Home /News /coronavirus-latest-news /
শরণার্থী হয়ে ভারতে আশ্রয়, করোনা যুদ্ধে নামতে চান পাকিস্তানের হিন্দু চিকিৎসকরা

শরণার্থী হয়ে ভারতে আশ্রয়, করোনা যুদ্ধে নামতে চান পাকিস্তানের হিন্দু চিকিৎসকরা

প্রতীকী চিত্র৷ PHOTO- FILE

প্রতীকী চিত্র৷ PHOTO- FILE

নিয়ম অনুযায়ী, বিদেশি কোনও নাগরিক ভারতে ডাক্তারি করতে চাইলে তাঁদের মেডিক্যাল কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়ার নির্দিষ্ট পরীক্ষা পাশ করতেই হয়৷

  • Share this:

    #যোধপুর: পাকিস্তানের বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজ থেকে এমবিবিএস ডিগ্রি নিয়ে ভারতে আসা শরণার্থী  হিন্দু চিকিৎসকরা এবার এ দেশের স্বাস্থ্যকর্মীদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে করোনা সংক্রমণের মোকাবিলা করতে চান৷ সেরকমই ইচ্ছেপ্রকাশ করে ভারত সরকারের কাছে আবেদন জানালেন পাকিস্তানের হিন্দু চিকিৎসকদের একটি দল৷

    নিয়ম অনুযায়ী, বিদেশি কোনও নাগরিক ভারতে ডাক্তারি করতে চাইলে তাঁদের মেডিক্যাল কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়ার নির্দিষ্ট পরীক্ষা পাশ করতেই হয়৷ সেই কারণেই ইচ্ছে থাকলেও সরকারের অনুমতি ছাড়া ওই হিন্দু চিকিৎসকরা করোনা মোকাবিলায় হাত লাগাতে পারছেন না৷

    ওই চিকিৎসকদের আবেদন, বর্তমান পরিস্থিতির দিকে খেয়াল রেখে পরীক্ষায় পাশ করা সংক্রান্ত আপাতত শিথিল করে তাঁদের করোনা রোগীদের চিকিৎসার অনুমতি দেওয়া হোক৷ এম এল জাঙ্গির নামে সেরকমই এক চিকিৎসকের দাবি, কুড়ি বছর আগে তিনি পাকিস্তান থেকে ভারতে চলে এসেছিলেন৷ তিনি করাচি মেডিক্যাল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাশ করেছিলেন বলে দাবি ওই চিকিৎসকের৷ তিনি জানিয়েছেন, তাঁর মতো আরও তিনশো এরকম চিকিৎসক নিয়মের জাঁতাকলে পড়ে ভারতে প্র্যাক্টিস করতে পারছেন না৷ কারণ বিদেশ থেকে এমবিবিএস পাস আসা শুধুমাত্র ভারতীয় নাগরিকরাই মেডিক্যাল কাউন্সি অফ ইন্ডিয়ার পরীক্ষায় বসতে পারেন৷

    এম এল জাঙ্গির নামে ওই চিকিৎসকের কথায়, 'যদি ভারত সরকার এই বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে বিচার করে আমাদের চিকিৎসক হিসেবে কাজ করার অনুমতি দেয় তাহলে আমরা কোভিড ১৯-এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সহযোগিতা করতে পারি৷'

    অনিলা শারদা নামে ২০০৭ সালে ভারতে আসা এরকমই এক চিকিৎসকের দাবি, তিনি পাকিস্তানের হায়দ্রাবাদের একটি মেডিক্যাল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাশ করেছেন৷ তিনি জানিয়েছেন, ভারতে আসার পর এ দেশের নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করতেই প্রায় ১১ বছর কেটে গিয়েছে৷ এর পর সব শর্ত পূরণ করে তাঁদের পক্ষে এমসিআই-এর পরীক্ষায় বসাই কার্যত অসম্ভব হয়ে দাঁড়ায়৷ কারণ তাঁদের অনেকেরই পরীক্ষায় বসার বয়স পেরিয়ে যায়৷

    ২০০০ সালের পরে ভারতে আসা এরকমই হিন্দু শরণার্থী পরিবারের তিনশো চিকিৎসকের বিষয়ে ভেবে দেখার জন্য সরকারকে চিঠি দিয়েছে সীমান্ত লোক সংগঠন৷ সংগঠনের দাবি, গত কয়েক বছর ধরেই বিষয়টি নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক, স্বাস্থ্য মন্ত্রক এবং আইন মন্ত্রকে চিঠি দিয়েছেন তারা৷ মৌখিক ভাবে সবপক্ষেরই এই প্রস্তাবে সায় রয়েছে বলেই দাবি করেছে ওই সংগঠন, যদিও সরকারিভাবে ওই শরণার্থী চিকিৎসকদের নিয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    পরবর্তী খবর