হোম /খবর /দেশ /
জল-খাওয়ার নেই, ট্রাকে লুকিয়ে ৮০০ কিলোমিটার পাড়ি ১০০ পরিযায়ী শ্রমিকের

জল-খাওয়ার নেই, ট্রাকে লুকিয়ে ৮০০ কিলোমিটার পাড়ি ১০০ পরিযায়ী শ্রমিকের

নিয়তি: লকডাউনেই বাড়ি ফিরতে পথে নেমেছেন বহু পরিযায়ী শ্রমিক।

নিয়তি: লকডাউনেই বাড়ি ফিরতে পথে নেমেছেন বহু পরিযায়ী শ্রমিক।

লকডাউনের মধ্যে বহু পরিযায়ী শ্রমিকই পথে নেমেছেন। সরকারের তরফে এদের একটা অংশকে ত্রাণ শিবিরে রাখা হলেও অনেকেই খিদে তৃষ্ণা নিয়ে রাস্তায় নামতে একপ্রকার বাধ্যই হয়েছেন।

  • Last Updated :
  • Share this:

#রায়পুর: রাস্তার ধারে দাঁড়িয়েছিল দশ চাকার ট্রাকটা। ছত্তিশগড়ের রাজধানী রায়পুর থেকে একটু দূরে ট্রাকটাকে দেখে কারো কোনও সন্দেহ হয়নি। হঠাৎই ভূতের মতো উঠে দাঁড়ালেন ওঁরা। খিদেয় তৃষ্ণায় প্রাণ যায় যায়। তাই শেষমেশ একটু জল চাইতেই উঠে দাঁড়াতে হল।

হ্যাঁ, ওঁরা পরিযায়ী শ্রমিক। কাজ করতেন তেলেঙ্গনায়। সেখান থেক এই দশচাকার ট্রাকে লুকিয়ে পাড়ি দিয়েছেন ৮০০ কিলোমিটার পথ। সঙ্গে ছিল না কোনও খাবার । ছিল না তৃষ্ণা মেটাবার জন্য পর্যাপ্ত জল। দুপুর রোদে তেতে থাকা ট্রাকের খোলটায় বসে বসে শরীরটা ঝাঁঝরা হয়ে আসছিল। অগত্যা আর উপায় ছিল না উঠে দাঁড়ানো ছাড়া।

সংবাদমাধ্যমকে এই দলটার এক শ্রমিক বললেন, "চারদিন ধরে ট্রাকের পিছনে বসে বাড়ি ফিরছি। হায়দ্রাবাদ থেকে তেলেঙ্গনা। আমাদের কাছে কোনও খাবার নেই। ফুরিয়েছে জলও। সরকার কোনও সাহায্য করছে না। রোদে পুড়ে বাচ্চারা অসুস্থ হয়ে পড়ছে।

লকডাউনের মধ্যে বহু পরিযায়ী শ্রমিকই পথে নেমেছেন। সরকারের তরফে এদের একটা অংশকে ত্রাণ শিবিরে রাখা হলেও অনেকেই খিদে তৃষ্ণা নিয়ে রাস্তায় নামতে একপ্রকার বাধ্যই হয়েছেন। এদের মধ্যে কারও প্রাণ গিয়েছে পথশ্রমে। কেউ আবার দুর্ঘটনাতেই প্রাণ খুইয়েছেন। এরই মধ্যে সবচেয়ে বড় দুর্ঘটনা ঘটে গিয়েছে শুক্রবার। ঔরঙ্গাবাদে রেললাইনেই ঘুমিয়ে পড়ার মাশুল দিতে হয়েছে ১৭জন শ্রমিককে। রেলের চাকায় পিষ্ট হয়েই প্রাণ গিয়েছে তাঁদের।

আরও কত মৃত্যু, কত যন্ত্রণা অপেক্ষা করছে লক্ষ লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য, উত্তর নেই কারও কাছেই।

Published by:Arka Deb
First published:

Tags: Coronavirus, COVID-19, Migrant Labours