corona virus btn
corona virus btn
Loading

কত দূর! ২ হাজারের বেশি দিনমজুর গুজরাত থেকে রাজস্থান হাঁটছেন...

কত দূর! ২ হাজারের বেশি দিনমজুর গুজরাত থেকে রাজস্থান হাঁটছেন...
শ্রমিকরা হাঁটছেন

নারী, পুরুষ, শিশু, হাঁটছে৷ আহমেদাবাদ থেকে রাজস্থান৷ মহিলাদের কারও কোলে শিশু৷ কেউ বৃদ্ধ৷ ১২৫ কিমিরও বেশি পথ৷

  • Share this:

#আহমেদাবাদ: গোটা দেশ লকডাউন! প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলছেন, সবাই যেন বাড়িতে থাকেন৷ করোনা মোকাবিলায় ব্রেক দ্য চেন নীতি৷ এ হেন পরিস্থিতিতে দেশের একটা বড় অংশের মানুষ, যাঁরা দিন মজুর, তাঁদের কী পরিস্থিতি? গুজরাতের একটি ঘটনাই গোটা চিত্রটা প্রায় বলে দিচ্ছে৷ গুজরাতে (বিশেষ করে আহমেদাবাদে) কর্মরত ২ হাজারের বেশি দিনমজুর পায়ে হেঁটে ফিরছেন রাজস্থানে তাঁদের গ্রামের বাড়িতে৷ এঁরা সকলেই রাজস্থান থেকে পেটের দায়ে দিনমজুরি করতে গিয়েছিলেন গুজরাতে৷ বাস, ট্রেন কিছুই তো নেই৷ সবাই তাই হাঁটছেন৷ কত দিনে পৌঁছবেন, কে জানে!

মঙ্গলবার রাতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি গোটা দেশ লকডাউন ঘোষণা করতেই, বাস, ট্রেন-সহ সব গণপরিবহণ স্তব্ধ৷ মোদি যখন জাতীর উদ্দেশ্যে ভাষণ দিচ্ছেন, রাজস্থানের বিচ্ছিওয়ারা তহশিলের ২ হাজারের বেশি মানুষ তখনও জানেন না, বাড়ি ফিরবেন কী ভাবে! ব্যস, একরাতেই দুঃস্বপ্ন! অতঃপর... পায়ে হাঁটা৷ নারী, পুরুষ, শিশু, হাঁটছে৷ আহমেদাবাদ থেকে রাজস্থান৷ মহিলাদের কারও কোলে শিশু৷ কেউ বৃদ্ধ৷ ১২৫ কিমিরও বেশি পথ৷

৩২ বছর বয়সি দশরথ যাদবের বাড়ি রাজস্থানের বাঁশওয়ারায়৷ পেশায় দিন মজুর৷ নির্মাণ শিল্পে জোগাড়ের কাজ করেন৷ পরিবারের ১২ জনকে নিয়ে আহমেদাবাদে ছিলেন পেটের দায়ে৷ তাঁর কথায়, '৪ ঘণ্টা হয়ে গেল হাঁটছি৷ কিছুই পাচ্ছি না৷ বাড়ি তো পৌঁছতে হবে৷ প্রতিটি জায়গায় পুলিশ আটকে দিচ্ছে৷ খাবার নেই, জল নেই৷ আরাবল্লি পৌঁছনোর একটি ট্রাক দেখলাম৷ কিন্তু ট্রাকটিতে ১০০ জনের ভিড়ে ঠাসা৷ জায়গাই হল না আমাদের৷'

First published: March 25, 2020, 9:53 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर