ্রহ করছে।

ডিউটি করার পরেও যাতে পুলিশকর্মীরা রক্তদান করতে পারেন, সেজন্য রোজ বিকেল পাঁচটার পর শুরু হয় রক্তদান শিবির। চলবে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত। রাজ্য পুলিশের এক কর্তা বলেন, "কোথাও এরকম একমাস টানা পুলিশের উদ্যোগে রক্তদান হয়েছে বলে জানা নেই। পুলিশের এই উদ্যোগের ফলে  আগামী দিনে সাধারণ মানুষও রক্তদানে এগিয়ে আসবে। রাজ্যের পুলিশ কার্যত নজির সৃষ্টি করতে চলেছে।"

Sujay Pal

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: